Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২২:৫০
নতুন ইসির সামনে নির্বাচনী পরীক্ষা
গোলাম রাব্বানী
নতুন ইসির সামনে নির্বাচনী পরীক্ষা

নতুন কমিশনের সামনে ‘নির্বাচনী পরীক্ষা’। বিগত ইসির রেখে যাওয়া নির্বাচনের পাশাপাশি দায়িত্ব নেওয়ার পর দুটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে নতুন ইসি।

সব মিলিয়ে আগামী মাসে ধারাবাহিকভাবে তাদের ২৫টি ছোট-বড় নির্বাচন করতে হবে। দায়িত্ব নেওয়ার পরপর হঠাৎ নির্বাচনী চাপের মুখোমুখি হয়েছে নতুন ইসি। তাই নির্বাচনী কাজকর্ম বুঝে ওঠার আগে এসব নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করা নতুন ইসির জন্য চ্যালেঞ্জ বলে মনে করছেন নির্বাচন বিশ্লেষকরা। তারা বলছেন, বিগত ইসির সময় অনুষ্ঠিত উপজেলা-পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে নানা বিতর্ক থাকায় সাধারণ মানুষের মধ্যে ভোট নিয়ে হতাশা সৃষ্টি হয়েছে। তাই বিগত ইসির দুর্নাম ঘুচিয়ে সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠান নতুন ইসির জন্য চ্যালেঞ্জ। এটি তাদের সামনে নির্বাচনী পরীক্ষা। একই সঙ্গে কুমিল্লা সিটি ও দলীয় উপজেলা নির্বাচনে নিজেদের নিরপেক্ষতা রাখাতেও পরীক্ষার মুখোমুখি হতে হবে তাদের। তবে নতুন ইসি কেমন হবে আগামী ৬ মার্চের উপজেলা নির্বাচনের পরই বোঝা যাবে। এদিকে নির্বাচনী চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত নতুন কমিশন। নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু করতে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তারা। দায়িত্ব নেওয়ার দুই দিন পরই অনুষ্ঠিত পৌরসভা নির্বাচন পর্যবেক্ষণে একজন নির্বাচন কমিশনার মাঠ সফর করেছেন। নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হলেও পরে প্রার্থীরা নানা অভিযোগ তুলছেন। এ ছাড়া আগামী ২২ মার্চের উপনির্বাচনের পরিস্থিতি দেখতে খোদ প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও একজন নির্বাচন কমিশনার গাইবান্ধা যাচ্ছেন। অন্যদিকে দুই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার সময় নতুন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, ‘সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য কোনো বাধা এলে তা কঠোরভাবে মোকাবিলা করা হবে। আমরা চাই এ ভোট প্রতিযোগিতামূলক হোক। সবাই এতে অংশ নিক। এতে সুষ্ঠুভাবে ভোট হবে। ’ নতুন সিইসি বলেন, ‘আমরা কারও অধীনে নই। কখনো নির্বাচনের বিষয়ে যদি অভিযোগ পাই কঠোরভাবে তা মোকাবিলা করব। ’ রাজনৈতিক দলগুলোকে সহযোগিতা করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ভোটে কোনো ধরনের প্রভাব যাতে না থাকে সে বিষয়েও ইসির কড়া নজর থাকবে। সিইসি কে এম নূরুল হুদা বলেন, নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হলে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা বা অনিয়ম ঘটে না। প্রার্থিতা প্রত্যাহারে কারও চাপ বা এ ধরনের অভিযোগ পেলেই তাত্ক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন সিইসি। ইসি সচিবালয় জানিয়েছে, বিগত নির্বাচন কমিশন বিদায়ের আগে গাইবান্ধা-১ আসনের উপনির্বাচন, তিন উপজেলায় সাধারণ নির্বাচন, ১৫ উপজেলায় উপনির্বাচনসহ চার পৌরসভার উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে। এ ছাড়া নতুন ইসি ঘোষণা করেছে কুমিল্লা সিটি ও সুনামগঞ্জ-২ আসনের উপনির্বাচনের তফসিল। সেই হিসেবে নতুন ইসির কাঁধে ২৫টি নির্বাচন রয়েছে। এর মধ্যে আগামী ৬ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে দলীয় ভিত্তিতে প্রথম তিন উপজেলা নির্বাচন। আর রয়েছে ১৫ উপজেলায় উপনির্বাচনও। এ ছাড়া একই দিন চার পৌরসভা নির্বাচনও রয়েছে। এরপর ২২ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে গাইবান্ধা-১ আসনের উপনির্বাচন। আর এ নির্বাচন শেষ করেই ৩০ মার্চ করতে হবে কুমিল্লা ও সুনামগঞ্জ-২ আসনের উপনির্বাচন। ১৫ ফেব্রুয়ারি দায়িত্ব নেওয়ার পরপর নতুন নির্বাচন কমিশনের কাঁধে পড়ছে বড়-ছোট ২৫টি নির্বাচন। এর মধ্যে ১৮ ফেব্রুয়ারি রাঙামাটির বাঘাইছড়ি পৌরসভা নির্বাচন শেষ হয়েছে। নির্বাচনী কাজকর্ম বুঝে ওঠার আগেই ভোটের চাপ সামলাতে হচ্ছে নতুন নির্বাচন কমিশনকে।

গাইবান্ধা সফর : আগামী ২২ মার্চ গাইবান্ধা উপনির্বাচন হচ্ছে। বিগত ইসি বিদায়ের আগে এ ভোটের তফসিল দিয়ে যায়। গাইবান্ধা উপনির্বাচনের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে সিইসি কে এম নূরুল হুদা ও নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম সুন্দরগঞ্জ যাবেন। এ সময় সংশ্লিষ্টদের নিয়ে আইনশৃঙ্খলা-সংক্রান্ত বৈঠকের কথা রয়েছে বলে জানান ইসি সচিব।

উপজেলার আইনশৃঙ্খলা বৈঠক : ১৮টি উপজেলায় সাধারণ ও উপনির্বাচন রয়েছে আগামী ৬ মার্চ। এ নির্বাচনের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ২৮ ফেব্রুয়ারি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে বৈঠকে বসবে ইসি।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow