Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২১:৩৫
ঘরে বসেই চাল-ডাল-তেল-নুন
ঘরে বসেই চাল-ডাল-তেল-নুন

অনলাইন কেনাকাটার জনপ্রিয়তা কেবল বাড়ছেই। তবে এখন আর কেবল পোশাক-আশাক কিংবা শৌখিন পণ্য নয়, প্রতিদিনের নিত্য ব্যবহার্য বাজার-সদাই পর্যন্ত সবকিছুই মেলে অনলাইনে।

এক সময় ছিল যখন অনলাইনে কেনাকাটার কথা ভাবাই যেত না। আবার যখন অনলাইনে কেনাবেচা শুরু হলো তখন মানুষ প্রতারিত হওয়ার ভয়, গুণগত মানের ভয় ইত্যাদির কারণে খুব বেশি পাত্তা দিতে চাইত না। কিন্তু সেদিন পাল্টে গেছে। এখন মানুষ ঘরে বসেই পোশাক-আশাক, পারফিউম, গিফট আইটেম থেকে শুরু করে চাল-ডাল-তেল-নুন সবই কিনছে অনলাইন থেকে। ব্যস্ততার কারণে যারা বাজারে গিয়ে সদাইপাতি করতে পারেন না, তাদের জন্য রয়েছে ডিজিটাল কেনাকাটার মাধ্যম চালডালডটকম। ব্যস্ত নগরীর মানুষদের জীবনযাত্রাকে সহজ করে দিতে চালডালের রয়েছে নিজস্ব হোম ডেলিভারির ব্যবস্থা। অসহ্য যানজটের এই শহরের ঝামেলামুক্ত কেনাকাটার জন্য নির্ভরযোগ্য ও সহজ মাধ্যম হিসেবে চালডাল ইতিমধ্যেই বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। অনলাইন কেনাকাটা সম্পর্কে চালডালডটকমের সিওও জিয়া আশরাফ জানান, ২০১৩ সালে শুরুর দিকে অনলাইন ই-কমার্স (গ্রোসারি শপ) সাইট ‘চালডালডটকম’ চালু হয়। বর্তমানে প্রতিদিন গড়ে ৬০০টি অর্ডার পাচ্ছি এবং ক্রমান্বয়ে তা বাড়ছেই। ক্রেতার চাহিদার কারণে ধীরে ধীরে পণ্যের তালিকাও বাড়ছে। চালডালের ওয়েব সাইটটিকে এমনভাবে সাজানো হয়েছে যাতে যে কেউ খুব সহজেই তার কাঙ্ক্ষিত পণ্য অর্ডার করতে পারেন।

অর্ডারের এক ঘণ্টার মধ্যে কাস্টমারের কাছে পণ্য পৌঁছে দেয় চালডাল। ২০০ টাকার বেশি পণ্য কিনলে সার্ভিস চার্জ ফ্রি হলেও ২০০ টাকার কম পণ্য কিনলে ৪০ টাকা সার্ভিস চার্জ নেওয়া হয়। এ ছাড়া পণ্য সম্পর্কে কোনো অভিযোগ থাকলে সাত দিনের মধ্যে তা পরিবর্তন করে দেওয়া হয়।

ঢাকার পাঁচটি স্থানে চালডালের ওয়্যার হাউস রয়েছে। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটিতে ৩৫০ জনের বেশি কর্মকর্তা-কর্মচারী কাজ করছেন। কোনো কাস্টমার ‘চালডালডটকম’-এর হটলাইন নাম্বারে ফোন করে অভিযোগ করলে দ্রুততার সঙ্গে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। চালডাল ভবিষ্যতে অনলাইন ই-কমার্স সাইটগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের রোল মডেল হিসেবে দাঁড়াতে চায়। বর্তমানে শুধু ঢাকা নিয়ে কাজ করলেও ভবিষ্যতে পুরো বাংলাদেশে কভারেজ করার পরিকল্পনা রয়েছে। এ ছাড়া বিভিন্ন কোম্পানিকে ডেলিভারি সাপোর্ট দেওয়ার চিন্তাও করছে প্রতিষ্ঠানটি। সরকার পণ্য ডেলিভারির জন্য মোটরসাইকেলের সঙ্গে বক্সের অনুমোদন দিলে সেবা প্রদান আরও সহজ হবে।

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
এই পাতার আরো খবর
up-arrow