Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ৩ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ২ মার্চ, ২০১৭ ২১:৩৭
দুধে রূপচর্চা
নূরজাহান জেবিন
দুধে রূপচর্চা
ছবি : ফ্রাইডে

প্রাচীনকালে রাজকীয় রূপচর্চার অন্যতম অনুষঙ্গ ছিল দুধ। রানী ক্লিওপেট্রার রূপের গোপন রহস্যের তালিকা ঘাঁটলে প্রথমেই বেরিয়ে আসবে দুধ দিয়ে রূপচর্চার কথা।

এবারের আয়োজনে পাঠকের জন্য রইল রূপ রহস্যে দুধের সাতকাহন।

 

শ্যাওলা সবুজ রঙের পাথরে তৈরি সুন্দর ঝকঝকে বাথটাবে সারি সারি মোমবাতি। তার মাঝে টলটলে দুধ আর গোলাপের পাপড়ি, উফস! যেন রাজকীয় আমেজ। মিসরের রানী ক্লিওপেট্রার রূপ যুগে যুগে চর্চার বিষয়। রানীর রূপকাহনের গোপন রহস্যে অন্তরালে নাকি ছিল দুধ দিয়ে রূপচর্চার রহস্য। সৌন্দর্য সহজাত হলেও সংসার, অফিস সামলে রানীর মতো তো প্রতিদিন দুধে গোসল করা সম্ভব নয়, কিন্তু রূপ রুটিনে প্রাকৃতিক দুধকে সামিল করা যেতেই পারে। যেকোনো প্রাকৃতিক উপাদানের মতো রূপচর্চায় দুধের ভূমিকা অস্বীকার করার উপায় নেই। বাজারের ক্যামিকেলযুক্ত লোশন, শ্যাম্পু, কন্ডিশনারের চেয়ে ঘরোয়া প্রাকৃতিক টোটকা অনেক ভালো। তাই তো ঘরোয়া টোটকার এসব প্রাকৃতিক ফেসপ্যাক কিংবা মাস্কে তাকালেই মিলবে দুধের সর্বজনীন উপস্থিতি। মোহনীয় ত্বক রইল দুধ দিয়ে রূপচর্চার কিছু কলা-কৌশল।

 

দুুধ হচ্ছে প্রাকৃতিক ক্লিনজার। একটি বাটিতে অল্প দুধ নিয়ে তাতে সুতি কাপড় ভিজিয়ে মুখটা পরিষ্কার করে দেখুন কাপড়টা কালচে হয়ে গেছে, এবার গরম পানিতে সুতি কাপড় ভিজিয়ে মুখটা আরেকটু হালকা চেপে মুছে দেখুন মুখটা কেমন ফ্রেশ ও উজ্জ্বল দেখাচ্ছে। অনেক সময় মুখের ত্বকে সাদা সাদা খসখসে ভাব হয়। এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে দুধ বেশ ভালো কাজ করে। কারণ দুধে রয়েছে প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার।

যা ত্বকের খসখসে ভাব কমিয়ে ত্বককে তুলতুলে করে তোলে। ত্বকের খসখসে ভাব কমাতে দুধ ব্যবহার করতে পারেন। ব্লাক হেডস দূর করতেও দুধ উপকারী। অনেক সময় ত্বকে লালচে দাগ দেখা দেয় পরে সেটা কালো হয়ে যায়। সে সমস্যার মুক্তি দেবে দুধ। শুধু ত্বক নয়, চুলের যত্নেও দুধ বেশ উপকারী।

 

►  ৩ টেবিল চামচ দুধ, ১ চা চামচ, মধু, ১ চা চামচ লেবুর রস, ১ চা চামচ, কর্নফ্লাওয়ার একসঙ্গে ভালো করে মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে নিন। ২০ মিনিট পর শুকিয়ে গেলে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই ফেসমাস্ক নিমিষেই ত্বককে উজ্জ্বল করে তোলে।

► ২ টেবিল চামচ দুধ, পরিমাণ মতো পাকা কলা, ১ টেবিল চামচ, গ্লিসারিন, একটা ডিমের সাদা অংশ মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করে নিন। ফেস মাস্কটা সামান্য পরিমাণে নিয়ে মুখে ও গলায় লাগিয়ে নিতে ভুলবেন না। ১৫ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে তিনদিন এই মাস্ক ব্যবহারে ত্বক মসৃণ হয়ে উঠবে।

► এক মুঠো বাদাম সারা রাত পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। পরদিন সকালে ভালো করে বেটে সঙ্গে আধা কাপ বেসন, পরিমাণ মতো দুধ মিশিয়ে ভালো করে ঘন পেস্ট তৈরি করে মুখে লাগিয়ে নিন। সঙ্গে শসা গোল করে কেটে চোখের রেখে দিন। এই প্যাক ত্বকের সানবার্ন দূর করে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়িয়ে তুলবে।

 

► বয়সের দাগ কিংবা বলিরেখা দূর করতে দুধের সরের সঙ্গে হলুদ গুঁড়া মিশিয়ে মুখে ও গলায় লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন ধীরে ধীরে ত্বকের বলিরেখা ও ত্বকে বয়সের ছাপ অনেকটাই কমে আসবে।

►  দুধের সরের সঙ্গে কাঁচা হলুদ বাটা, বেসন আর চালের গুঁড়া মিশিয়ে ঘরোয়া স্ক্রাবার তৈরি করে ফেলতে পারেন। এ ছাড়া দুধের সঙ্গে ওটমিল কিংবা শুকিয়ে গুঁড়া করা কমলার খোসাও স্ক্রাব হিসেবে দারুণ কার্যকরী। স্ক্রাবটি সপ্তাহে অন্তত তিন দিন ব্যবহার করুন। শুকিয়ে গেলে হাত দিয়ে হালকা ঘষে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ত্বক হবে নরম ও কোমল।

►  দুধের সঙ্গে গ্রিন টি মিশিয়ে মুখে কটনবার দিয়ে লাগান। এটি বলিরেখা দূর করতে বেশ কার্যকরী।

► আধাকাপ ঠাণ্ডা দুধের সঙ্গে ৫ ফোঁটা ভেজিটেবল অয়েল, অলিভ অয়েল বা তিলের তেল বেছে নিন। একটা পরিষ্কার বোতলে ঢেলে ভালো করে ঝাঁকিয়ে ক্লিনজার হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। এটি স্বাভাবিক ত্বকের জন্য উপকারী।

► সারাদিন পর বাড়ি ফিরে প্যাক বানানোর সময় কোথায়? একটা তুলার বল দুধে ডুবিয়ে মুখ মুছে নিন। এটি ত্বকের ক্লিনজার হিসেবে চমৎকার কাজ করবে।

এই পাতার আরো খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow