Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৪ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১৩ মার্চ, ২০১৭ ২৩:৪৩
মেয়র আরিফের দায়িত্ব পালনে বাধা নেই
নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট
মেয়র আরিফের দায়িত্ব পালনে বাধা নেই

প্রায় সোয়া দুই বছর পর নগরবাসীর ভোটে নির্বাচিত মেয়র ফিরে পাচ্ছেন সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক)। আরিফুল হক চৌধুরীর মেয়র পদে দায়িত্ব পালনে বাধা না দিতে গতকাল নির্দেশ দিয়েছে উচ্চ আদালত।

এ নির্দেশের পর নগর ভবনে ফিরে জনপ্রত্যাশা পূরণে পুনরায় কাজ শুরুর ঘোষণা দিয়েছেন আরিফ। মেয়র পদ নিয়ে সৃষ্ট জটিলতা নিরসন হওয়ায় নগরীর উন্নয়নে নতুন গতি আসবে বলেও মনে করছেন নগরবাসী ও কাউন্সিলররা। বিএনপি নেতা আরিফুল হক চৌধুরী ২০১৩ সালের ১৫ জুন মেয়র নির্বাচিত হন। নির্বাচনের দেড় বছরের মাথায় তিনি জড়িয়ে পড়েন সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া হত্যা মামলায়। ২০১৪ সালের ৩০ ডিসেম্বর আদালতে আত্মসমর্পণ করেন তিনি। আদালত কারাগারে পাঠান আরিফকে। কারাগারে যাওয়ার সপ্তাহখানেকের মধ্যেই তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয় মেয়রের পদ থেকে। ওই মামলায় দুই বছর চার দিন জেল খেটে চলতি বছরের ৪ জানুয়ারি কারামুক্তি পেলেও আইনি জটিলতায় বসতে পারেননি মেয়রের চেয়ারে। অবশেষে রিটের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল বিচারপতি সৈয়দ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি আতাউর রহমান খানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ আরিফকে বরখাস্তের আদেশ ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেছেন। একই সঙ্গে তাকে মেয়র পদে বসতে বাধা না দেওয়ার নির্দেশও দিয়েছে আদালত। আরিফুল হক চৌধুরী মেয়র নির্বাচিত হয়ে নগরীর উন্নয়নে নিয়েছিলেন নানা পদক্ষেপ। এর সুফলও পাওয়া শুরু করেছিলেন নগরবাসী। নগর ভবনে তিনি ফিরে উন্নয়নের সেই ধারা ফিরিয়ে আনবেন এমন প্রত্যাশা নগরবাসীর। সিলেট নগরীর উপশহরের বাসিন্দা শাকিল জামান বলেন, উন্নয়নের জন্য নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিই প্রয়োজন। আরিফুল হক চৌধুরী ফের মেয়রের পদে বসলে নগরের উন্নয়নে গতি আসবে। এ ছাড়া নগরবাসী তাদের নানা সমস্যা ও প্রয়োজনের কথাও তার কাছে বলতে পারবেন। সিটি করপোরেশনের বর্তমান পরিষদের মেয়াদের আর বাকি প্রায় ১৫ মাস। এ সময়ের মধ্যে মেয়র আরিফের নেতৃত্বেই জনপ্রত্যাশা পূরণ করতে চান কাউন্সিলররা। ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীম ও ১৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর দিনার খান হাসু দুজনই বললেন, ‘দায়িত্ব পাওয়ার পরই নগরীর উন্নয়নে সবাইকে নিয়ে মাঠে নেমেছিলেন আরিফ। জলাবদ্ধতা, যানজটসহ নানা সমস্যা থেকে মুক্তি পেয়েছিলেন নগরবাসী। কিন্তু দায়িত্ব চালিয়ে যেতে পারেননি আরিফ। এখন আবার দায়িত্ব পেয়েছেন। সময় আছে ১৫ মাসের মতো। এই সময়ে মেয়রের নেতৃত্বে নগরবাসীর প্রত্যাশা পূরণে আমরা কাজ করব। ’ এদিকে নগরবাসীর ভালোবাসা নিয়ে নগর ভবনে ফিরতে চান আরিফুল হক চৌধুরী। তাদের সমর্থন ও সহযোগিতায় গড়তে চান কাঙ্ক্ষিত নগর। গতকাল বিকেলে আরিফুল হক চৌধুরী বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘নগরবাসীর কাছে কৃতজ্ঞ। সবাই আমাকে ভালোবাসা দেখিয়ে নির্বাচিত করেছিলেন। তাদের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারিনি। এবার সে চেষ্টা করব। সবার সমর্থন, সহযোগিতা নিয়ে গড়ব কাঙ্ক্ষিত নগর। ’

up-arrow