Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ৩ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২ জুন, ২০১৬ ২২:৩৩
মেকআপ টুলসের যত্ন
মেকআপ টুলসের যত্ন

রূপকাহনে মেক-আপের জুড়ি নেই। তবে কসমেটিকস এবং মেকআপ টুলস ভালো রাখার জন্য দরকার সঠিক যত্ন। নিয়ম মেনে কসমেটিক ব্যবহার না করলে তা যেমন দেখতে খুব একটা ভালো দেখায় না তেমনি সেই প্রসাধনী ব্যবহার করাও বিপজ্জনক।  জেনে নেওয়া যাক কসমেটিকস স্টোর করা কিছু সহজ সূত্র।

 

প্রসাধনী মেকআপের অন্যতম উপকরণ। নিজেকে আকর্ষণীয় লুক দেওয়ার জন্য প্রসাধনীর জুড়ি নেই। তবে এসব মেকআপ টুলস ভালো রাখার জন্য প্রয়োজন সঠিক যত্ন। প্রসাধনী ভালো রাখার জন্য শুকনো বা ময়েশ্চার ফ্রি রাখা খুবই জরুরি। কারণ পাউডার ব্রাশ, কমপ্র্যাক্ট, আইশ্যাডো বা ক্রিম আইশ্যাডো বাতাসের আর্দ্রতায় খুব সহজেই নষ্ট হয়ে যায়। তাই এসব প্রসাধনী সামগ্রী ভালো রাখার জন্য প্রথমেই প্রয়োজন ভালো মেকআপ বক্স। আজকাল বাজারে ভালো মানের মেকআপ বক্স এবং ব্যাগ পাওয়া যায়। এসব স্টোরগুলোতে আইশ্যাডো থেকে শুরু করে আইব্রো টুইজার রাখার জন্য আলাদা আলাদা জায়গা করা থাকে। এ ছাড়াও ব্যাগগুলোতে সহজেই মেকআপ ব্রাশ সযত্নে রাখতে পারবেন। মেকআপের ব্রাশ ও টুলসগুলো একটু ভালো মানের হলে এবং সঠিকভাবে যত্ন নিতে পারলে দীর্ঘস্থায়ীও হয়। ভালো মানের ব্রাশ অনায়াসে চার-পাঁচ বছরও ব্যবহার করা যায়। লিপস্টিক স্টোর করার জন্য রেফ্রিজারেটর সবচেয়ে ভালো। অতিরিক্ত উষ্ণতা লিপস্টিক নষ্ট করে দেয়। তাছাড়া গরমে লিপস্টিক গলে যেতে পারে। লিপ পেনসিল ও কাজল পেনসিল ব্যবহার করার ১০ মিনিট আগে রেফ্রিজারেটরে রেখে দিন। এতে লিপ পেনসিল সহজে ভাঙবে না। লিপ পেনসিল কাটার জন্য ভালো শার্পনার ব্যবহার করুন। লিপস্টিকের গন্ধ পরিবর্তন কিংবা অতিরিক্ত চটচটে হলে তা ব্যবহার করবেন না। আর নেলপলিশ দীর্ঘদিন ব্যবহার করলে তা রোদের সংস্পর্শ থেকে দূরে রাখুন। নেলপলিশ ব্যবহারে যেন বাতাসের আর্দ্রতা না পায়। এতে নেলপলিশ শুকিয়ে যাবে। ব্যবহারের পর নেলপলিশের মুখ ভালো করে বন্ধ করে ফেলুন। শিশির মুখে নেলপলিশ থাকলে রিমুভার দিয়ে ঢাকনা মুছে নিন। অন্যান্য বিউটি প্রোডাক্টের মতো মেকআপ ব্রাশের যত্ন দরকার। খেয়াল রাখুন ব্রাশে যেন আউশ্যাডো কিংবা ব্লাশার লেগে না থাকে। ব্যবহারের পর সাবান দিয়ে ব্রাশ ধুয়ে ফেলুন। এরপর শুকিয়ে স্টোর করুন।

 

প্রয়োজনীয় টিপস :

০. কসমেটিকস কেনার সময় মেয়াদ সম্পর্কে জেনে নিন। মেয়াদোত্তীর্ণ প্রসাধনী ব্যবহার না করাই ভালো। লিপস্টিক, কমপ্যাক্ট দুই বছর ব্যবহার করা যায়।

০. যারা সাজ মেকআপে কম আগ্রহী তারা অনেক সময় আইশ্যাডো কিংবা ফাউন্ডেশন কিনে ফেলে রাখেন এবং অনেক দিন পর পর ব্যবহার করেন। এ অভ্যাস ভালো নয়।

০. যেসব প্রসাধনী রোজ ব্যবহার হয় না সেসব প্রসাধনীর ছোট ফাইল কিনুন। যেমন— আইশ্যাডো টুয়েলভ শেডস না নিয়ে টু বা ফোর শেডসের বক্স কিনুন।

০. নতুন কোনো ফেসক্রিম যেমন— বডি ক্রিম, ফাউন্ডেশন, সানস্ক্রিন ইত্যাদি এক্সপেরিমেন্ট করার আগে কনুইয়ে লাগিয়ে একটু অপেক্ষা করে দেখুন তা আপনার ত্বকে স্যুট করে কিনা।

০. এমন কিছু কসমেটিকস আছে ত্বকে অ্যালার্জি বা র্যাশ বাড়তে পারে। যদি ত্বকে সমস্যা না থাকে তবে এসব প্রোডাক্ট কিনুন।

০. রাতে ঘুমানোর আগে ভালো করে মেকআপ তুলে ফেলুন।  কেননা, মেকআপে লোমকূপের পথ বন্ধ হয়ে থাকে। এতে ত্বকের ক্ষতি হয়।




সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
এই পাতার আরো খবর
up-arrow