Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৩৪
শামীমসহ পাঁচ যুবককে অস্ত্রচালনা শেখাতেন কাদের খান
অবৈধ অর্থের সন্ধানে দুদক
নিজস্ব প্রতিবেদক ও গাইবান্ধা প্রতিনিধি
শামীমসহ পাঁচ যুবককে অস্ত্রচালনা শেখাতেন কাদের খান

এমপি মনজুরুল ইসলাম লিটন হত্যা মামলায় গ্রেফতার শামীম মণ্ডলকে (৩০) রবিবার কারাগারে পাঠানো হয়েছে। শামীম সাবেক এমপি কাদের খানের গ্রামের বাড়ির তত্ত্বাবধায়ক।

কাদের খান তার বাড়িতে এই শামীমসহ পাঁচ যুবককে পিস্তল চালনা শেখাতেন। শামীমকে গত শনিবার রাতে উপজেলার মণ্ডলেরহাট গ্রামে গ্রেফতার করা হয়। তবে বিষয়টি গতকাল সাংবাদিকদের নিশ্চিত করে পুলিশ।

সুন্দরগঞ্জ থানার ওসি আতিয়ার রহমান বলেন, কাদের খান এবং হত্যাকাণ্ডে অংশ নেওয়া চার কিলার মেহেদী, শাহীন, রানা ও হান্নানের আদালতে দেওয়া স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে শামীমকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

শামীম মণ্ডলের বাবা মহর আলী মণ্ডল বলেন, কাদের খানের বাড়ি দেখাশোনা এবং তার বেশ কয়েকটি পুকুরে মাছ চাষের কাজ তদারকি করে শামীম। গত ১৫ ফেব্রুয়ারি পুকুরে ধরা মাছ বিক্রি করে হাট থেকে ফেরার পথে পুলিশ তাকে ধরে নিয়ে যায়।

কিলার গ্রুপ ছিনতাই করত : কাদের খান সুন্দরগঞ্জে তার বাড়িতে পিস্তল চালানোর কায়দা-কানুন শেখাতেন মেহেদী হাসান, শাহীন, শামীম মণ্ডল, হান্নান ও রানাকে। এদের নিয়েই তিনি কিলার গ্রুপ গড়ে তুলেছিলেন। কিলার গ্রুপের সদস্যরা ছিল মাদকাসক্ত। তারা সুন্দরগঞ্জ ও আশপাশ এলাকায় ছিনতাই করে বেড়াত বলে পুলিশ জানতে পায়। এসব ছিনতাইয়ের ঘটনায় কাদের খানের ওই অবৈধ পিস্তল এবং তার দেওয়া বুলেট ব্যবহূত হতো। যে কারণে কাদের খান তার লাইসেন্স করা পিস্তল ব্যবহারের জন্য কেনা ৪০ রাউন্ড বুলেটের সঠিক হিসাব পুলিশকে দিতে পারেনি। ১০টি বুলেট জমা দেন তিনি। বাকি ৩০টি খোয়া গেছে বলে জানান। কিন্তু জানা গেছে, এসব বুলেটের মধ্যে পাঁচ রাউন্ড বুলেট এমপি লিটনের খুনে ব্যবহূত হয়েছে। এক রাউন্ড তার বাড়িতে প্রশিক্ষণকালে মিসফায়ার হয়ে যায়। সে হিসেবে ২৪ রাউন্ড বুলেট প্রশিক্ষণ এবং ছিনতাই ও রাহাজানি কাজে ব্যবহূত হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এখনো কড়া পাহারা : সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ছাপড়হাটি ইউনিয়নের পশ্চিম ছাপড়হাটি খানপাড়া গ্রামে কাদের খানের বাড়ি এখনো পুলিশ কড়া প্রহরায় ঘিরে রেখেছে। কাউকেই সেখানে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। এদিকে সুন্দরগঞ্জ ও পার্শ্ববর্তী এলাকার বিপুল সংখ্যক উত্সুক মানুষ প্রতিদিন কাদের খানের বাড়ি দেখতে ভিড় জমাচ্ছেন। সেই সঙ্গে তারা কাদের খানের সম্পর্কে নানা বিরূপ মন্তব্য এবং ঘৃণা প্রকাশ করছেন।

সম্পদের খোঁজে দুদক : সাবেক এমপি কর্নেল (অব.) ডা. আবদুল কাদেরের জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ অনুসন্ধান করবে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল দুদকের উপ-পরিচালক বেনজির আহমেদকে অনুসন্ধান কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়েছে। এর আগে দুদকের বোর্ডসভায় সাবেক এমপি ডা. আবদুল কাদেরের বিরুদ্ধে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এমপি মনজুরুল ইসলাম লিটন হত্যা মামলায় গ্রেফতার সাবেক এমপি কাদের খান বর্তমানে গাইবান্ধা কারাগারে আছেন। তিনি শনিবার আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে হত্যার দায় স্বীকার করেছেন। কাদের খানের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির পর পুলিশের রংপুর রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি বশির আহমেদ গণমাধ্যমকে জানান, সাবেক এমপি কাদের খান তার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এমপি লিটন হত্যার পরিকল্পনাকারী হিসেবে নিজের দায় স্বীকার করেছেন। তিনি বলেছেন, মূলত এমপি হিসেবে পুনরায় নির্বাচিত হয়ে ক্ষমতা পাওয়ার লোভ এবং নিজে এমপি থাকা অবস্থায় লিটনের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয়ে দ্বন্দ্বের কারণেই তিনি তাকে হত্যার পরিকল্পনা করেন। কিলিং মিশনে অংশ নেওয়া চারজনসহ তথ্যদাতা, আশ্রয়দাতা, অর্থদাতা সম্পর্কে যে তথ্য পাওয়া গেছে, তদন্ত করে তাদেরও এ মামলায় আসামি করা হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow