Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৭ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৬ মার্চ, ২০১৭ ২৩:৪২
বাসে পেট্রলবোমা নিক্ষেপ
খালেদাসহ ৭৮ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট
কুমিল্লা প্রতিনিধি

২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে যাত্রীবাহী বাসে পেট্রলবোমা নিক্ষেপে আটজনের নিহতের ঘটনায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ ২০-দলীয় জোটের ৭৮ জন নেতা-কর্মীকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল করা হয়েছে। গতকাল দুপুরে চৌদ্দগ্রাম থানার উপ-পরিদর্শক মো. ইব্রাহিম কুমিল্লা আদালতের চৌদ্দগ্রাম কোর্টের জিআরও কার্যালয়ে চার্জশিটটি জমা দেন।

চৌদ্দগ্রাম থানার ওসি আবু ফয়সল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।   মামলায় জামায়াত নেতা চৌদ্দগ্রামের সাবেক সংসদ সদস্য ডা. আবদুল্লাহ মোহাম্মদ তাহেরকে প্রধান আসামি করে ৫৬ জনের নাম উল্লেখ করে আরও ১৫-২০ জনকে অজ্ঞাত আসামি দেখানো হয়। এ মামলায় খালেদা জিয়াসহ বিএনপির শীর্ষস্থানীয় ৬ নেতাকে হুকুমের আসামি করা হয়। তারা হলেন ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, এম কে আনোয়ার, রিজভী আহমেদ, সালাহউদ্দিন আহমেদ, সাংবাদিক শওকত মাহমুদ। পরবর্তীতে মামলা তদন্তকালে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মনিরুল হক চৌধুরীসহ ২২ জনকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। তদন্তকালে আসামিদের দুজন মৃত্যুবরণ করেন। অপর ৪ জনকে ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত না থাকায় চার্জশিটে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি ভোরে ২০-দলীয় জোটের অবরোধকালীন সময় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চৌদ্দগ্রামের জগমোহনপুরে দুষ্কৃতকারীদের ছোড়া পেট্রলবোমায় আইকন পরিবহনের একটি বাসের ৮ যাত্রী অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যান। আহত হন আরও ২০ জন।

খালেদার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র নীলনকশার অংশ : নাশকতার মামলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিলের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বিএনপি। দলটি বলেছে, সরকার এবং তাদের প্রভুদের নীলনকশার অংশ হচ্ছে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলায় এই অভিযোগপত্র। গত রাতে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী সংবাদ সম্মেলন করে এ কথা বলেন। মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, সরকার নানা ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে বিএনপিকে ধ্বংস করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। তারই বর্ধিত প্রকাশ হচ্ছে আবারও খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে এই অভিযোগপত্র দাখিল। রুহুল কবির রিজভী বলেন, জাতীয়তাবাদী শক্তিকে বিপর্যস্ত করার জন্য সরকারের হীন ষড়যন্ত্রের যে ধারা চলছে, তারই অংশ হিসেবে ২০১৫ সালে এই মামলাটি করা হয়েছিল। সরকার এবং তাদের প্রভুদের নীলনকশার অংশ হচ্ছে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলায় এই অভিযোগপত্র।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow