Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শনিবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৩১ আগস্ট, ২০১৮ ২৩:২৪
সরকারের ভিতর ভয় ঢুকে গেছে : মওদুদ
নিজস্ব প্রতিবেদক

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, দেশের মধ্যে যারাই গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে চান, তারা আজ ঐক্যবদ্ধ হওয়া শুরু করেছে। একটি জাতীয় ঐক্য হবে। কারণ আমরা গুম দেখতে চাই না। হত্যা, অপহরণ দেখতে চাই না। জাতীয় ঐক্য বেড়ে সামনের দিকে যাচ্ছে। এখন সরকারের ভিতর ভয় ঢুকে গেছে।

গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি ও নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার গঠনই জাতীয় সংকট সমাধানের একমাত্র পথ’ শীর্ষক এ আলোচনা সভার আয়োজন করে বাংলাদেশ ইয়ুথ ফোরাম। সংগঠনের উপদেষ্টা মেহেদী হাসানের সভাপতিত্বে ও সাইদুর রহমানের পরিচালনায় অন্যদের মধ্যে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আহমেদ আজম খান, সহপ্রচার সম্পাদক শামীমুর রহমান শামীম, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, জাসাস সহ-সভাপতি শাহরিন ইসলাম শায়লা, অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন। ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, আমার ভয় হয়, কারণ কামাল  হোসেনরা যখন জাতীয় ঐক্য নিয়ে আলোচনা শুরু করল, সরকার বলল ভালো, ভালো। গণতন্ত্রের জন্য ভালো আলোচনা। কিন্তু এখন ঐক্য বেড়ে সামনের দিকে যাচ্ছে। এখন সরকারের ভিতর ভয় ঢুকে গেছে। সামনের দিনে যখন এই ঐক্য জনমত তৈরি করবে, তখন হয়তো এই সরকারই সবার আগে আঘাত হানার চেষ্টা করবে। কোটা সংস্কার ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরতদের যেভাবে আঘাত করেছে, গ্রেফতার করেছে; সেভাবে আঘাত ও গ্রেফতার করবে। কিন্তু এবার আর তা পারবে না। সাবেক আইনমন্ত্রী বলেন, দেড় লাখ ইভিএম কিনতে ইসির  নেওয়া প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প প্রস্তাবের পেছনেও দুর্নীতি রয়েছে। এই  মেশিন কিনে লুটপাট হবে। এটি ক্রয়ের ব্যাপারে দুর্নীতি জড়িত আছে, কমিশনের একটা ব্যাপার আছে। তাছাড়া ইভিএমে ম্যানুপলেশনের আশঙ্কা থেকেই যায়। যেখানে দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের টাকা হ্যাকারের হাতে চলে যায়, সেখানে যন্ত্রের মাধ্যমে ভোট নিলে তা মানুষের আস্থা বা গ্রহণযোগ্যতা পাবে না। কারা এই মেশিনের নিয়ন্ত্রণ করবে? কার কাছে পাসওয়ার্ড থাকবে? যে নির্বাচন কমিশনের ওপরে আমাদের কোনো আস্থা নেই, সেই কমিশনের হাতে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের নিয়ন্ত্রণ থাকবে। এই ইভিএম চালু করার সিদ্ধান্ত আমরা প্রত্যাখ্যান করছি।

ইভিএম পদ্ধতিতে বিভিন্ন ত্রুটি রয়েছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, এ পদ্ধতি জার্মানিতে বন্ধ করে দিয়েছে জার্মানির সুপ্রিম কোর্ট। ইতালিতে নেই; তারা চেষ্টা করেছিল, কিন্তু প্রত্যাখ্যান করেছে। আয়ারল্যান্ডের মানুষ প্রত্যাখ্যান করেছে। এমনকি ভারতে ৭৩ শতাংশ মানুষ এই ইভিএম চালুর বিরুদ্ধে মতামত দিয়েছে। দুই-একটা প্রদেশে তারা চেষ্টা করেছিল, সেটাও সফল হয়নি।

‘ভোট চুরির জাদুর বাক্স’ : বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনকে দেখছেন ‘ভোট চুরির জাদুর বাক্স’ হিসেবে। গতকাল নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ইভিএম ব্যবহারের একতরফা সিদ্ধান্ত আগামী নির্বাচন জালিয়াতি করারই চূড়ান্ত মাস্টার প্ল্যান।

ক্ষমতাসীনদের উদ্দেশে রিজভী বলেন, এবার জনগণ সরকারের সব মাস্টার প্ল্যান ডাস্টবিনে ফেলে দেবে। ভোট নিয়ে অনাচারের পুনরাবৃত্তি জনগণ রুখে দেবে। এবারে জনগণের কঠিন ঐক্যে সরকারের সব পরিকল্পনা ধূলিসাৎ হয়ে যাবে। এ সময় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, আতাউর রহমান ঢালী, কেন্দ্রীয় নেতা শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, হাবিবুল ইসলাম হাবিব, মীর সরাফত আলী প্রমুখ উপস্থিত উপস্থিত ছিলেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow