Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৩ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১২ মার্চ, ২০১৮ ২৩:২৫
বেঁচে যাওয়া যাত্রীর বর্ণনা
প্রতিদিন ডেস্ক
বেঁচে যাওয়া যাত্রীর বর্ণনা
bd-pratidin

কাঠমান্ডু বিমানবন্দরে অবতরণের সময় যখন আগুন ধরে ইউ-এস বাংলা উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়, তখন জানালার কাচ ভেঙে বাইরে বেরিয়ে আসেন বহোরা নামে এক নেপালী যাত্রী। পরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘ঢাকা থেকে উড়োজাহাজটি উড্ডয়নের সময় স্বাভাবিক ছিল। কিন্তু কাঠমান্ডুতে অবতরণের সময় এটি অস্বাভাবিক আচরণ শুরু করে। মুহূর্তের মধ্যে উড়োজাহাজটি ঝাঁকুনি খেতে থাকে এবং এর পরপরই বিকট শব্দ হয়।’ তিনি বলেন, ‘আমার আসনটি জানালার কাছে ছিল এবং আমি জানালার কাচ ভেঙে বাইরে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হই।’ উড়োজাহাজে থাকা এই যাত্রীর বরাত দিয়ে কাঠমান্ডু পোস্টের খবরে বলা হয়েছে, যাত্রীদের মধ্যে ছিলেন ১৬ জন নেপালি। বহোরা নামের এই যাত্রী জানান, তিনিসহ ১৬ জন নেপালের বিভিন্ন ট্রাভেল সংস্থার হয়ে বাংলাদেশে প্রশিক্ষণ নিতে গিয়েছিলেন। বহোরা এখন কাঠমান্ডুর থাপাথালিভিত্তিক নরভিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তিনি আরও বলেন, ‘উড়োজাহাজটি থেকে বেরিয়ে আসার পর আমি আর কিছু মনে করতে পারি না। কেউ একজন আমাকে সিনামঙ্গল হাসপাতালে নিয়ে যায় এবং সেখান থেকে আমার বন্ধুরা নরভিক হাসপাতালে নিয়ে আসেন।’ বহোরা জানান, তার মাথায় ও পায়ে আঘাত লেগেছে। ভাগ্যক্রমে তিনি বেঁচে গেছেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow