Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ৭ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৬ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:৩৪
পূজার সাতকাহন
পূজার  সাতকাহন
পোশাক : চরকা মডেল : লাবণী - আলোকচিত্রী : মারুফ মেকওভার : ওমেন্স ওয়ার্ল্ড

তানিয়া তুষ্টি

শরতের সাদা মেঘের ফাঁকে রোদের ঝিলিক যেন দেবী দুর্গার আগমনের সংকেত দিচ্ছে। ঢাক বাজলেই চনমনে হয়ে উঠবে মন।

পূর্ণতা পাবে বছরজুড়ে লালন করা উৎসবের আনন্দ। ষষ্ঠী থেকে দশমী পর্যন্ত দেবী-দর্শন, অঞ্জলি দান, সন্ধ্যা আরতি আর আত্মীয় বাড়ি বেড়ানো নিয়ে পরিকল্পনার তো আর কমতি নেই। ষষ্ঠীতে হালকা সাজ দিয়ে শুরু জমকালো দিয়ে বিদায় দশমী। সকালে  দেবীর অঞ্জলি দেওয়ার সময় থাকবে প্রকৃতি পূজার সজীবতা। ভিন্নতার দেখা মিলবে সন্ধ্যা আরতিতে জমকালো সাজে। তাই পূজার ভিন্ন ভিন্ন দিনে নিজেকে রাঙাতে থাকা চাই সবকিছু।

অঞ্জলি দান

সকাল বেলায় বেইজ মেকআপ করার  ক্ষেত্রে ত্বকের টোনের সঙ্গে মিলিয়ে হালকা ফাউন্ডেশন লাগিয়ে তার ওপর কমপ্যাক্ট পাউডার লাগিয়ে নিন। এবার ভেজা স্পঞ্জ দিয়ে ভালো

 

করে  ব্লেন্ড করে মুখে মেকআপ বসিয়ে নিলেই হলো।

চোখের সাজে অফ হোয়াইট হাই লাইটস, বাদামি ও কালো রঙের কম্বিনেশন অথবা পোশাকের রঙের সঙ্গে মিশিয়ে হালকা রঙের আইশ্যাডো ব্যবহার করলে ভালো লাগবে। পেনসিল আইলাইনার অথবা চাইলে শুধু কাজলের একটা হালকা রেখা টেনে দিন চোখে।   ঠোঁটে হালকা গোলাপি লিপস্টিক অথবা লিপগ্লস লাগাতে পারেন। সঙ্গে হালকা বাদামি রঙের ব্লাশন লাগালে সাজে চলে আসবে পূর্ণতা।

 

পূজার সন্ধ্যায় সাজ

ষষ্ঠীতে দেবীর বোধনে পূজা শুরু হলেও জমে ওঠে সপ্তমী থেকে। এ জন্য সপ্তমী, অষ্টমী ও নবমীর রাতে বাইরে যাওয়ার সময় জমকালো সাজেই ভা

 

লো লাগবে। বেছে নিতে পারেন চওড়া পাড়ের কাতান শাড়ি। সঙ্গে সোনা, রুপা বা ইমিটেশনের ভারী গহনা। হাত ভর্তি চুড়ি।

 

অষ্টমীর সাজ

এ দিন থাকে কুমারী পূজা। বিশেষ করে অষ্টমীতে মেয়েরা বেছে নেন লাল সাদা শাড়ি। সাজেও থাকে লালের আধিক্য। হাত ভর্তি চুড়ি, আলতা লিপস্টিকে মেয়েরা হয়ে ওঠে পুরোদস্তুর রমণী। চুলের বেণিতে ঝুলতে পারে একগোছা তাজা ফুল।

 

 

দশমীর সাজ

শারদীয় দুর্গাপূজার প্রধান আকর্ষণ এই দশমী। এই দিনের সাজ মানে শাড়ি বা থ্রিপিসে লালের ছটা। সেখানে লাল পেড়ে সাদা শাড়ি, একদম লালরঙা শাড়ি বা সাদা জামদানি আর লাল ব্লাউজে হাতের কাজের নকশা থাকলে মন্দ হয় না। সব বয়সের নারীরাই এ রংগুলো বেছে নিতে পারেন। অনেকে আবার প্রতিমার মতো করে নিজেকে সাজাতে পছন্দ করেন।

জরি, পুঁতির নকশাদার জর্জেট শাড়ি হলে সাজের সঙ্গে আবহাওয়াটা মানিয়ে যায়। গোল্ডেন বা সিলভার রঙের শাড়িও মানাবে। তবে যে ধরনের শাড়িই পরুন না কেন মিলিয়ে ব্লাউজ আর ব্যবহূত অর্নামেন্টস অবশ্যই গর্জিয়াস হওয়া চাই— সঙ্গে সাজটাও। শুধু শাড়ি নয়, মাঝে মাঝে থ্রিপিস, লেহেঙ্গা বা আনারকলি স্টাইলের ড্রেসও পরা যেতে পারে। কেউ যদি একান্তই শাড়ি না পরতে চান তাহলে সাদা আর লালের মিশ্রণে কোনো সালোয়ার কামিজও পরে যেতে পারেন। সাদা কুর্তির সঙ্গে লাল পায়জামা আর লাল ওড়নাও বেশ ফ্যাশনেবল লাগবে। সাদা শাড়ির সঙ্গে লাল নেটের ফুলহাতা ব্লাউজ খুব ভালো মানাবে। ছেলেদের সাজে ধুতি-পাঞ্জাবি অথবা পায়জামা-পাঞ্জাবিই সবচেয়ে মানানসই।

সাজের আগে মুখ ক্লিন করে টোনিং করে নিন। ওয়াটার বেইজড ফাউন্ডেশন ভালোভাবে মুখে, গলায় ও ঘাড়ে লাগিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। এর ওপরে কমপ্যাক্ট পাউডার দিন। শাড়ির সঙ্গে মিলিয়ে চোখে গাঢ় রঙের শ্যাডো লাগিয়ে নিন।   চোখের নিচে কাজল আর ওপরের পাতায় আইলাইনার দিয়ে মোটা করে লাইন টেনে নিন। দুবার করে মাশকারা দিলে পাপড়ি একটু মোটা আর ভারী হবে- দেখতেও ভালো লাগবে। ঠোঁট এঁকে গাঢ় রঙের লিপস্টিক লাগিয়ে নিতে পারেন। শাড়ি পরলে মানানসই টিপ দিতে হবে। পূজা  দেখার সময় অনেক হাঁটতে হয়, তাই সাজের সঙ্গে মিলিয়ে আরামদায়ক স্যান্ডেল পরুন। সারা দিনের জন্য বাইরে বের হলে চুলটা এমনভাবে বাঁধুন যাতে বাড়তি ঝামেলা পোহাতে না হয়। আবার দেখতেও  যেন ভালো লাগে। খোঁপা করলে ফুল পরতে পারেন। বিবাহিতা হলে বড় করে কপালে লাল টিপ ও সিঁথিতে সিঁদুর লাগাতে ভালো লাগবে।

দিনের বেলায় বের হওয়ার আগে সান প্রোটেকশান ক্রিম বা লোশন ব্যবহার করতে ভোলা যাবে না। পূজার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত পোশাকের ধরনের সঙ্গে মিলিয়ে হওয়া চাই চুলের সাজ। যেমন- অষ্টমীর অঞ্জলি দেওয়ার সময় শাড়ির সঙ্গে মানাবে ঘাড়ের কাছে আলগা হাতখোঁপা। কিন্তু খোঁপায় যদি সাদা রঙের গাজরার মালা বা বেলিফুলের মালা না থাকে, তাহলে পুরো সাজটাই অসম্পূর্ণ থেকে যাবে। আবার নবমী ও দশমীতে বা রাতের পার্টিতে গর্জিয়াস কাতান শাড়ি যদি পরেন, চুলে হালকা কার্ল বা খোঁপাও করে নিতে পারেন।

পোশাকের সঙ্গে মানানসই ব্যাগ নিন। সারা দিনের জন্য বের হলে নিজের সাজ রক্ষার প্রয়োজনে ব্যাগে রাখতে পারেন ফেস পাউডার, লিপস্টিক, সানক্রিম,  ফেসিয়াল টিস্যু, ছোট আয়না। এক বোতল জল রাখলে দরকার হলে তৃষ্ণা মিটিয়ে তরতাজাও থাকা যাবে।

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
এই পাতার আরো খবর
up-arrow