Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ১৪ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৩ অক্টোবর, ২০১৬ ২১:৫৪
মনোবিদের মুখোমুখি
অধ্যাপক ডা. মোহিত কামাল
মনোরোগ বিশেষজ্ঞ
মনোবিদের মুখোমুখি

বিশ্বাস, দায়িত্ববোধ না থাকলে সংসার টিকে রাখা দায়। আপনি আপনার শ্বশুরবাড়ির লোকজনকে দাম্পত্যের অশান্তির কারণ খুলে বলুন।

 

সমস্যা

আমার বিয়ে হয়েছে তিন বছর। পারিবারিক বিয়ে। আমাদের সংসারে এক বছরের একটি ছেলেও রয়েছে। আমার স্ত্রী একটি প্রাইভেট ভার্সিটিতে পড়াশোনা করে। সবকিছুই ভালো চলছিল। তবে ইদানীং খেয়াল করছি আমার স্ত্রী তার এক ক্লাসমেটের সঙ্গে প্রেম করছে। এ নিয়ে আমার সংসারে বেশ অশান্তি। বর্তমানে আমি মানসিকভাবে বেশ বিপর্যস্ত। মাঝে মাঝে মন চায় আমার স্ত্রীকে হত্যা করে ফেলি। আবার মাঝে মাঝে মনে হয় ওই ছেলেটাকে হত্যা করি। যে আমাদের সুখের সংসারে আগুন দিচ্ছে। আবার মনে হয় নিজেই আত্মহত্যা করি। দিন যত যাচ্ছে আমি ততই অসুস্থ হয়ে পড়ছি। এখন আমার কি মানসিক ডাক্তারের কাছে যাওয়া উচিত? আমার ঘনিষ্ঠজনরা বলছেন, এ অবস্থায় সংসার চলে না, স্ত্রীকে তালাক দিয়ে দাও। আমি কি করব?    

—নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক, মোহাম্মদপুর।

 

সমাধান

বাংলা ভাষায় একটা কথা আছে, সংসার সুখের হয় রমণীর গুণে। আপনার স্ত্রী যা করছে মোটেও ভালো করছে না। মানে বিয়ের পর তো বটেই, এমনকি একটি সন্তান থাকার পরও পরকীয়ায় লিপ্ত হওয়াটা মোটেও সুখকর নয়। এতে অশান্তি দিন দিন বাড়বেই। তিনি ভালো করেই বুঝতে পারছেন যে ঠিক কী কারণে আপনাদের মধ্যে সম্পর্কটা নষ্ট হচ্ছে অথচ ঠিক করার ওনার কোনো তাগিদ নেই। এভাবে চলতে থাকলে আপনি মানসিকভাবে অসুস্থ হবেন এটাই স্বাভাবিক। আপনি আপনার পরিবার এবং আপনার শ্বশুরবাড়ির লোকদের নিয়ে বসুন। বিষয়টি যেহেতু নিজেদের মধ্যে সুরাহা হচ্ছে না তাই তাদের নিয়ে বসাটাই ভালো হবে। এর আগে আপনি আপনার স্ত্রী সম্পর্কে ভালো করে তথ্য নিয়ে নিন। যদি এমনটাই ঘটে থাকে তাহলে তাকে ভালো করে বোঝান। আপনাদের এই সম্পর্কের প্রভাব যেন সন্তানের ওপরও না পড়ে সেদিকটায় নজর দিন।   দুই পরিবারের সিদ্ধান্তকে মেনে নিন।

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
এই পাতার আরো খবর
up-arrow