Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : শনিবার, ১১ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১০ মার্চ, ২০১৭ ২৩:২১
শিক্ষায় দুর্নীতি হলেই ব্যবস্থা, আইন হচ্ছে
নিজস্ব প্রতিবেদক
শিক্ষায় দুর্নীতি হলেই ব্যবস্থা, আইন হচ্ছে
নুরুল ইসলাম নাহিদ

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, ‘প্রশ্নপত্র ফাঁস ও শিক্ষায় দুর্নীতি হলেই তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। আমরা শিক্ষা আইন নামে একটি আইন সংসদের আগামী অধিবেশনে উপস্থাপন করব।

’ তিনি গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনের সড়কে দুর্নীতিবিরোধী এক মানববন্ধনে এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ, কমিশনার ড. নাসিরউদ্দিন, সচিব আবু হেনা মোস্তফা কামাল, মহাপরিচালক মুনীরউদ্দিন চৌধুরী ও ঢাকা জেলা প্রশাসক মো. সালাহউদ্দিনসহ ঊর্ধ্বতন দুদক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, শিক্ষকদের দুর্নীতি করা মানায় না। কিন্তু মুষ্টিমেয় কিছু শিক্ষকের দুর্নীতির কারণে আজ পুরো শিক্ষক সমাজের সম্মানহানি হচ্ছে। তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয় দুর্নীতি প্রতিরোধে জিরো টলারেন্সে রয়েছে। যদি কোনো শিক্ষকের দুর্নীতির প্রমাণ মন্ত্রণালয় পায় তাহলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ‘আসুন দুর্নীতিকে প্রতিহত করি’ এ স্লোগান সামনে রেখে গতকাল সারা দেশের ২২ হাজার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের আড়াই লাখ শিক্ষার্থী সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত এক ঘণ্টার এ মানববন্ধনে অংশ নেয়। কর্মসূচি আয়োজন করে দুর্নীতি দমন কমিশন—দুদক। শিক্ষামন্ত্রী নাহিদ আরও বলেন, দুর্নীতি সমূলে নির্মূল করতে না পারলে সমাজ অগ্রগতির সুফল কোনো দিন ভোগ করতে পারবে না।

মানুষের মনমানসিকতার পরিবর্তন না হওয়া পর্যন্ত দুর্নীতি সমূলে উৎপাটন সম্ভব নয় বলেও মনে করেন তিনি। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘দুর্নীতি উন্নয়নের প্রধান বাধা। এখন আমরা এমন একটি অবস্থায় আছি, দুই ঘণ্টা আগে প্রশ্ন দিলেও সঙ্গে সঙ্গে ফেসবুকে তা ফাঁস হয়ে যাচ্ছে। আমরা এর বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে আছি। ’

এ ছাড়া একই অনুষ্ঠানে ব্যাংকিং সেক্টরকে সবচেয়ে বেশি দুর্নীতিগ্রস্ত প্রতিষ্ঠান বলে মন্তব্য করেছেন দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। তিনি আরও বলেন, দুদকের সক্ষমতার অভাব রয়েছে। তবে সরকারের সহযোগিতার কারণে দুর্নীতি রোধ করা সম্ভব হচ্ছে। ব্যাংকিং সেক্টরের পাশাপাশি শিক্ষা, স্বাস্থ্য, ভূমি ও পাসপোর্ট অধিদফতরে কমবেশি দুর্নীতি হচ্ছে। সে দুর্নীতি রোধ করতে দুদক কার্যকর উদ্যোগ নিয়েছে। দুদক চেয়ারম্যান আরও বলেন, ‘দেশের উন্নয়নের অভিযাত্রাকে চলমান রাখতে হলে অবশ্যই দুর্নীতির মাত্রা কমাতে হবে। ৫৪% দুর্নীতিবাজের শাস্তি হয়েছে। এটি একটি মাইলফলক। সরকারের অকুণ্ঠ সমর্থন পাচ্ছি দুর্নীতির বিরুদ্ধে। যে কারণে আমাদের কাজ করা আরও সহজ হচ্ছে। ’

এই পাতার আরো খবর
up-arrow