Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২২:৫৫
শফিক রেহমানকে বিদেশ যেতে বাধা
নিজস্ব প্রতিবেদক
শফিক রেহমানকে বিদেশ যেতে বাধা

সাংবাদিক শফিক রেহমানকে লন্ডনে যেতে দেওয়া হয়নি। ঢাকার হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে তাকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সকাল ৭টায় টার্কিশ এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে তার লন্ডনে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন পুলিশ তাকে আটকে দেয়। বাধা দেওয়ার কারণ হিসেবে পুলিশ জানায়, শফিক রেহমানের বিদেশ ভ্রমণের ব্যাপারে তাদের কাছে কোনো তথ্য নেই, এ জন্য তাকে বিদেশে যেতে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। অবশ্য বাসায় চলে যাওয়ার পর ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ দুঃখ প্রকাশ করে টেলিফোনে শফিক রেহমানকে জানান, তার বাইরে যেতে কোনো বাধা নেই। যে কোনো সময় তিনি দেশের বাইরে যেতে পারবেন। জানা যায়, আজ সকাল ৭টায় একই ফ্লাইটে লন্ডনে যাবেন শফিক রেহমান। এ প্রসঙ্গে শফিক রেহমানের ব্যক্তিগত সহকারী তারিকুল ইসলাম চয়ন বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানান, লন্ডন যাওয়ার উদ্দেশে ভোরে বিমানবন্দরে গিয়েছিলেন শফিক রেহমান। কিন্তু তাকে সেখান থেকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তিনি বাসায় ফিরে এসেছেন। ইমিগ্রেশনে প্রবেশের পর বিমানবন্দরের কর্মকর্তারা এসে শফিক রেহমানের কাছ থেকে পাসপোর্টসহ অন্যান্য কাগজপত্র নিয়ে নেন। কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করা হবে বলে জানান কর্মকর্তারা। পরে পাসপোর্ট ও কাগজপত্র ফেরত দিয়ে শফিক রেহমানকে লন্ডন যেতে দেওয়া যাচ্ছে না বলে কর্মকর্তারা দুঃখ প্রকাশ করেন। এ সময় শফিক রেহমান প্রয়োজনীয় নথিপত্র দেখান। কিন্তু কর্মকর্তারা তা আমলে নেননি। জানা যায়, শফিক রেহমানের ক্যান্সারে আক্রান্ত স্ত্রী তালেয়া রেহমান বর্তমানে লন্ডনে চিকিৎসাধীন। আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি তার অপারেশন। তার পাশে থাকার জন্য লন্ডনে যেতে চেয়েছিলেন শফিক রেহমান। গতকাল সকাল ৭টায় তার ফ্লাইট ছিল। আদালতের রায়ের অনুলিপিসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র থাকা সত্ত্বেও তাকে ফ্লাইটে উঠতে দেয়নি ইমিগ্রেশন পুলিশ। এমনকি ফ্লাইটে উঠে যাওয়া লাগেজপত্রও নামিয়ে দেওয়া হয়। শফিক রেহমানের বিদেশে যেতে বর্তমানে নিষেধাজ্ঞা নেই। তাছাড়া গ্রেফতারের পর আটক করা তার পাসপোর্টটিও কর্তৃপক্ষ তিন দিন আগে ফেরত দিয়েছে।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন পুলিশের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা বলেন, যাচাই-বাছাই করার জন্য শফিক রেহমানের কাছ থেকে কাগজপত্র নেওয়া হয়। এ কারণে নির্ধারিত ফ্লাইটে তিনি যেতে পারেননি। তবে পরের যে কোনো ফ্লাইটে তিনি দেশের বাইরে যেতে পারবেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়কে অপহরণ ও হত্যার ষড়যন্ত্র মামলায় শফিক রেহমানকে গত বছরের ১৬ এপ্রিল গ্রেফতার করে পুলিশ। সে বছরের ৬ সেপ্টেম্বর তিনি জামিনে মুক্তি পান।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow