Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২২:৫৯
আওয়ামী লীগকে বাদ দিয়ে জাতীয় ঐক্য সম্ভব নয় : কাদের
রফিকুল ইসলাম রনি, সড়ক যাত্রা থেকে

‘জাতীয় ঐক্য’ প্রক্রিয়ার সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আওয়ামী লীগকে বাদ দিয়ে জাতীয় ঐক্য সম্ভব নয়। কারণ আওয়ামী লীগ বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় দল।

গতকাল  বিকালে ফেনীর দোয়েল চত্বরে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় তিনি এ কথা বলেন। দেশের পূর্বাঞ্চলে সড়ক যাত্রার অংশ হিসেবে তিনি এ নির্বাচনী  জনসভায় বক্তব্য রাখেন।  

ওবায়দুল কাদের বলেন, খবর পেলাম রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে ৩০টি দল মিলে জাতীয় ঐক্যের সভা হয়েছে। ঘরের ভিতরে এবং বাইরে মিলে দুই হাজার লোকের সমাবেশ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন, মানুষ থাকলে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান বা মুক্তমঞ্চে তারা জনসভা করুক। কিন্তু তারা করেননি। সাহস পাননি। ফেনীর মতো একটা সভা করার ক্ষমতাও তাদের নেই। যে কারণে তারা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সভা করতে ভয় পান। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ এদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় দল। আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা আইআরআইর জরিপে দেখা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা ৬৬ শতাংশ আর আওয়ামী লীগের ৬৪ শতাংশ। এই জনপ্রিয় দলকে বাদ দিয়ে দেশে কীভাবে জাতীয় ঐক্য সম্ভব? আওয়ামী লীগকে বাদ দিয়ে যে জাতীয় ঐক্য তা বিএনপির জাতীয়তাবাদী ঐক্য। এই জনসভার কথা উল্লেখ করে তিনি দলের কেন্দ্রীয় নেতা আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিম, জেলা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, এক সময় ফেনী ছিল খালেদা জিয়ার শহর। আজকে জনস্রোত প্রমাণ করে ফেনীর জনগণ খালেদা জিয়ার সঙ্গে নেই। উন্নয়নের জন্য শেখ হাসিনার সঙ্গে আছে। দলীয় নেতা-কর্মীদের কেন্দ্রভিত্তিক এবং কেন্দ্র রক্ষার কমিটি গঠনের আহ্বান জানিয়ে কাদের বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় আসতে নানা ষড়যন্ত্র করছে। ফেনীর মানুষ যেন সুষ্ঠুভাবে ভোট দিতে পারে সে জন্য কেন্দ্রভিত্তিক কমিটি গঠন করতে হবে। এর আগে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের সভায় তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় এলে দেশে রক্তের বন্যা বয়ে যাবে। আওয়ামী লীগের কোনো নেতা-কর্মী ঘরে থাকতে পারবে না। আওয়ামী লীগকে বাঁচাতে হবে। প্রথম পথসভা হয় কুমিল্লার ইলিয়টগঞ্জে। দ্বিতীয় পথসভা কুমিল্লা টাউন হল মাঠে। ফেনীতে সভা শেষে চট্টগ্রামে রাতযাপনের উদ্দেশে রওনা দেয় গাড়িবহর। আজ সকালে চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজারের পথে যাত্রা করবেন ওবায়দুল কাদের।  ইলিয়টগঞ্জের সভায় দলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ঘরের ভিতর ঘর, মশারির ভিতর মশারি টানাবেন না। চায়ের দোকানে বসে ঘরের কথা পরকে বলবেন না। আমাদের প্রতিপক্ষ বিএনপি এটা মাথায় রাখতে হবে। তিনি এ সময় বিএনপির আন্দোলনের বিষয়ে বলেন, তারা গত ১০ বছরে ১০ দিনও আন্দোলন করতে পারেনি। এখন আগামী এক মাসে কী আন্দোলন করবে? আন্দোলনের নামে আবারও তারা যদি ২০১৪ সালের মতো বাসে আগুন দেয়, সহিংসতা চালায় তাহলে তাদের জনগণকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিহত করা হবে। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আগামীতে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে কুমিল্লা উত্তর জেলাকে প্রশাসনিক স্বীকৃতি দেওয়া হবে বলে জানান।  আওয়ামী লীগের নেতাদের মধ্যে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল মতিন খসরু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম, মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, আবদুস সবুর, সাইফুর রহমান সোহাগ, এস এম জাকির হোসাইন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। ফেনী থেকে বহরে যোগ দেন আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

কাঁচপুর ব্রিজ থেকে পথে পথে দলীয় নেতা-কর্মীদের ফুলেল শুভেচ্ছা এবং উচ্ছ্বাসে সিক্ত হয় আওয়ামী লীগের গাড়িবহর। আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী এবং তাদের অনুসারীরা রাস্তার দুই পাশে দাঁড়িয়ে বহরকে স্বাগত জানান। ঢাকা থেকে ফেনী পর্যন্ত পুরো পথেই নির্বাচনী আমেজের সৃষ্টি হয়। পথসভা জনসভায় রূপ নেয় কুমিল্লা, চৌদ্দগ্রাম ও ফেনীতে।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল মতিন খসরু বলেন, আওয়ামী লীগ গত ১০ বছরে যে উন্নয়ন করেছে, বিএনপিসহ অন্য কোনো সরকার গত ২৮ বছরে তা করতে পারেনি। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, তথাকথিত জোট করে আওয়ামী লীগকে পরাজিত করা যাবে না। এনামুল হক শামীম বলেন, শেখ হাসিনার উন্নয়নের কারণে চট্টগ্রাম বিভাগে আওয়ামী লীগের ভোট বেড়েছে। পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, আগামীতে আমরা ক্ষমতায় এলে দেশে সব জায়গায় সমান উন্নয়ন হবে। বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় এলে দেশ পিছিয়ে যাবে। আওয়ামী লীগের কেউ ঘরে থাকতে পারবে না।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow