Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২০ অক্টোবর, ২০১৬ ২১:৩৬
বুঝেশুনে মেকআপ করুন
ফেরদৌস আরা
বুঝেশুনে মেকআপ করুন

সাজতে  কে না ভালোবাসে? কিন্তু চিরকাল একই রকম সাজ তো আর ভালো লাগে না। নতুন মৌসুমে নতুন ট্রেন্ড মেনে দেখুন। আর পুরনো কিছু অভ্যাসকে বিদায় জানান।

 

মেকআপ মানে শুধুই ম্যাট নয়

মেকআপ নিয়ে অনেকেরই দ্বিধাদ্বন্দ্ব থাকে। কারণ, সব সময় একঘেয়েমি মেকআপের গণ্ডিতে কেউ থাকতে চান না। সবাই চান পরিবর্তন। তাই এমন মেকআপ করবেন, যা বোঝাই না যায়— আদিকালের এমন ধারণা বদলে ফেলুন। আমাদের দেশের আবহাওয়ায় ম্যাট মেকআপ মানানসই হলেও মাঝে সাঝে একটু পরিবর্তন আনুন। তাই বলে যে আপনি গ্লসি বা ফ্রেশ লুক মেকআপ করবেন এমনটাও নয়। ম্যাট মেকআপ চেহারার বয়স বাড়িয়ে দেয়। রোদে ফেটে এবং বেশি কৃত্রিম দেখায়। তাই গাঢ় কমপ্যাক্ট আর ফাউন্ডেশন ছেড়ে হালকা কমপ্যাক্ট লাগান। লিকুইড হাইলাইটার ব্যবহার করতে পারেন।

 

কাজল কালো নাকি হালকা শেড

অনেকেই চোখের সাজে খুব বেশি কাজল দেন এতে চোখ টান টান হলেও তা একটু ঘেমে লেপ্টে যাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি থাকে। আবার অনেকেই দিন শেষে চোখের কোণে জমে থাকা কাজল পরিষ্কার না করে ঘুমিয়ে যান। পরদিন কাজলের ছড়াছড়ি। দেখে মনে হয়, চোখের তলায় কালো দাগ বসে গেছে। চেহারায় ক্লান্তির ছাপও ফুটে ওঠে। তাই ঘন-কালো কাজলের শেড না দিয়ে হালকা ট্রাই করুন। চোখের পাতায় মোটা করে আইলাইনার লাগান। রেট্রো স্টাইনে টেনোও পরতে পারেন। নিচের পাতায়ও কোনো মেকআপ করার দরকার নেই। চোখের তলায় কালি থাকলে শুধু কনসিলার লাগিয়ে কমপ্যাক্ট লাগাতে পারেন। অনেক বেশি উজ্জ্বল দেখাবে।

 

মোটা ভ্রু

মুখের সৌন্দর্য ফুটিয়ে তোলে চোখের ভ্রু। তাই ভ্রু জোড়া মুখের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। এর ওপর খুব বেশি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার দরকার আছে কী? হয়তো না। কারণ, সরু ভ্রুয়ের চেয়ে স্বাভাবিক ভ্রু জোড়া অনেক বেশি সুন্দর। তাই পারলারে গিয়ে থ্রেডিং না করিয়ে শুধু একটু টুইজার ব্যবহার করুন। একটু মোটা ভ্রুও এখন ‘ইন’।

 

সব সময় মেকআপ

অনেকেই মনে করেন মেকআপ কেবল বাইরে বেরুনো কিংবা গেট টুগেদার পার্টি বা অনুষ্ঠানের জন্য। আসলে এমনটি মোটেও নয়। সব সময় মেকআপ করাটাও কোনো খারাপ অভ্যাস নয়। বাকিরা যতই চোখ পাকাক, মেকআপ করলে যদি আপনার মন ভালো হয়, তাহলে রোজ করুন। তবে সঙ্গে কিন্তু ত্বকের যত্নও নিতে হবে। এক্সপেরিমেন্ট করতে বাধা নেই। ইন্টারনেট বা ফ্যাশন পত্রিকার নিয়ম অক্ষরে অক্ষরে না মেনে নিজের মতো করে মেকআপও করতে পারেন। কারণ, ভুল থেকেই শিক্ষার শুরু।

 

মেকআপ ব্রাশ পরিষ্কার রাখুন

মেকআপ ব্রাশ পরিষ্কার করা নিয়েই যত আলসেমি। প্রতিদিন মেকআপ করুন আর নাই করুন, সপ্তাহে অন্তত একবার মেকআপ ব্রাশ নিয়মিত পরিষ্কার করুন। ময়লা জমা ব্রাশ দিয়ে মেকআপ করলে আপনার ত্বকেরই ক্ষতি সবচেয়ে বেশি আর ব্রাশের আয়ু তো কমবেই। তাই সপ্তাহে অন্তত একদিন ব্রাশগুলো ভালো করে পরিষ্কার করে রাখুন।

 

পুরনো কসমেটিকস আর নয়

অনেকেই কসমেটিকস জমাতে পছন্দ করেন। কারও ঘরে খোঁজ নিলেই মিলবে দুবছরের পুরনো লিপস্টিক বা আইলাইনার। মনে রাখা উচিত চোখ, ঠোঁট বা মুখ খুবই স্পর্শকাতর। মেয়াদোত্তীর্ণ কসমেটিক্সের কেমিক্যাল বেশ ক্ষতিকারক। তাই পুরনো কসমেটিকস ব্যবহার করলে ক্ষতি নিজেই করবেন।

দামি ব্র্যান্ড বলেই যে অনেক বছর ধরে ব্যবহার করতে পারবেন তা নয়। তাই ছয় মাস অন্তর অন্তর মেকআপ ‘আডডেট’ রাখুন। পুরনোগুলো ফেলে আবার নতুন জিনিস নিয়ে আসুন।

 

মেকআপ তোলা

বাজারে অনেক ধরনের মেকআপ ‘রিমুভাল ওয়াইপস’ পাওয়া যায়। অনেকেই ভাবেন, শুধু সেগুলো ব্যবহার করেলই বোধ হয় মেকআপ পরিষ্কার হয়ে যাবে। কিন্তু মেকআপ পুরোপুরি তুলতে আরেকটু বেশি কসরত প্রয়োজন। বিশেষ করে ওয়াটরগ্রুপ মাশকারা বা আইলাইনারের ক্ষেত্রে। তাই ওয়াইপ ব্যবহার করার পরও ক্লিনজিং মিল্ক দিয়ে আগে ত্বক পরিষ্কার করে নিন। তৈলাক্ত ত্বকে বেবি ওয়েল দিয়ে মুখ পরিষ্কার করার পর ফেশওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নেবেন।

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
এই পাতার আরো খবর
up-arrow