Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শুক্রবার, ২২ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২১ জুলাই, ২০১৬ ২১:৪৮
মনোবিদের মুখোমুখি
অধ্যাপক ডা. মোহিত কামাল
মনোরোগ বিশেষজ্ঞ
মনোবিদের মুখোমুখি

‘যেহেতু বাড়িতে তিনজন একসঙ্গে থাকেন তাই সবার মতামতই গুরুত্বপূর্ণ। ননদকে বোঝান, যদি বুঝতে না চায়, তবে আলাদাভাবে থাকার কথা বলুন। ’

সমস্যা

আমার চার বছর হলো বিয়ে হয়েছে। বিয়ের পর থেকে স্বামী ও ননদের সঙ্গে ধানমন্ডিতে একটি ফ্ল্যাটে থাকি। স্বামী, ননদ আর আমি, আমাদের তিনজনের সম্পর্কের ক্যামেস্ট্রি বেশ ভালো। সবাই আলাদাভাবে জব করি। তবে, ইদানীং খেয়াল করছি ননদের মাঝে কিছুটা পরিবর্তন এসেছে। কিছুদিন ধরে ননদ ওর প্রচুর বন্ধুবান্ধব নিয়ে আসে ফ্ল্যাটে। তারা সারা রাত পার্টি করে। ওর কয়েকজন বন্ধুকে আমার ও আমার স্বামীর বিশেষ সুবিধার মনে হচ্ছে না। এ বিষয়ে আমার স্বামীও কিছু বলতে চাইছে না, যদি সে বেয়াদবি করে বসে। তাই এখন আমাদের কী করা উচিত? বললে কি না কি ভাবে, ওর ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে বলছি!

                — ফারহানা মিলি, ধানমন্ডি।

সমাধান

অবশ্যই বলবেন। বাড়িতে যখন তিনজন একসঙ্গে থাকেন তখন তিনজনের মতামতই গুরুত্বপূর্ণ। আপনারা বয়সে বড়। তাই আপনাদের ছোটরা বিপথে চলে যাক, তা অবশ্যই চাইবেন না। আর এখন যদি না বলেন তাহলে হয়তো সামনে আরও বড় ধরনের বেয়াদবির সম্মুখীন হতে পারেন। বেয়াদবির ভয়ে কিংবা ছোটদের কাছ থেকে সম্মানহানির ভয়ে তো চুপ করে বসে থাকা ঠিক হবে না। আপনার ননদ যদি বাকি দুজনের কথা না ভেবে থাকে, শুধু নিজের ফুর্তি-আমোদের কথাই ভাবেন, তাহলে তো তার আলাদা থাকাই শ্রেয়। আপনার ননদকে বুঝিয়ে বলুন বাড়িতে আরও দুজনের কথা ভেবে সংযত থাকা উচিত। বন্ধুবান্ধব, পার্টি উনি করতেই পারেন। তবে সেটা যদি নিয়মিত হতে থাকে তাহলে তো একসঙ্গে বসবাস করাই মুশকিল। আপনার ননদ যদি এতে আপত্তি করেন তাহলে তাকে আলাদাভাবে থাকার কথা বলুন। কারণ, কেউ ছোট নয়, সবাই যার যার বুঝ ভালো বোঝেন। তা ছাড়া পার্টি করার জন্য, আড্ডা দেওয়ার জন্য শহরে অসংখ্য ভালো ভালো স্পট রয়েছে। সেসব জায়গায় না গিয়ে সব সময় বাড়িতেই ব্যবস্থা করতে হবে, এমনটা নয়। এ ক্ষেত্রে প্রয়োজনে আপনাদের বড় কারও সাহায্য নিতে পারেন। আপনি যদি তার বন্ধুদের জন্য রান্না করে থাকেন, তাহলে সেটা আর করবেন না। অভ্যাসটা বদলাতে দিন ওকে। এখন থেকে এ অভ্যাস গড়ে তোলার চেষ্টা করুন।

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
এই পাতার আরো খবর
up-arrow