Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২১ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, সোমবার, ২১ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২১:৪৯
ওজন কমাতে স্লিমিং ডায়েট
ওজন কমাতে স্লিমিং ডায়েট
ছবি: ইন্টারনেট

অপর্যাপ্ত শারীরিক পরিশ্রম করেও মুটিয়ে যাওয়া আজকাল কমন সমস্যা। নিজেকে ফিট রাখতে অতিরিক্ত ঘাম ঝরাতে রীতিমতো নানা চেষ্টা।

এমন সমস্যার সমাধানে বাংলাদেশে প্রথম এলো স্লিমিং ডায়েট নামে ফুড ক্যাটারিং সার্ভিস।

 

নিয়মিত শারীরিক পরিশ্রমের অভাব অথবা কাজের মধ্যে থেকেও মুটিয়ে যাওয়া আজকাল কমন হয়ে গেছে। দীর্ঘক্ষণ চেয়ারে বসে কাজ করা, অপর্যাপ্ত হাঁটাচলা অথবা লাগামহীন খাওয়ার অভ্যাসও ওজন বাড়ানোর জন্য দায়ী হতে পারে। নিজেকে যখন অতিরিক্ত ওজনে আবিষ্কার করবেন তখন রীতিমতো মাথায় হাত। নিয়ম করে ব্যায়াম করার সময় নেই, আবার খাবারের পরিমাণ কমিয়ে দিলে দুর্বল হয়ে পড়েন। তাহলে এই সমস্যা থেকে রেহাই পাওয়ার উপায় কী?

 

উন্নত বিশ্বের মতো বাংলাদেশে প্রথম এলো ডায়েট ক্যাটারিং সার্ভিস স্লিমিং ডায়েট। রাজধানীর গুলশানে অবস্থিত দেশের অভিজ্ঞ পুষ্টিবিদ ও অভিজ্ঞতাসম্পন্ন দক্ষ শেফ এবং একদল দক্ষ কর্মীর সমন্বয়ে গঠন করা হয়েছে এই প্রতিষ্ঠান। দুই বছর আগে গড়ে ওঠা এই প্রতিষ্ঠানে প্রধান ভূমিকায় সেবা দিচ্ছেন ডায়েটেশিয়ান সৈয়দা রফিকা লাকি, এমফিল, নিউট্রিশন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। অতিরিক্ত ওজন কমানোর জন্য দেশীয় খাবার হোম ডেলিভারির মাধ্যমে ৩০ দিনে ৬ কেজি ওজন কমানোর নিশ্চয়তা দিচ্ছে স্লিমিং ডায়েট। এরই মধ্যে ৩০০ জন গ্রাহককে নিশ্চয়তার সঙ্গে সেবা দিয়েছে স্লিমিং ডায়েট। কোনো ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াহীন বিশেষ এই খাবারে রয়েছে ৪০ রকমেরও বেশি পুষ্টি উপাদান। একজন মানুষকে সুস্থ সবল রাখতে এসব উপাদান খুবই দরকার। প্রতিদিন একটি বা এক রকমের খাবার খাওয়ার অভ্যাস সব রকমের পুষ্টির চাহিদা মেটাতে পারে না। তাই নানা রকমের খাবার আমাদের দৈনন্দিন খাদ্য তালিকায় রেখে প্রয়োজনীয় পুষ্টির চাহিদা মেটাতে হয়। পুষ্টির সামঞ্জস্য করাকেই বলে ব্যালান্সড ডায়েট। এই ব্যালান্সড ডায়েটে অনেক রকমের খাবার থাকে বলে খাওয়ায় একঘেয়েমি থাকে না। শরীর সুস্থ ও সবল রাখে। তাই একদিন শর্করা হিসেবে ভাত খেলে অন্যদিন খেতে হবে রুটি বা নুডলস। কোনো সবজিতে ভিটামিন-সি বেশি থাকতে পারে, কোনোটিতে আবার আয়রন বেশি থাকতে পারে। তাই বিভিন্ন রকমের সবজি থেকে একেক বেলা একেক রকম খেতে হবে। ফলের ক্ষেত্রে একবেলা কমলা খেলে আরেক বেলা তরমুজ বা কলা খান। আরেক দিন এক বেলা আম খেলে, অন্য বেলা খাবেন আপেল। স্লিমিং ডায়েট আপনার শরীরের যত্নে প্রতিবেলার প্রয়োজনীয় খাবারের অনুপাত ঠিক রাখে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে। এটি শরীরে প্রয়োজনের অতিরিক্ত ফ্যাট ভেঙে  হঠাৎ বুড়িয়ে যাওয়া রোধ করে। চামড়া ঝুলে পড়া, চুল পড়ে যাওয়া ধরনের কোনো পরিবর্তন পরিলক্ষিত হয় না। উপরন্তু আপনার সৌন্দর্য ও ত্বককে সজীব রাখে, শরীরিক দুর্বলতাও অনুভূত হয় না। এ ছাড়াও ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, অধিক ইউরিক অ্যাসিড, কলেস্টেরল, আর্থ্রাইটিস, শিশু স্বাস্থ্য ও গর্ভকালীন রোগীর জন্য বিশেষভাবে ডায়েট ফুড ক্যাটারিং করা হয়। স্লিমিং ডায়েট খাবারের পরিবর্তে কোনো প্রকার খাবার দরকার হয় না। স্লিমিং ডায়েট প্রতিদিন ক্লায়েন্টের বাসা ও অফিসে ৬টি মিল ২টি ডেলিভারির মাধ্যমে রাজধানীর মধ্যে সরবরাহ করে থাকে। খাবার খাওয়ার ফলাফল জরিপে প্রতি ১০ দিন পর পর পুষ্টিবিদের সঙ্গে সাক্ষাতের সুযোগ থাকে। ক্লায়েন্টদের স্বাস্থ্য রক্ষায় ও সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে স্লিমিং ডায়েটের ভূমিকা অনন্য। বিস্তারিত জানতে যোগাযোগ করতে পারেন— স্লিমিং ডায়েট, হাউস # ১৬, রোড # ১০১, গুলশান- ২, ঢাকা ১২১২। এ ছাড়াও আপনি ফোনে যোগাযোগ করতে পারেন। ফোন— ০২-৮৮৮১৬৮৬, ০১৯৯৬৮০৪৭২২, ০১৬৮৬-৭৮৭৬৬৬।

এই পাতার আরো খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow