Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:১৫
রাজনৈতিক তারকাদের মিলনমেলা
নিজস্ব প্রতিবেদক
রাজনৈতিক তারকাদের মিলনমেলা
উপরে বাঁ থেকে বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম। আওয়ামী লীগের মুকুল বোস, বসুন্ধরা গ্রুপ চেয়ারম্যান, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক আবদুর রহমান। নিচে বাঁ থেকে সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ও বিএনপি নেতা রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, আবদুল্লাহ আল নোমান, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বিএনপি নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ও আওয়ামী লীগের সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম —বাংলাদেশ প্রতিদিন

দিনভর ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা আর আনন্দঘন আয়োজনে গতকাল অষ্টম জন্মদিন পালন করল দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় ও সর্বাধিক প্রচারিত পত্রিকা বাংলাদেশ প্রতিদিন। এ উপলক্ষে রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার হল-৪-এ (নবরাত্রী) দিনভর শুভানুধ্যায়ীদের ভালোবাসায় সিক্ত হয় বাংলাদেশ প্রতিদিন পরিবার।

বিভিন্ন পর্যায়ের তারকার মিলনমেলা ছিল কনভেনশন সিটি। দেশের প্রতিটি মহানগর ও জেলা পর্যায়ের পাশাপাশি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে একযোগে জন্মদিনের বর্ণাঢ্য কর্মসূচি পালিত হয়। বর্ণিল সাজে সাজানো হয় কনভেনশন সিটির পাশাপাশি ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া প্রাঙ্গণ। আলোকসজ্জা ছিল গোটা মিডিয়া প্রাঙ্গণ। বাংলাদেশ প্রতিদিন কার্যালয়ে ছিল রংবেরঙের ব্যানার-ফেস্টুন আর ফুলের ডালি। চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী সুস্বাদু মেজবানি খাবারের পাশাপাশি ছিল জনপ্রিয় সংগীতশিল্পীদের মন মাতানো পরিবেশনা। তারা দিনভর মাতিয়ে রাখেন আগত দশ সহস্রাধিক শুভানুধ্যায়ীকে। সন্ধ্যার পর থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত অতিথিরা বাংলাদেশ প্রতিদিনে আসেন ফুলের ডালি নিয়ে। ভালোবাসায় সিক্ত করেন প্রতিদিন পরিবারকে। কামনা করেন বাংলাদেশ প্রতিদিনের উত্তরোত্তর সাফল্য। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন বসুন্ধরা ও ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান। বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম আগত অতিথি ও শুভানুধ্যায়ীদের বরণ করে নেন। আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, জাসদ, কমিউনিস্ট পার্টি, বাসদসহ সর্বস্তরের রাজনীতিবিদ, শিক্ষাবিদ, শীর্ষ ব্যবসায়ী, সংস্কৃতিসেবী, গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব, বিভিন্ন বিজ্ঞাপনী সংস্থার প্রতিনিধি, সারা দেশের হকার, এজেন্টসহ সমাজের সর্বস্তরের মানুষের মিলনমেলায় পরিণত হয় ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরা। উৎসবের ঢল নামে গোটা এলাকায়। শুভেচ্ছা বক্তব্যে ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান বলেন, ‘আজ দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় ও সর্বাধিক প্রচারিত দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন সপ্তম বছর পেরিয়ে অষ্টম বছরে পদার্পণ করল। আমি অত্যন্ত আনন্দিত, আজ বাংলাদেশ প্রতিদিনকে শুভেচ্ছা জানাতে দলমতনির্বিশেষে আপনারা সবাই উপস্থিত হয়েছেন। আমি ধন্য। আপনারা যেভাবে বিগত সাত বছর ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপকে সমর্থন জুগিয়েছেন, আগামী দিনেও অবিরাম সমর্থন দিয়ে যাবেন— এটাই আমার প্রত্যাশা। ’ বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান বলেন, ‘২০১০ সালের এই দিনে প্রতিষ্ঠা পায় এই সংবাদমাধ্যমটি। এরপর খুব অল্প সময়েই জনপ্রিয়তার শীর্ষে উঠে আসে পত্রিকাটি। আজ মহাসমারোহে দেশ-বিদেশে উদ্যাপিত হচ্ছে বাংলাদেশ প্রতিদিনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর মহোৎসব। ’ এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফওয়ান সোবহান, ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের প্রকাশক ময়নাল হোসেন চৌধুরী, মিডিয়া গ্রুপের উপদেষ্টা আবু তৈয়ব, কালের কণ্ঠ সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, বাংলানিউজ২৪.কমের এডিটর ইন চিফ আলমগীর হোসেন, কালের কণ্ঠের নির্বাহী সম্পাদক মোস্তফা কামাল, ডেইলি সানের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক শিয়াবুর রহমান, বাংলাদেশ প্রতিদিনের যুগ্ম সম্পাদক আবু তাহের, উপ-সম্পাদক মাহমুদ হাসান, কমার্শিয়াল উপদেষ্টা খন্দকার কামরুল হক শামীম, প্রধান বার্তা সম্পাদক মাশুক চৌধুরী, বার্তা সম্পাদক কামাল মাহমুদ, লুত্ফর রহমান হিমেল, প্রধান প্রতিবেদক মন্জুরুল ইসলাম, সিটি এডিটর শিমুল মাহমুদ, জাহাঙ্গীর আলম, বিজ্ঞাপন বিভাগের জিএম মাসুদুর রহমান, সার্কুলেশন বিভাগের জিএম বিল্লাল হোসেন মন্টু। এ ছাড়া নিউজ টোয়েন্টিফোরের নির্বাহী পরিচালক হাসনাইন খুরশিদ, হেড অব কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স সামিয়া রহমান, হেড অব নিউজ শাহনাজ মুন্নিসহ ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া পরিবারের সাংবাদিকরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

আওয়ামী লীগ : শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী, জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল (লোটাস কামাল), রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম, মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মোজাফফর হোসেন পল্টু, মুকুল বোস, বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট আবদুল বাসেত মজুমদার, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ এমপি, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ক্যাপ্টেন (অব.) এ বি তাজুল ইসলাম, সাবেক চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ আবদুস শহীদ, আওয়ামী লীগ নেতা আলাউদ্দীন আহমেদ চৌধুরী নাসিম, আওয়ামী লীগের উপদপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি এ কে এম শামীম ওসমান, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য এস এম কামাল হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা শফি আহমেদ, যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুকের পক্ষে শহীদ সেরনিয়াবাত ও মাহবুবুর রহমান হিরণ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদের নেতৃত্বে দক্ষিণের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামাল চৌধুরী, ডা. দিলীপ বড়ুয়া রায়, প্রচার সম্পাদক আকতার হোসেন এবং ঢাকা মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান, উত্তরের নেতা শেখ বজলুর রহমান, কাদের খান, এম সাইফুল্লাহ সাইফুল, আজিজুল হক রানা, মাহমুদ বেগম ক্রিকের নেতৃত্বে মহিলা আওয়ামী লীগ, সাবিনা আক্তার তুহিনের নেতৃত্বে যুব মহিলা লীগ উত্তর, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ, বর্তমান সভাপতি মো. সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইনের নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ, সৈয়দ মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগ, জাতীয় শ্রমিক লীগ সভাপতি শুক্কুর মাহমুদের নেতৃত্বে জাতীয় শ্রমিক লীগের নেতারা, ঢাকা দক্ষিণ সিটির কাউন্সিলর অ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ, কৃষক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ হাওলাদার, সাবেক সহসভাপতি বদিউজ্জামান বাদশা, ছাত্রলীগের সাবেক নেতা আবু আব্বাস ভুইয়া, খন্দরকার তারেক রায়হান প্রমুখ। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল হক হেলাল, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব ফরিদউদ্দিন আহাম্মদ চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর উপ প্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকন। বাংলাদেশ মুদ্রণ শিল্প সমিতির চেয়ারম্যান তোফায়েল খান, সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম, বাংলাদেশ পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণ ও বিপণন সমিতির সাধারণ সম্পাদক শফিউদ্দিন।

বিএনপি : বিএনপি নেতাদের মধ্যে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) আলতাফ হোসেন চৌধুরী, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, আবদুল্লাহ আল নোমান, মোহাম্মদ শাহজাহান, বেগম সেলিমা রহমান, শামসুজ্জামান দুদু, আবদুল আওয়াল মিন্টু ও তার স্ত্রী নাসরিন আওয়াল মিন্টু, মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা গাজী মাজহারুল আনোয়ার, হাবিবুর রহমান হাবিব, তাহসিনা রুশদির লুনা (ইলিয়াস আলীর স্ত্রী), সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী আহমেদ, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল কবির তালুকদার দুলু, বিলকিস আক্তার জাহান শিরিন, ডা. সাখাওয়াৎ হোসেন জীবন, শ্যামা ওবায়েদ, বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান, স্বনির্ভরবিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা, বিএনপির সহসাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস, বিএনপি নেতা আবদুল লতিফ জনি, শরাফত আলী সপু, হাবিবুল ইসলাম হাবিব, আমিরুল ইসলাম খান আলিম, শাহীন শওকত, অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম, রিয়াজ উদ্দিন নসু, রফিক শিকদার, সাবেক এমপি বিলকিস ইসলাম, ফরিদা ইয়াসমিন, হাবিবা চৌধুরী বিথি, শামীম আরা সাথী, আয়েশা সিদ্দিকা মানি, ব্যারিস্টার মীর হেলাল, ব্যারিস্টার সাইফুল ইসলাম, যুবদল সভাপতি সাইফুল আলম নীরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, সিনিয়র সহসভাপতি মোরতাজুল করিম বাদরু, যুগ্ম সম্পাদক নুরুল ইসলাম নয়ন, ঢাকা মহানগর উত্তর শাখার সভাপতি এস এম জাহাঙ্গীর, সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম মিন্টু, সিনিয়র সহসভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান রিয়াদ, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, সিনিয়র সহসভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াসির আলী, যুগ্ম সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, আক্তারুজ্জামান বাচ্চু, জামিল হোসেন, এমদাদুল হক, জাসাসের সিনিয়র সহসভাপতি বাবুল আহমেদ, সহসভাপতি শায়রুল কবির খান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন রোকন, চেয়ারপারসন কার্যালয়ের কর্মকর্তা প্রকৌশলী মো. জসিমউদ্দিন, বিএনপি নেতা শাহ আখতারুজ্জামান আক্তার, আলহাজ জামির হোসেন, এমদাদুল হক, আরিফ হাওলাদার, গাজী সালাউদ্দিন, মহানগর ছাত্রদল নেতা শফিকুল ইসলাম রানা প্রমুখ। এ ছাড়াও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদ, গণস্বাস্থ্য হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বিএনএ চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ফারুক রহমান, যুগ্ম মহাসচিব মাহমুদ খান, ডেমোক্রেটিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন মনি প্রমুখ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয় পার্টি : জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, প্রেসিডিয়ামের সদস্য অ্যাডভোকেট কাজী ফিরোজ রশীদ এমপি, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি, সাহিদুর রহমান টেপা, মাসুদা এম রশিদ চৌধুরী, আযম খান, মীর আবদুস সবুর আসুদ ও কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদ সদস্য জাহিদ হোসেন বিপ্লব। বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদের পক্ষে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান ফখরুল ইমাম এমপি ও এপিএস আবদুর রহিম ভূইয়া, জাতীয় ছাত্র সমাজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আহ্বায়ক ও কেন্দ্রীয় সহসভাপতি আবদুর রহমান রোহান, সদস্য সচিব নকিবুল হাসান নিলয়, ঢাবি ছাত্র সমাজ নেতা হাসান শামীম, সাওগাতুল ইসলাম হিমেল, সাগর হাসান ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।

অন্যান্য : ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও বেসামরিক বিমান ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, জাসদ সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়া, জাতীয় পার্টি-জেপি মহাসচিব শেখ শহীদুল ইসলাম, জাসদ জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব, সিনিয়র সহসভাপতি তানিয়া ফেরদৌসী, কমিউনিস্ট কেন্দ্রের আহ্বায়ক ড. ওয়াজেদুল ইসলাম খান, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ আহ্বায়ক রেজাউর রশীদ খান, মরহুম সাবেক প্রধানমন্ত্রী কাজী জাফর আহমদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানান দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ড. টিআই এম ফজলে রাব্বী চৌধুরী, প্রেসিডিয়ামের সদস্য এস এম এম আলম, আহসান হাবিব লিংকন, খালেকুজ্জামান চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান রমিজ উদ্দিন চৌধুরী, শরীফ মিয়া, কেন্দ্রীয় নেতা লোকমান হোসেন পাটোয়ারী, রুবেল খান, ছাত্র সমাজ নেতা সাজিক মাহমুদ। মরহুম কাজী জাফর আহমদের পরিবারের পক্ষ থেকে পাঠানো জাফর আহমদের আত্মজীবনীমূলক বই তুলে দেন গোলাম মোস্তফা। মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) প্রেসিডেন্ট অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ, মানবাধিকার সংগঠন আইন-অধিকার (বিডি) ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ মহিদুল কবির, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থার সমন্বয়ক আবদুল হান্নান খান, জ্যেষ্ঠ সদস্য এম সানাউল হক, সদস্য মতিউর রহমান, মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) ডিরেক্টর অ্যাডভোকেট একলাস উদ্দিন ভূঁইয়া, জ্যোতিষ লিটন দেওয়ান চিশতি প্রমুখ। মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম চরমোনাই পীরের নেত্বতাধীন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের পক্ষে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, শেখ ফজলে বারী মাসউদ, মাওলানা খলিলুর রহমান, শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের সভাপতি জি এম রুহুল আমিন। শোলাকিয়া ময়দানের ইমাম মাওলানা ফরিদ উদ্দীন মাসঊদ, সম্মিলিত ইসলামী জোটের সভাপতি হাফেজ মওলানা জিয়াউল হাসান, প্রগতিশীল জাতীয়তাবাদী দল-পিএনপি চেয়ারম্যান ফিরোজ মোহাম্মদ লিটন, মহাসচিব আহমেদুর রহমান, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা গোলাম মহিউদ্দিন ইকরাম, মুফতি জাতির হোসেন খান, মাওলানা আবদুল মালেক চৌধুরী, মারকাতুত তাহফিজ ফাউন্ডেশন বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হাফেজ কারি নেসার আহমদ খান নাসেরী, হাফেজ মাওলানা এহসান সিরাজী, হাফেজ মাওলানা খন্দকার সালাহউদ্দিন, বাংলাদেশ ইসলামী ঐক্যজোটের কেন্দ্রীয় নেতা হাফেজ মাওলানা কারি সামামাতুল্লাহ, শফিকুল হাসান শিহাব ও নিয়ামত উল্লাহ প্রমুখ নেতাও ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।

ব্যবসায়ী প্রতিনিধি : এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহ উদ্দিন আহমেদ, অর্থনীতিবিদ ও পুঁজিবাজার বিশ্লেষক অধ্যাপক ড. আবু আহমেদ, অর্থনীতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড. জামাল উদ্দিন আহমেদ, এফবিসিসিআইর সাবেক সভাপতি আবদুল আওয়াল মিন্টু, মীর নাসির হোসেন, কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদ, এফবিসিসিআইর সাবেক প্রথম সহসভাপতি মোহাম্মদ আলী, জসিম উদ্দিন, মনোয়ারা হাকিম আলী, এফবিসিসিআইর সাবেক সহসভাপতি হেলাল উদ্দিন, মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু, বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান ও সহসভাপতি মোহাম্মদ নাসির, বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি আতিকুল ইসলাম, রপ্তানিকারক সমিতির সভাপতি আবদুস সালাম মুর্শেদী, আইবিএফবি সভাপতি ও রানার গ্রুপের চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান খান, বারভিডার সভাপতি হাবিব উল্লাহ ডন, এফবিসিসিআই পরিচালক নাগিবুল ইসলাম দিপু, ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি রাজিব আহমেদ, ওয়েবের সভাপতি নাসরিন ফাতিমা আউয়াল মিন্টু, বেসিসের সাবেক সভাপতি শামীম আহসান, আইএসপি অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি আক্তারুজ্জামান মঞ্জু, ব্যবসায়ী নেতা ডা. মাহবুব হাফিজ, আক্কাস মাহমুদ, ইঞ্জিনিয়ার মহব্বত উল্লাহ, প্লাটিনাম গ্রুপের চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন চৌধুরী, বৃহৎ করদাতা ইউনিট ভ্যাট এলটিইউ কমিশনার মতিউর রহমান, পূবালী ব্যাংকের মো. আবদুল হামিদ চৌধুরী, কেপিসি ইন্ডাস্ট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী সাজেদুর রহমান, ইগলুর সিইও জি এম কামরুল হোসাইন, ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর সুমিত চক্রবর্তী, মার্কেটিং ইউনিটেন্ডের ম্যানেজার আকতার হোসেন।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী : সেনাবাহিনীর এডজুডেন্ট জেনারেল মতিউর রহমান, ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া, স্পেশাল ব্রাঞ্চ (এসবি) প্রধান ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, পুলিশ সদর দফতরের ডিআইজি (মিডিয়া) একেএম শহিদুর রহমান, এডিশনাল ডিআইজি (সংস্থাপন) মো. হাবিবুর রহমান, এআইজি (মিডিয়া) সহেলী ফেরদৌস, জনসংযোগ কর্মকর্তা এ কে এম কামরুল আহছান, ডিসি (মিডিয়া) মো. মাসুদুর রহমান, ডিসি (ট্রাফিক-উত্তর) প্রবীর কুমার রায়, এডিসি ইউসুফ আলী, এডিসি আবদুল আহাদ, এডিসি মানস কুমার পোদ্দার, এডিসি খোরশেদ আলম, এডিসি মোহাম্মদ নুরুল আমীন, এসি আশরাফুল করিম, এসি ফেরদৌসী রহমান, ভাটারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নুরুল মোত্তাকিন, খিলক্ষেত থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শহীদুল হক। র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ, পরিচালক (গোয়েন্দা) লে. কর্নেল আবুল কালাম আজাদ, লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান, র‌্যাব-১০ এর অধিনায়ক এডিশনাল ডিআইজি জাহাঙ্গীর হোসের মাতুব্বর, উপ-পরিচালক মেজর মেহেদী হাসান। আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মিজানুর রহমান খান, কারা মহাপরিদর্শক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন, নৌবাহিনীর পরিচালক (গোয়েন্দা) কমোডর এম সোহায়েল, ন্যাশনাল টেলি কমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টারের (এনটিএমসি) পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জিয়াউল আহসান। এ ছাড়া আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতরের (আইএসপিআর) পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের পক্ষ থেকে জেনারেল ম্যানেজার (জিএমপিআর) শাকিল মেরাজ এবং অ্যাসিসটেন্ট ম্যানেজার তাসমিন আখতার ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

শিক্ষাবিদ : বাংলাদেশ প্রতিদিনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এ কে আজাদ চৌধুরী, বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক, মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এ কে এম ছায়েফ উল্যা, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান, প্রো-ভিসি অধ্যাপক ড. শহিদুল্লাহ সিকদার, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান, প্রো-ভিসি অধ্যাপক ড. শহিদুল্লাহ সিকদার, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান, অধ্যাপক ড. সালমা সুলতানা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল, ইউজিসির চেয়ারম্যানের পক্ষে অতিরিক্ত পরিচালক মো. ওমর ফারুখ, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের পক্ষে মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার মোহাম্মদ আফরাজুর রহমান, শিক্ষামন্ত্রীর একান্ত ব্যক্তিগত সহকারী মো. জাকির হোসেন শুভেচ্ছা জানান। বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, ডা. শহীদুল্লাহ, অধ্যাপক ডা. আলী আজগর মোড়ল, বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্টের সদস্য সচিব ও স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. শাহজাহান আলম সাজু, পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতা সাইদুর রহমান পান্না, অধ্যক্ষ তেলাওয়াত হোসেন খান, অধ্যক্ষ মেনহাজ উদ্দিন, শিক্ষক-কর্মচারী অবসর সুবিধা বোর্ডের সদস্য সচিব অধ্যক্ষ শরীফ আহমেদ সাদী, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে জনসংযোগ, তথ্য ও প্রকাশনা দফতরের পরিচালক অধ্যাপক মিল্টন বিশ্বাস, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক মিঠুন মিয়া সর্বোচ্চ প্রচারিত এ দৈনিকের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।

নর্দান ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ-এর পক্ষ থেকে বাংলাদেশ প্রতিদিনকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় ট্রাস্টের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আবু ইউসুফ মো. আবদুল্লাহ, উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল করিম, ট্রেজারার মো. আনোয়ার হোসাইন, রেজিস্ট্রার রাশিদুল ইসলাম, উন্নয়ন ও আন্তর্জাতিক বিষয় পরিচালক লে. কর্নেল (অব.) একতেদার আহমেদ সিদ্দিকী ও জনসংযোগ বিভাগের ডেপুটি ডিরেক্টর শেখ মাহাবুব রহমান। সাউথইস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এন এম মেশকাত উদ্দিন, ইস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে এএসএমজি ফারুক (অ্যাডমিশন), জনসংযোগ দফতরের পরিচালক মুহাম্মদ ইমতিয়াজ, প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতরের জাহিদ হাসান, ইকবাল হোসাইন (অ্যাডমিশন), ইউরোপিয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতরের পরিচালক মনিরুল ইসলাম রিন্টু, ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতরের সহকারী পরিচালক আবু সাদাত, সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার আবদুল আজিজ, জনসংযোগ কর্মকর্তা নাহিদ হাসান। এ ছাড়া বিএসবি-ক্যামব্রিয়ান এডুকেশন গ্রুপ, আশা বিশ্ববিদ্যালয়, ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটিসহ বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ প্রতিদিনকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়।

চিকিৎসক প্রতিনিধি : অধ্যাপক ডা. অরূপ রতন চৌধুরী, ডা. এম শমসের আলী, ডা. দেলোয়ার হোসেন, অধ্যাপক ডা. রাকিবুল ইসলাম লিটু, অধ্যাপক ডা. মনিলাল আইচ লিটু, ডা. ফারজানা, ডা. শাহাদাত, ডা. ইয়াছিন আলী, ডা. জাহানারা আরজু, ডা. সহেলি আহমেদ সুইটি, ডা. তানিয়া আলম ও ডা. এম এ মলি।

গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব : সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ার, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, বাংলাদেশ জার্নাল সম্পাদক শাহজাহান সরদার, যুগান্তরের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাইফুল আলম, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল ও মহাসচিব ওমর ফারুক, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সহসভাপতি আজিজুল হক ভূঁইয়া, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি শাবান মাহমুদ ও সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন বাদশা ও সাধারণ সম্পাদক মুরসালিন নোমানী, একাত্তর টেলিভিশনের সিইও মোজাম্মেল বাবু, বৈশাখী টেলিভিশনের হেড অব নিউজ অশোক চৌধুরী, ঢাকা টাইমস টোয়েন্টিফোর ডটকমের সম্পাদক আরিফুর রহমান দোলন, পূর্ব পশ্চিম ডটকমের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও সৈয়দ সারওয়ার রহমান, ডিক্যাব সভাপতি রেজাউল করিম লোটাস প্রমুখ।

চলচ্চিত্র ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব : চিত্রনায়ক ফারুক, ইলিয়াস কাঞ্চন, রিয়াজ, আমিন খান, কাজী মারুফ, সম্রাট, জায়েদ খান, মিশা সওদাগর, জাহিদ হাসান, ইমন, সজল, সোহানুর রহমান সোহান, মুশফিকুর রহমান গুলজার, কাজী হায়াৎ, বদিউল আলম খোকন, ছটকু আহমেদ, গাজী মাজহারুল আনোয়ার, নার্গিস আক্তার, মেহের আফরোজ শাওন, নইম ইমতিয়াজ নেয়ামুল, বুবলী, পরীমণি, জান্নাতুল ফেরদৌস পিয়া, শম্পা, সাগর, মাসুম বাবুল, মিমো, মিষ্টি জান্নাত, সাইমন, আমান, ডি এ তায়েব, জি এম সৈকত, সাত্তার, আবদুর রহমান, শিশির খান, অপসরা সুহি, অমৃতা, হাফিজউদ্দীন, সাইফ চন্দন, সৈকত সালাউদ্দীন, আবদুল আজিজ, মেসবাহউদ্দিন আহমেদ, লারা লোটাস, জ্যোতিকা জ্যোতি, বন্যা মির্জা, শিপন, ফারিন, রোশান, জন, আনজাম মাসুদ, শিবলী নোমান, ইন্তেখাব দিনার, মামুনুর রশীদ, শহীদুল আলম সাচ্চু, তানভিন সুইটি, আহসান হাবিব নাসিম, স্বাগতা, মুনিরা ইউসুফ মেমী, সুষমা সরকার, আহসানুল হক মিনু, সুজাত শিমুল, লুত্ফুর রহমান জর্জ, ফেরদৌস ওয়াহিদ, রিজিয়া পারভীন, শুভ্র দেব, আঁখি আলমগীর, নূরজাহান আলীম, কালা মিয়া, নোলক বাবু, রাফাত, বেলাল খান, কণা, কর্ণিয়া, মিতু কর্মকার, নাহার লাবণী, পিংকি ছাতরি, শামিম, কাজী শুভ, কিশোর, পুলক, মাহাদি, রন্টি দাস, পলি সায়ন্তনি, জয় শাহরিয়ার, শফিক তুহিন, ইলিয়াস হোসেইন, সামিয়া রমা, ঐশী, মম, বাবু, ফারুক আহমেদ সুমন, কিশোর পলাশ, পুতুল, আলম দেওয়ান, আয়েশা মৌসুমি, ফাহিম ফয়সাল, অনন্যা, লুত্ফর হাসান ও আলম দেওয়ান।

বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব : সৈয়দ আবুল মকসুদ, কর্নেল (অব.) জাফর ইমাম বীরবিক্রম, বিজিএমসি’র সাবেক চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল হুমায়ুন খালেদ (অব.), সাবেক নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন, কথাসাহিত্যিক অদিতি ফাল্গুনী, কলামিস্ট সেলিম হোসেন আজাদী প্রমুখ।

ক্রীড়াবিদ : বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি সালাম মুর্শেদী, বিসিবি পরিচালক নজির আহমেদ, বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ, সম্মিলিত ক্রীড়া পরিবারের সদস্য সচিব ফজলুর রহমান বাবুল, জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক আমিনুল হক, বিপ্লব ভট্টাচার্য, শেখ মোহাম্মদ আসলাম, কায়সার হামিদ, তার স্ত্রী লোপা হামিদ, সাবেক ফুটবলার হাসানুজ্জামান খান বাবলু, আবদুল গাফফার।

সংস্থা ও সংগঠন : বাংলাদেশ ভেটেরিনারি অ্যাসোসিয়েশন, জাতীয় চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ, চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি, চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতি, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিমি (বাচসাস), অভিনয় শিল্পীসংঘ, শিল্পী ঐক্যজোট, জাজ মাল্টিমিডিয়া, ক্যামেরা অ্যাসোসিয়েশন সংঘ, নাট্যকার অ্যাসোসিয়েশন, ডিরেক্টরস গিল্ড, মগেরা, ফিল্ম শপ (বিন্তি) থেকে শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে। এ ছাড়া ঢাকা সংবাদপত্র হকার্স বহুমুখী সমবায় সমিতি লি.-এর চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল, সংবাদপত্র হকার্স কল্যাণ বহুমুখী সমবায় সমিতি লি.-এর সেক্রেটারি আলাউদ্দিন, বাংলাদেশ সংবাদপত্র এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি হারুন-অর-রশিদ, ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আবু বক্কর, সংবাদপত্র পরিবহন মালিক সমিতির চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন রিন্টু, সেক্রেটারি আবদুস ছালামসহ ঢাকা শহরের সব সুপারভাইজার ও ডিস্ট্রিবিউটর ও মফস্বলের সব এজেন্ট উপস্থিত হয়ে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।

বিভাগীয় পর্যায়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী : চট্টগ্রাম : চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে অনুষ্ঠিত প্রীতি সম্মেলনে যোগ দেন চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন, সাবেক মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি এ বিএ ম মহিউদ্দিন চৌধুরী, সাবেক মেয়র মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী, সংসদ সদস্য মাহজাবিন মোর্শেদ ও ওয়াসিকা আয়েশা খান, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী, চট্টগ্রাম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ডা. প্রভাত চন্দ্র বড়ুয়া, বিএনপির চট্টগ্রাম মহানগর শাখার সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, বিজিএমইএর প্রথম সহসভাপতি মঈনুদ্দিন আহমেদ মিন্টু, রাউজান উপজেলা চেয়ারম্যান এহসানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল, মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মাসুদ উল হাসান, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন, প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি আবু সুফিয়ান, চট্টগ্রাম শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের চৌধুরী, অধ্যাপক ড. জিনবোধি ভিক্ষু, খাতুনগঞ্জ ট্রেড এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ছৈয়দ সগীর আহমদ প্রমুখ।

রাজশাহী : প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সদর আসনের এমপি ও ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা, নগর আওয়ামী লীগ সভাপতি এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শাহ আজম শান্তনু, রাবি জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের সাংগঠনিক সম্পাদক ড. মাসুদুল হাসান খান মুক্তা, রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মামুন-অর-রশিদ, রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খান, সোনালী সংবাদের সম্পাদক লিয়াকত আলী, কেবল টিভি দর্শক ফোরামের মহাসচিব শাহাদৎ হোসেন মুন্না প্রমুখ।

সিলেট : সকালে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে বের হয় আনন্দ শোভাযাত্রা। এতে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় হুইপ সেলিম উদ্দিন, সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, জেলা বিএনপি সভাপতি আবুল কাহের শামীম, সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, মহানগর বিএনপি সভাপতি নাসিম হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম, হবিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র জি কে গউছ প্রমুখ।

খুলনা : সকালে খুলনা প্রেস ক্লাবে কেক কাটা অনুষ্ঠানে আলহাজ মিজানুর রহমান এমপি, নগর বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু, খুলনা চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি কাজী আমিনুল হক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

রংপুর : সিটি প্রেস ক্লাবে কেক কেটে জন্মদিনের উদ্বোধন করেন রংপুর সিটি মেয়র সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু। এ সময় রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ কে এম নুরউন নবী উপস্থিত ছিলেন। পরে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. তুহিন ওয়াদুদ, সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী, রংপুর প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আলী আশরাফ, সিটি প্রেস ক্লাবের সভাপতি শরিফুজ্জামান বুলু প্রমুখ।

বরিশাল : সকালে আলোচনাসভায় বক্তব্য রাখেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এস এম ইমামুল হক, বরিশাল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মু. জিয়াউল হক, প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেন প্রমুখ।

ময়মনসিংহ : দুপুরে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম, ময়মনসিংহ পৌর মেয়র মো. ইকরামুল হক টিটু, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল প্রমুখ।

কুমিল্লা : আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন ভিক্টোরিয়া কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. আবু তাহের, শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক ড. রাজু আহমেদ, সচেতন নাগরিক কমিটি কুমিল্লার সভাপতি আলী আকবর মাসুম, কুমিল্লা নারী উন্নয়ন কেন্দ্রের সভাপতি রাশেদা আখতার প্রমুখ।

যশোর : যশোর প্রেস ক্লাব অডিটোরিয়ামে কেক কাটেন জেলা প্রশাসক ড. হুমায়ুন কবীর। উপস্থিত ছিলেন যশোর প্রেস ক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মনোতোষ বসু, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি সাজেদ রহমান বকুল প্রমুখ।

up-arrow