Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : রবিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২২:৪৯
অভিজিৎ হত্যার দুই বছর
ডিএনএ নমুনায় আটকা চার্জশিট
আলী আজম
ডিএনএ নমুনায় আটকা চার্জশিট

বিজ্ঞানমনস্ক লেখক ও মুক্তমনা ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা অভিজিৎ রায় হত্যার দুই বছর পেরিয়ে গেলেও আদালতে এখনো অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দিতে পারেনি মামলার তদন্তকারী সংস্থা ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এখন তারা বলছে, যুক্তরাষ্ট্রে পাঠানো ডিএনএ নমুনার প্রতিবেদন আসার পরই চার্জশীট জমা দেওয়া হবে।

যদিও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা প্রায়ই গণমাধ্যমে জানিয়ে আসছেন, অভিজিৎ হত্যায় জড়িতরা চিহ্নিত। শিগগিরই এ মামলার চার্জশিট আদালতে দেওয়া হবে।

নিহত অভিজিৎ রায়ের বাবা ড. অজয় রায় বলেন, ছেলে হত্যার খুনিদের বিচারের অপেক্ষায় আছি। ডিবি কর্মকর্তারা বলেছেন, তারা চাজর্শিট তৈরি করেছেন। যে কোনো দিন আদালতে চার্জশিট জমা  দেবে তারা। তিনি আরও বলেন, যে ছয়জনকে আটক করা হয়েছে তারা সবাই নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সক্রিয় সদস্য বলে জানতে পেরেছি। চার্জশিটেও তাদের নাম উল্লেখ থাকবে বলে তারা বলেছেন।

তবে গত ৩১ জানুয়ারি বইমেলা প্রাঙ্গণ পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, খুব শিগগিরই অভিজিৎ হত্যা মামলার চার্জশিট জমা দেওয়া হবে। এ মামলায় আটজনকে গ্রেফতার করা ছাড়াও কয়েকজনকে শনাক্ত করা হয়েছে।

বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। মূল আসামি মুকুল রানা গত বছরের ১৯ জুন খিলগাঁওয়ের মেরাদিয়া বাঁশপট্টি এলাকায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছেন। ২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি রাতে বইমেলা থেকে বের হওয়ার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি সংলগ্ন এলাকায় অভিজিৎ রায়কে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করে দ?ুর্বৃৃত্তরা। এ সময় অভিজিতের স্ত্রী বন্যাকেও কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। ঘটনার পর অভিজিতের বাবা অধ্যাপক অজয় রায় বাদী হয়ে ২৭ ফেব্রুয়ারি শাহবাগ থানায় মামলা দায়ের করেন। হত্যাকান্ডের তদন্তে পুলিশকে সহায়তা করতে ঢাকায় আসে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই)। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের আটজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ ছাড়া চট্টগ্রাম থেকে আটক ব্লগার শফিউর রহমান ফারাবী এবং অনন্ত বিজয় দাস খুনের আসামি মান্নান ইয়াহিয়া ওরফে মান্নান রাহীর বিরুদ্ধেও অভিজিৎ হত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ আনা হয়েছে। তবে গ্রেফতার ছয়জন হলেন ব্রিটিশ নাগরিক তৌহিদুর রহমান, সাদেক আলী, আমিনুল মল্লিক, জুলহাস বিশ্বাস, আবুল বাশার ও জাফরান হাসানের মধ্যে কেউ সরাসরি অভিজিৎ হত্যাকাণ্ডে অংশ নিয়ে থাকতে পারে বলে সন্দেহ পুলিশের।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা বলেন, এখন পর্যন্ত এ ঘটনায় আটক ৬জন। আগের আলামতের ডিএনএ প্রতিবেদনের সঙ্গে সন্দেহভাজন আট আসামির মধ্যে যার নমুনা মিলবে সেই অভিজিৎ হত্যার খুনি। ছয়জনের ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে এফবিআইর ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। এখনো ওই রিপোর্ট আসেনি। ডিএনএ নমুনার অপেক্ষায় চার্জশিটও আটকে আছে বলে জানান তদন্ত সংশ্লিষ্টরা।

অভিজিৎ হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির সহকারী পুলিশ কমিশনার ফজলুর রহমান বলেন, এই হত্যা মামলার রহস্য আমাদের কাছে পরিষ্কার। হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতরা সাংগঠনিক নাম ব্যবহার করেছিল। তাদের আমরা চিহ্নিত করেছি। তবে, এখনো তাদের প্রকৃত নাম জানতে পারিনি। তাদের প্রকৃত নাম-ঠিকানা পেলেই মামলার চার্জশিট দেওয়া হবে।

গণজাগরণ মঞ্চের কর্মসূচি : মৌলবাদী সন্ত্রাসীদের হাতে নিহত অভিজিৎ রায়সহ অন্য ব্লগারদের স্মরণে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করবে গণজাগরণ মঞ্চ। আজ বিকাল তিনটায় শাহবাগের প্রজন্ম চত্বরে অস্থায়ী প্রতিকৃতিতে অভিজিৎ রায়সহ সব ব্লগারের উদ্দেশে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে। বিকাল চারটায় ‘মুক্তবুদ্ধির চর্চা ও সামাজিক ন্যায়বিচার, কোথায় দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ?’ শীর্ষক আলোচনা সভা। সন্ধ্যায় আলোক প্রজ্বলন ও শাহবাগ থেকে অভিজিৎ চত্বর অভিমুখে আলোর মিছিল।   কর্মসূচিতে অংশ নিতে আহ্বান জানিয়েছে গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow