Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১ মার্চ, ২০১৭ ২৩:৩৭
উল্টোপথে বাস চালান চালক, স্বীকারোক্তি
মেডিকেল ছাত্রী সাদিয়া নিহত
তুহিন হাওলাদার
উল্টোপথে বাস চালান চালক, স্বীকারোক্তি

‘আমার লাইসেন্স নাই। আমি তানজিল বাসে ড্রাইভারি করি।

২৫ ফেব্রুয়ারি তাঁতী বাজারে প্রচুর জ্যাম দেখে দ্রুত যাওয়ার জন্য আমি রং সাইড দিয়ে উল্টো পথে গাড়ি চালাতে থাকি। পরে বংশাল ক্রসিংয়ের আগে একটি সিএনজির সঙ্গে আমার গাড়ির সজোরে ধাক্কা লাগে। আমি সিএনজিকে ধাক্কা দিয়ে দ্রুত গতিতে গাড়ি নিয়ে মিরপুর চলে যাই। পরবর্তীতে জানতে পারি সিএনজির একজন যাত্রী ঢাকা মেডিকেলে মারা গেছেন। ’ ঢাকা ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজের পঞ্চম বর্ষের ছাত্রী সাদিয়া হাসানের মৃত্যুর ঘটনা স্বীকার করে এভাবেই আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন বাসচালক রিয়াজ বাঘা। গতকাল ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদার আসামির এ জবানবন্দি রেকর্ড করেন। পরে হাকিম আসামিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এর আগে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বংশাল থানার এসআই রুক্কুন উদ্দিন ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় আসামির জবানবন্দি রেকর্ড করার আবেদন করেন। আদালত সূত্র জানায়, বাসচালক রিয়াজ বাঘা জবানবন্দিতে জানিয়েছেন— তিনি রাজধানীর শাহআলী থানার এক নম্বর রোডের ১২ নম্বর বাসায় থাকেন। তার গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালীর কলাপাড়ার পাখিমারায়। পিতার নাম ইব্রাহিম বাঘা। তার গাড়ি চালানোর কোনো লাইসেন্স নেই। তানজিল পরিবহনের (ঢাকা মেট্রো ব-১১-৭১০৩) নম্বর বাসে তিনি ড্রাইভারি করেন। ২৫ ফেব্রুয়ারি সকাল ৬টা ১০ মিনিটের সময় সদরঘাট টার্মিনাল হতে যাত্রী উঠিয়ে তিনি মিরপুর চিড়িয়াখানায় যাওয়ার উদ্দেশে রওনা হন। তাঁতী বাজারে পৌঁছানোর পর সেখানে প্রচুর জ্যাম দেখেন। তখন দ্রুত যাওয়ার জন্যই তিনি রং সাইডে উল্টো পথে গাড়ি চালান। দ্রুত গতিতে যাওয়ার সময় বংশাল ক্রসিংয়ের একটু আগে তিনি একটি সিএনজির সঙ্গে দুর্ঘটনা ঘটান। সিএনজিকে ধাক্কা দিয়ে তিনি দ্রুত গতিতে গাড়ি নিয়ে মিরপুর চলে যান। তার গাড়ির হেলপার ছিল মিলন। পরবর্তীতে বাঘা জানতে পারেন, সিএনজির এক যাত্রী ঢাকা মেডিকেলে মারা গেছেন। তিনি আরও বলেন, ‘আমার লাইসেন্স নাই। আমি রং সাইডে গিয়ে অপরাধ করেছি। ’

 মামলার নথি সূত্রে জানা গেছে, রাজধানীর বংশাল থানার নর্থসাউথ রোড এলাকায় ২৫ ফেব্রুয়ারি সকালে সড়ক দুর্ঘটনায় ঢাকা ন্যাশনাল মেডিকেলের ছাত্রী সাদিয়া হাসান (২২) নিহত হন। আহত হন ওই ছাত্রীর মা শাহীনা সুলতানা। এ ঘটনায় বংশাল থানার এএসআই সাইফুল ইসলাম সিদ্দিকী বাদী হয়ে মামলা করেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow