Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ২৪ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৩ জুন, ২০১৬ ২২:৩২
স্টাইলে নতুনত্ব
আশরাফুল ইসলাম রানা
স্টাইলে নতুনত্ব
মডেল : সালমান ও অশিন পোশাক : সেইলর

ফ্যাশন সময়ের সঙ্গে সঙ্গে পরিবর্তন হয়। নিত্যনতুন ট্রেন্ড আসে সমকালীন তরুণ প্রজন্মকে অনুসরণ করেই।

তবে, তরুণ প্রজন্মের ঝোঁক এখন ইউরোপ-আমেরিকার ফ্যাশনের দিকে। তা ছাড়া আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত আর পাকিস্তানের আগ্রাসন তো আছেই। পাশাপাশি আমাদের রুচি বদলে দিয়েছে ইন্টারনেট, ভিনদেশি টিভি চ্যানেলগুলো। এ কারণে তারুণ্যের বেশখানিকটা অংশ উৎসবেও নিজেদের ঐতিহ্যবাহী কাপড়ের ব্যবহার থেকে সরে যাচ্ছে। এখন দেশীয় ফ্যাশন ব্র্যান্ডগুলোতে তাই ট্রেডিশনাল ছাড়াও পাশ্চাত্য পোশাকের চাহিদা সারাবছর জুড়েই। ঈদ বা উৎসব পার্বণে ফ্যাশন- ট্রেন্ড নিয়ে কথা বেশি হয়। আদতে, ফ্যাশন থেকে সৃষ্টি হয় ট্রেন্ড। তবে একে অন্যের সম্পূরক। ফ্যাশন  ট্রেন্ড বলতে এখন রঙ, শিলুয়েট, কাপড়, প্রিন্ট— এই বিষয়গুলো কীভাবে মানুষের আগ্রহ তৈরি করছে, তাই আলোচ্য।

এবার উৎসব প্রসঙ্গ। ঈদ মানেই নতুনত্ব। যা উঠে আসে ডিজাইনারদের সুচিকর্ম আর ফ্যাশন ফোরকাস্টিংয়ে। আর এভাবেই পূর্ণতা পাচ্ছে দেশীয় ব্র্যান্ডশপগুলোর পোশাকী আয়োজন। ফ্যাশন জ্ঞানসমৃদ্ধ আধুনিক তরুণ-তরুণীরা তাই ঈদ পোশাকে বেছে নিচ্ছে স্বাচ্ছন্দ্যময় ডিজাইন আউটফিট। গতানুগতিক গ্রাফিক্স আর্টের পাশাপাশি বর্ণিল রং, গ্রীষ্মের ফুল ও পাতা প্রিন্ট, গ্রাফিক আর্টস, অ্যাজটেক প্রিন্ট চলতি ফ্যাশন ট্রেন্ড।

বাজার ঘুরে দেখা গেল, এবার শুধু নকশাই নয়, পোশাকের কাটছাঁটেও থাকছে ভিন্নতা। প্রজাপতি নকশার প্যাটার্নে তৈরি হয়েছে টিউনিক। কামিজের ঘেরেও থাকছে বৈচিত্র্য। বেশি ঘের দেওয়া কামিজ তো আছেই। পাশাপাশি চলছে লম্বা টপ বা কামিজে অসমান দৈর্ঘ্য অর্থাৎ সামনে বেশি ঘের, পেছনে কম, আবার পেছনে বেশি, সামনে কম ঘেরের নকশার পোশাক। ফতুয়া বা কুর্তায় থাকছে জ্যামিতিক কাট। গরমের কারণে এবার স্লিভলেস বা কম দৈর্ঘ্যের  হাতার পোশাক বেশ চলছে, তাই কিছু পোশাকের হাতায় নতুনত্ব আনতে করা হয়েছে পাইপিঙের ব্যবহার। কামিজ আর টপের লম্বা হাতায় থাকছে লেস। বিভিন্ন কাটের, যেমন— ব্লাউজ স্টাইল, কিমোনো স্টাইল, কাউল নেক, প্লিট সমৃদ্ধ টপসগুলো হালের ফ্যাশনে বেশ জনপ্রিয়। গাউন স্টাইল কামিজও এবারের ঈদ পোশাকে তারুণ্যের চেক লিস্টে থাকবে শীর্ষে। ওয়েস্টার্ন গাউনকে দেশীয় ধাঁচে তৈরি করেছে এবার অনেক ফ্যাশন ব্র্যান্ড।  

সেইলরের বিজনেস ম্যানেজমেন্ট প্রধান রেজাউল কবির জানান, ‘এবারের ঈদে পোশাকে অতি চাকচিক্যময়তা এড়িয়ে প্যাটার্ন এবং ফেব্রিক বৈচিত্র্যময়তায় নজর দেওয়া হয়েছে। ডিজিটাল প্রিন্টের পাঞ্জাবি, অ্যাম্রয়ডারি কুর্তা, কামিজ এবং স্লিমফিট ক্যাজুয়াল আউটফিট এবার সেইলরের প্রোডাক্ট লাইনে ইন। পাশাপাশি স্যান্ডেলের দামেই খুবই ট্রেন্ডি লোফার থাকছে সেইলরের ঈদ কালেকশনে। ’

জিন্স সব সময়ই তরুণীদের পছন্দের পোশাক, নানা রকম ছাপা নকশার প্যান্টও এখন বেশ চলছে। এ ছাড়া পালাজ্জো এবার জনপ্রিয়তায় এবার থাকবে তুঙ্গে। এবার কামিজে গর্জিয়াস কোটি এবং লং শেপ কুর্তা বা কামিজে লুস ফিটিং পালাজ্জোও জনপ্রিয়তা পাবে। একেবারেই ইয়ং ক্রেজি ফ্যাশন হান্টারদের কাছে সিম্পল প্যাটার্নের চাহিদা বেশি। পাশাপাশি চেক বা কন্ট্রাস্ট শার্টের সঙ্গে কেউ কেউ বেছে নেবেন ন্যারো শেপ জিন্স বা টুইল প্যান্ট। এবার প্রিন্টেট ফেব্রিকে বিভিন্ন ওয়াশ এফেক্ট এনে ডিজাইন বৈচিত্র্য ঈদ পোশাকে সংযুক্ত করেছে দেশি ব্র্যান্ডগুলো। পিকে পলো শার্ট ঈদে গর্জিয়াস পোশাকের লিস্টে না থাকলেও অনেক ট্রেন্ডি ক্যাজুয়ালের আউটফিট হবে এটি।

দেশীয় ঢঙে পাশ্চাত্য ফ্যাশন অনুসরণ করছে জনপ্রিয় কিছু রেডি টু ওয়ার ব্র্যান্ড। এমনই কিছু ব্র্যান্ডের মধ্যে তারুণ্যের পছন্দের শীর্ষে আছে ক্যাটস আই, এক্সট্যাসি, আড়ং, তাগা, জেন্টল পার্ক, মেনজ ক্লাব, আমবার লাইফস্টাইল, সেইলর ও ইয়েলো।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
এই পাতার আরো খবর
up-arrow