Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বুধবার, ৩১ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৩০ অক্টোবর, ২০১৮ ২৩:২৩
সংলাপ নিয়ে যত কথা
আসন ভাগাভাগি যেন না হয় : সেলিম
নিজস্ব প্রতিবেদক
আসন ভাগাভাগি যেন না হয় : সেলিম

সংকট নিরসনে রাজনৈতিক সংলাপের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম। তবে সংলাপের নামে যেন আসন ভাগাভাগি না হয় সেজন্য সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে সেলিম বলেন, অতীতে সংলাপের নানা ধরন আমরা দেখেছি। সংলাপের নামে ৬০/৪০   আসন ভাগের সমঝোতা আমরা চাই না। সংলাপ হবে জনগণের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠা, সরকারের দমনপীড়ন বন্ধসহ সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টির জন্য। গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে একাদশ সংসদ নির্বাচন ঘিরে চার দফা দাবি আদায়ে বাম গণতান্ত্রিক জোটের রাষ্ট্রপতির কাছে স্মারকলিপি দেওয়ার আগে এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। সাইফুল হকের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন বাসদের কেন্দ্রীয় নেতা বজলুর রশীদ ফিরোজ, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোশরেফা মিশু, বাম মোর্চার নেতা মানস নন্দী। উপস্থিত ছিলেন খালেকুজ্জামান, মো. শাহ আলম, মুবিনুল হায়দার চৌধুরী, মোশাররফ হোসেন নান্নু, হামিদুল হক প্রমুখ। প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, গণতন্ত্রের স্বার্থে জরুরি অধিবেশন ডেকে সংবিধান সংশোধন করে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন দিন। জনগণের ভোটাধিকার ফেরত দিন।

 বাঙালকে হাই কোর্ট দেখাবেন না। তামাশার নির্বাচন করে ক্ষমতায় থাকার দিন শেষ। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের কঠোর সমালোচনা করে তিনি বলেন, বাঘের পিঠে সওয়ার হওয়া সোজা কিন্তু নামা অনেক কঠিন। আমরা সংলাপ পর্যবেক্ষণ করব। তামাশা হলে দাবি আদায়ে আমরা রাজপথে আছি। সাইফুল হক বলেন, সংলাপ যেন লোক দেখানো না হয়। সংলাপের মাধ্যমে হাজার হাজার মামলা প্রত্যাহার, দমনপীড়ন বন্ধ, ইসি পুনর্গঠন ও নিরপেক্ষ সরকারের মাধ্যমে সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি প্রয়োজন। সমাবেশ শেষে মিছিল নিয়ে বঙ্গভবন অভিযাত্রা শুরু করেন তারা। মিছিলটি দৈনিক বাংলা মোড়ে আসার পরই পুলিশ তাদের আটকে দেয়। পরে জোটের সমন্বয়ক ও বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হকের নেতৃত্বে ১০ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি বরাবর স্মারকলিপি পেশ করেন। রাষ্ট্রপতির অনুপস্থিতিতে তাঁর কর্মকর্তারা স্মারকলিপি গ্রহণ করেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow