Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ৩ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২ মার্চ, ২০১৭ ২৩:৪৯
ইউনূসকে সম্মান দিতেই হবে
নিজস্ব প্রতিবেদক
ইউনূসকে সম্মান দিতেই হবে

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ক্ষুদ্র ঋণ কার্যক্রমের জন্য গ্রামীণ ব্যাংক ও ড. মুহাম্মদ ইউনূসের অবদান অনস্বীকার্য। ড. ইউনূসের প্রশংসা করে তিনি বলেন, হতদরিদ্রদের মধ্যে গ্রামীণ ব্যাংক প্রথম ক্ষুদ্র ঋণ দেওয়ার ব্যবস্থা চালু করেছে।

আর এ ক্ষুদ্র ঋণের কল্যাণে দেশে এখন দারিদ্র্যের হার অনেক কমেছে। ক্ষুদ্র ঋণদাতা প্রতিষ্ঠান গ্রামীণ ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা ড. মুহাম্মদ ইউনূস সম্মানিত ব্যক্তি। তাকে সম্মান দিতেই হবে বলেও মন্তব্য করেন অর্থমন্ত্রী। এ সময় ক্ষুদ্র ঋণ কার্যক্রমের জন্য ব্র্যাক ও ব্র্যাকের প্রতিষ্ঠাতা স্যার ফজলে হাসান আবেদেরও প্রশংসা করেন তিনি। গতকাল রাজধানীর আগারগাঁওয়ে এলজিইডি ভবনে স্যোশাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের (এসডিএফ) লোন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অর্থমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের দারিদ্র্য বিমোচনে ক্ষুদ্র ঋণ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। দারিদ্র্য নিরসনে অনেক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি এবং একে অগ্রাধিকার খাত হিসেবে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। ২০৩০ সালে দেশে কোনো দরিদ্র মানুষ থাকবে না। এ ছাড়া ২০২৪ সালের মধ্যেই বাংলাদেশ হতদরিদ্রমুক্ত হবে বলে তিনি মনে করেন। এসডিএফের চেয়ারম্যান এম আই চৌধুরীর সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সচিব ইউনুসুর রহমান এবং বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর চিমিয়াও ফান। এসডিএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাখাওয়াত হোসেন স্বাগত বক্তব্যে বলেন, এ যাবৎ এসডিএফের বাস্তবায়িত এবং বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পের সর্বমোট প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ উপকারভোগীর সংখ্যা প্রায় ৬০ লাখ এবং পরিবার প্রায় ১১ লাখ। মোট ৫ হাজার ৬৪২টি গ্রামে সংগঠনের আওতায় ৯ লাখ ৪২ হাজার সদস্যকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে; যার ৯৫ শতাংশই নারী এবং ৯২ শতাংশ নারী সদস্য বিভিন্ন নির্বাহী কমিটির মূল পদে নিযুক্ত থেকে সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow