Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ৩ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৩ জুন, ২০১৬ ০০:৪৩
ফ্যাশনে হিজাব
ফ্যাশনে হিজাব
মডেল : মেহজাবিন লোপা ও শিফা পোশাক : স্টাইল পার্ক - ছবি : নেওয়াজ রাহুল ও শিশির জাহাঙ্গীর - মেকওভার : ওমেন্স ওয়ার্ল্ড - স্টাইলিং : আনিসুজ্জামান

সামনে সংযমের মাস। সংযমের পোশাকে ফ্যাশন-সচেতন নারীরা হিজাব পরতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। যে কারণে পোশাকের গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ হিসেবে বাড়তি গুরুত্ব রয়েছে হিজাবের। এ ছাড়া হিজাব ফ্যাশন ট্রেন্ড হিসেবেও ছড়িয়ে পড়েছে সব বয়সের নারী ও তরুণীর মাঝে। ফ্যাশনে বৈচিত্র্য আনতেও হিজাবের জুড়ি নেই। হিজাবে নিজের ব্যক্তিত্ব তুলে ধরতে পারেন মুসলিম নারীরা।

 

হিজাব বাছাইয়ে লক্ষ্য রাখুন

বেশ কিছুকাল আগেও নারীরা পর্দা করার উদ্দেশ্যে কেবল হিজাব ব্যবহার করতেন। তখন হিজাব ফ্যাশনের অনুষঙ্গ হিসেবে পরিচিতি পায়নি। গুটি কয়েক নারীই কেবল হিজাবকে ফ্যাশনেবল করে ব্যবহার করতেন। মূলত ধর্মীয় শ্রদ্ধাবোধে নারীরা হিজাবের ব্যবহার করতেন। তবে সময় পাল্টেছে। বর্তমানে হিজাব শুধু গুটিকয়েক নারীর মাঝে সীমাবদ্ধ নয়। এটি একটি ফ্যাশন ট্রেন্ড হিসাবে ছড়িয়ে পড়েছে সব বয়সের নারী ও তরুণীদের মধ্যে। অনেক আধুনিক নারী এখন ফ্যাশনেবল লুক আনতে হিজাবের ব্যবহার করেন। একদিকে ধর্মীয় গাম্ভীর্য এবং অন্যদিকে ত্বক ও চুলের সুরক্ষায় ব্যবহূত হচ্ছে নানা রং ও ডিজাইনের হিজাব— যা ফ্যাশনের অনুষঙ্গ হিসেবেও অনন্য।

মেয়েদের ফ্যাশন ট্রেন্ডে যুক্ত হয়েছে হিজাব ট্রেন্ড। ধর্মীয় অনুভূতির সঙ্গে খাপ খাইয়ে ফ্যাশনের দিকটাও সুন্দরভাবে ফুটে হালের এ ট্রেন্ডে। রমজান মাসের পবিত্রতা রক্ষায় হোক আর ধর্মীয় অনুশাসনের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ থেকেই হোক নারীদের লুক আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য হিজাবের জুড়ি নেই। হিজাব ফ্যাশন নিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এরই মধ্যে নানা গবেষণা হয়েছে। ফ্যাশন এক্সপার্টদের মতে, এ ট্রেন্ডে একজন নারী খুব সুন্দরভাবে নিজের ব্যক্তিত্বকে তুলে ধরতে পারেন। আর অফিসের জন্য তো হিজাব ফ্যাশনটাকে বেশ উপযুক্ত বলে মনে করছেন ফ্যাশন এক্সপার্টরা। বিশ্বজুড়ে মুসলিম নারীরা হিজাবকে সানন্দে গ্রহণ করেছেন। অনেকের কাছে হিজাব     শুধু একটি ফ্যাশনের অনুষঙ্গ। আর তার সঙ্গে সঙ্গে এটা বেশ আরামদায়ক পোশাক হিসেবেও মনে করতে পারি। তাই এটাকে ধর্মীয় পোশাক হিসেবে অনেকে মানতে নারাজ।

 

তবে, হিজাব যে শুধু পর্দাতে নয়, এর বাইরেও হিজাবের ব্যবহার লক্ষ্য করার মতো। বাইরে বের হলে রোদ আর ধুলোবালি থেকে সুরক্ষায়ও হিজাব ব্যবহার করা যায় অনায়সেই। আপনার ত্বক এবং চুলকে রক্ষা করার একটি ভালো উপায় হতে পারে হিজাব ব্যবহার। হিজাব পরতে পারেন শাড়ি, কামিজ, কুর্তা বা অন্য যে কোনো পোশাকের সঙ্গে। তবে হিজাব পরার আগে অবশ্যই লম্বা হাতা বা থ্রি কোয়ার্টার হাতার পোশাক বেছে নিতে হবে। হিজাবের সঙ্গে ছোট হাতার পোশাক একদমই বেমানান। স্কুল-কলেজ, নানা ধরনের সামাজিক অনুষ্ঠানসহ কর্মস্থলেও মেয়েরা অনায়াসে ব্যবহার করতে পারেন হিজাব। পোশাকের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে হিজাব পরলে খুব সুন্দর দেখায়। পরনের পোশাকটি বেশি নকশা করা বা প্রিন্টের হলে একরঙা হিজাবও পরতে পারেন। তবে খেয়াল রাখবেন, পোশাকটি প্রিন্টেড হলে এর সঙ্গে একরঙা হিজাবই বেশি মানাবে।

দীর্ঘদিন ধরে মুসলিম নারীরা হিজাবের ফ্যাব্রিক, রঙ নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করে চলেছেন। সে কথা মনে রেখেই বিভিন্ন ডিজাইনার এনেছেন নতুন নতুন হিজাব। ব্যবহারের ক্ষেত্রে পোশাকের রং ও ধরনকে মাথায় রেখে হিজাব বাছাই করতে হবে। পোশাকের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে বা বিপরীত রঙের হিজাব ব্যবহার করতে পারেন। যদি পোশাকটি বেশি নকশা করা বা প্রিন্টের হয় তবে সে ক্ষেত্রে একরঙা হিজাব নির্বাচন করুন। আবার পোশাকটি হালকা কাজের বা একরঙা হলে তার জন্য বেছে নিন বিপরীত রঙের বা নকশা করা ও পিন্টের হিজাব। হিজাব পরার আগে অবশ্যই পোশাকের হাতের দিক নজর দিন। পোশাকের হাতা যেন অবশ্যই ফুলহাতা বা থ্রি কোয়ার্টারের হাতা হয়। কারণ হিজাবের সঙ্গে ছোট হাতার পোশাক একদমই বেমানান। বাজার ঘুরে কটন, লেস, জর্জেট ও সার্টিনসহ নানা ধরনের কাপড়ের হিজাব দেখা যায়। কাপড়ের মান ও নকশার ওপর ভিত্তি করে এগুলোর দাম নির্ধারণ করা হয়েছে। বেছে নিন নিজের বাজেটের মাঝে। অফিসের জন্য বেছে নিন হালকা রঙের হিজাব। হিজাবের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে ব্রোচ ব্যবহার করুন। এটা আপনার লুকে একটি স্নিগ্ধভাব যুক্ত করবে। খেয়াল রাখবেন আপনার পোশাক যদি একরঙা হয়, তাহলে প্রিন্টেড হিজাব বেছে নিন। অফিসে খুব বেশি চকমকে ব্রোচ ব্যবহার না করাই শ্রেয়। তবে কোনো পার্টিতে নিজের সংগ্রহে থাকা সবচেয়ে জাঁকজমক ব্রোচটি পরতে ভুলবেন না। হিজাব বাঁধার সময় খেয়াল রাখবেন, একের অধিক ব্রোচ যেন ব্যবহার না করা হয়। রঙিন পিন ব্যবহার করলেও সেই রঙ যেন হিজাবের রঙের সঙ্গে বেখাপ্পা না লাগে।

হিজাবকে আরও বেশি আকর্ষণীয় করে তুলতে নানা ধরনের স্টাইল ব্যবহার করতে পারেন। বাজারে হিজাবের সঙ্গে পরার জন্য পাথর ও পুঁতির বিভিন্ন ডিজাইন করা ব্রোচ পাওয়া যায়। চকচকে রঙের ব্রোচগুলোর ব্যবহার আপনাকে আরও বেশি আকর্ষণীয় করে তুলবে। এ ছাড়া বর্তমানে মুসলমান রমণীদের বিয়ের কনের সাজেও স্বগর্বে স্থান করে নিয়েছে হিজাব। জমকালো সাজকে সবার কাছে আরও বেশি গ্রহণযোগ্য করতে হিজাবের তুলনা হয় না।

বাজারে কটন, লেস, জর্জেট ও সার্টিনসহ নানা ধরনের কাপড়ের হিজাব পাওয়া যায়। কাপড়, ডিজাইন ও প্রাপ্তির স্থানভেদে হিজাবের দামে রয়েছে তারতম্য। বসুন্ধরা সিটি শপিংমল এবং ঢাকার অন্য মার্কেটগুলোতে শর্ট হিজাবগুলো ২৫০ টাকা থেকে ৯৫০ টাকায় পাওয়া যাবে। হিজাবের ওড়না পাওয়া যাবে ৪০০ টাকা থেকে ১২০০ টাকায়। মাদানি হিজাবের দাম ৩০০ থেকে ৭৫০ টাকা। আর ৩০০ টাকার মধ্যেই কেনা যাবে খোঁপা হিজাব। পর্দা করার সঙ্গে নিজেকে মার্জিতভাবে উপস্থাপন করতেও হিজাব বেশ উপকারী।

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
এই পাতার আরো খবর
up-arrow