Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৪৩
বসন্তে ফুলের ছোঁয়া
সাদিয়া সারা
বসন্তে ফুলের ছোঁয়া

একই ধরনের সাজ সাজতে একঘেয়ে লাগছে? মনে হচ্ছে সব লুকস তো পুরনো! অথচ পয়লা ফাল্গুন ও ভালোবাসা দিবসে থাকে পার্টিসহ একগুচ্ছ আয়োজন।   কোন লুকে ধরা দেবেন? রইল পরামর্শ।

 

ফ্যাশন ব্যাপারটিই এমন, আজ যা আউট অব ট্রেন্ড, কাল তা-ই ইন। ফলে প্রচলিত মিথকে মিথ্যে করে, নয়া লুকে সাজুন। দেখবেন ওটাই পাড়া-পড়শিদের চোখে ‘হিট’। তবে সব ধরনের পোশাকে ফুলের সাজ মানাবে এমন না, এ জন্য চাই মানানসই সাজ-পোশাক। তাছাড়া পয়লা ফাল্গুন ও ভালোবাসা দিবসে চাই ভিন্ন ফিউশন আর গরজিয়াস লুক।

 

ফাল্গুন মানেই ফুলে ফুলে প্রকৃতি ছেয়ে যাওয়া। সঙ্গে নারীদের বাসন্তী শাড়িতে ফুলের সাজ। বাঙালিয়ানা সাজ আনতে এর চেয়ে ভালো অপশন হতে পারে না। তবে ফুলের গয়না পরতে পোশাকের রঙে ঢঙে চাই বাড়তি সচেতনতা। উজ্জ্বল কালার যেমন ক্যানেরি ইয়োলো, রোজবেরি রেড, পিঙ্ক, লাইল্যাকসের সঙ্গে ফুলের গয়না ভালো মানায়। এতে আপনার আসন্ন বসন্ত ও ভালোবাসা হয়ে উঠবে আরও রঙিন। অনেকেই বলেন, মোটা হলে বাসন্তী সাজে ফুল মানায় না, এটা ভুল ধারণা। বলছিলেন ওমেন্স ওয়ার্ল্ডের পরিচালক ও রূপবিশেষজ্ঞ ফারনাজ আলম। লম্বা সুন্দর চেহারা বা ভারী গড়নেই ফুলের গয়না বেশি মানায়। দেহের গড়ন যাই হোক না কেন। ষোল থেকে পঞ্চাশ, চলতে পারে সব বয়সেই। শুধু পোশাকের ভ্যারিয়েশনটা আসল। শাড়িতে যেমন মাথার ফুলের ব্যান্ড মানায় তেমনি সালোয়ার কামিজেও উঠে আসে বাঙালিয়ানা। জেনে রাখা ভালো, বড় চুলের সাজে খোঁপা বা বেণি দারুণ মানিয়ে যায়। শাড়ি বা সালোয়ার কামিজ যাই পরুন না কেন, চুলে খোঁপা বা বেণি দুটোই ভালো মানায়। এ ক্ষেত্রে হাত খোঁপা করে চুলের দুই পাশে বা পুরোটা জুড়ে গেঁথে নিতে পারেন দেশি ফুলের মালা। মানানসই কাটে মাঝারি বা ছোট চুল ছেড়ে দিলেও ভালো মানায়। উৎসবের দিন সেটাকে আয়রন করে একপাশে রেখে দিতে পারেন। ছোট্ট কোনো ব্যান্ড দিয়েও হাল্কা হাতে একটু অগোছালো করে আঁটকে নিতে পারেন। তবে তাতেও ফুল থাকা চাই। এ ছাড়া মাথায় দিতে পারেন ফুলের তাজ। উৎসবের দিনটি আরও বেশি আকর্ষণীয় করতে ফুলের তাজের তুলনা হয় না।

 

ফ্যাশনসচেতন নারীরা এখন জারবেরা কিংবা অর্কিড লাগাতেই বেশি পছন্দ করে। ইদানীং বেণির সঙ্গে ছোট ফুল গুঁজে দিতে পারেন। পাশাপাশি কৃত্রিম ফুলও চলছে সমান তালে। যেভাবেই ফুলের সাজ সাজুন না কেন ফুলের একটা নিজস্ব ভাষা রয়েছে। প্রিয় মানুষকে সে জন্যই তো আমরা গোলাপ বা অন্য ফুল দিয়ে থাকি।   অনেক না বলা কথাও যে বলে দেয় ফুল।

এই পাতার আরো খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow