Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : শুক্রবার, ১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৩০ জুন, ২০১৬ ২২:৫৩
অল্পতেই স্মার্ট
অল্পতেই স্মার্ট
মডেল : ফারহানা রেইন ও আরজে অপু - পোশাক : মন্টে কার্লো - ছবি : নেওয়াজ রাহুল - স্টুডিও : এক্সপোজ - মেকআপ : ওমেন্স ওয়ার্ল্ড

ঈদ উৎসবে ভারী পোশাকের পাশাপাশি অনেকে বেছে নিচ্ছেন টপস বা পলো টি-শার্টের মতো স্বাচ্ছন্দ্যের পোশাক। জিনসের সঙ্গে হুট করে পরে বেরিয়ে যাওয়ার আরাম তো আছেই সঙ্গে গরম আবহাওয়ার কথা ভেবে বিকল্প ভাবনটাও ভেবে রাখা যায়। অল্পতেই স্মার্ট লুক পেতে পারেন হুট করে।

 

মেয়েদের টপস

তরুণীরা রংচঙা টপস বেশ পছন্দ করে। ঈদ উৎসবে টপস হয়ে উঠতে পারে হুটহাট বেরিয়ে যাওয়ার জন্য স্বাচ্ছন্দ্যের পোশাক। সবসময় ভারী পোশাক বা সাজ নিতেও অনেকের আলসেমি ধরে। আর ভারী পোশাকে বেশিক্ষণ স্বাচ্ছন্দ্যে থাকার দায়টাও টিনএজাররা এড়িয়ে চলতে চায়। সেদিক থেকে টপস আর জিনস তো মন্দ নয়। স্বাচ্ছন্দ্য আর স্টাইল দুটোই খুঁজে পাবেন টপসে। বাহারি রং, ডিজাইন আর কাটিংয়ের ভিন্নতাই এক-একটি টপসের বিশেষত্ব। অফিস কিংবা পার্টি সব জায়গাতেই এটি মানানসই। সুতি, জর্জেট, লিলেন, সিল্ক বা হাফসিল্ক যে কোনো কাপড়ের তৈরি টপস পরতে বেশ আরাম। তবে ফিটিংসের ক্ষেত্রে সবসময়ই থাকে নতুনত্ব। আজকাল ঢিলেঢালা টপসের চল বেশ  চোখে পড়ছে। এর প্রধান কারণ হলো কাটিংয়ে ভিন্নতা। লম্বায় ছোট আর পাশে চওড়া হওয়ার কারণে এসব টপস দেখতে বেশ স্টাইলিশ লাগে।

 

টপস অবশ্য সিল্কের কাপড়ের ওপর বেশি ভালো মানায়। তবে আপনি চাইলে স্বাচ্ছন্দ্যে যেকোনো কাপড় দিয়েই বানিয়ে নিতে পারেন। তবে কোমরের জায়গাতে একটু নজর রাখুন। চাইলে ইলাস্টিক লাগিয়ে নিতে পারেন।

এ ধরনের টপস এক রঙা হতে পারে আবার ফ্লোরালও হতে পারে। কোনোটায় আবার থাকে শেডের ছোঁয়া। পার্টিতে পরার জন্য লাল রং বেছে নিতে পারেন। তবে অফিসে হালকা রঙের টপস পরাই ভালো। আর ক্যাজুয়ালি কোথাও গেলে ফ্লোরাল প্রিন্টের টপস বেছে নিতে পারেন।

টপসের সঙ্গে জিন্স বা জেগিংস বেশি ভালো লাগে। তবে আপনি চাইলে পালোজ্জার সঙ্গেও পরতে পারেন। দেখতে মন্দ লাগবে না। আর আজকাল স্কার্টের সঙ্গে ঢিলেঢালা টপসগুলোও মানিয়ে যাচ্ছে বেশ। তৈরি করা টপস কেনার ক্ষেত্রে এর ফিটিংসের দিকে খেয়াল রাখুন। বেশি ঢিলা হলে কেনার পর দর্জির কাছ থেকে একটু ফিটিং করিয়ে নিতে পারেন।

    ঢিলেঢালা টপস বানিয়ে নিতে চাইলে দর্জিকে কাটিংটা ভালোভাবে বুঝিয়ে দিন। আর একটু বেশি করেই কাপড় কিনুন। কারণ এগুলো যত ঢিলা করে বানানো হয় ততই ভালো।

    টপস পরার পর খেয়াল করুন এটি জেগিংসের সঙ্গে ভালো লাগছে না পালোজ্জার সঙ্গে। যেটাতে আপনাকে মানাবে প্যান্টের ক্ষেত্রে সেটিই বাছাই করুন।

এ ধরনের পশ্চিমা পোশাকের সঙ্গে মেকআপটা খুব বেশি জমকালো না করাই ভালো। তবে চোখটা স্মোকি করে একটু এলিগেন্ট লুক আনা যেতেই পারে। এ ক্ষেত্রে কোন অনুষ্ঠানে যাচ্ছেন তার ওপর মেকআপটা অনেকটা নির্ভর করে। টপসের ওপর জড়িয়ে নিতে পারেন রঙিন একটি স্কার্ফ। এতে আরও বেশি স্টাইলিশ লাগবে।

ছেলেদের পলো টি-শার্ট

বৃষ্টি তার ওপর অসহনীয় গরম। ঈদের দিনের আবহাওয়ার উত্থান পতন নিয়ে তাই অগ্রীম প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে ছেলেরা। পাঞ্জাবির আয়োজন ছাড়াও পলো টি-শার্ট ও জিনস রাখছে হাতের কাছে। জিন্সের সঙ্গে টি-শার্ট, শর্ট শার্ট বেশি পছন্দ করলেও বর্তমানে পলো টি-শার্ট জনপ্রিয়। টি-শার্টের নতুন প্যাটার্ন। টি-শার্ট যেমন রাউন্ড নেক তেমনি পলো টি-শার্টের বডি প্যাটার্ন টি-শার্টের মতো হলেও সঙ্গে যুক্ত হয়েছে কলার; যা ফ্যাশন ট্রেন্ডে যোগ করেছে নতুন মাত্রা। পলো টি-শার্টের প্যাটার্ন নতুন বললে ভুল হবে কারণ বেশ কয়েক বছর হয়ে গেছে ফ্যাশন ট্রেন্ডে যোগ হয়েছে এটি। এখন পলো টি-শার্টের প্রতি দুর্বলতা বেড়েছে। দেখতেও ফ্যাশনেবল।   যে কারণে পলো জিন্স কিংবা গ্যাভার্ডিনের সঙ্গে পলো টি-শার্ট ছাড়া অন্য কিছু পড়া হয় না। ঢাকার বিভিন্ন ফ্যাশন আউটলেট ঘুরে দেখা গেছে প্রায় প্রতিটি শো-রুমেই শোভা পাচ্ছে কালারফুল পলো টি-শার্ট। আবহাওয়াকে মাথায় রেখে পলো টি-শার্টের ফেব্রিক নির্ধারণ করা হয়। এই গরমে আরামদায়ক পলো টি-শার্টের ব্যাপক চাহিদা লক্ষ্য করছেন

ব্যবসায়ীরা। যে কারণে অন্যান্য প্রোডাক্টের চেয়েও গুরুত্ব দিচ্ছেন পলো টি-শার্টকে। দামও হাতের নাগালে হওয়াতে চাহিদা বাড়ছে দিন দিন। ডিজাইন এবং  ফেব্রিক ভেদে দাম কিছুটা ভ্যারি করলেও পলো টি-শার্টের দাম সবগুলো প্রায় কাছাকাছি।

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
এই পাতার আরো খবর
up-arrow