Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ১০ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৯ মার্চ, ২০১৭ ২১:৫৫
স্টাইলিশ ক্যাজুয়াল সামার
স্টাইলিশ ক্যাজুয়াল সামার
♦ মডেল : তনয়া ও উর্বশী ♦ পোশাক : লা রিভ

স্টাইলিশ লুকে নিজেকে উপস্থাপন করা কার না পছন্দ। তবে তার সঙ্গে স্বস্তি থাকাও জরুরি।

এই দুইয়ের মিশেল ঘটাতে ক্যাজুয়াল সামার দারুণ উপযোগী। এখানেও রয়েছে রুচিভেদে পছন্দের ভিন্নতা। বিস্তারিত লিখেছেন— তানিয়া জামান

 

শীতের জড়তা কাটিয়ে প্রকৃতিতে আসে বসন্ত। তখন প্রতিটি প্রাণ পায় নব আনন্দের ছোঁয়া। কিন্তু দিন গড়ানোর সঙ্গে হাওয়ায় বাড়ে তপ্ততা। তখন স্বস্তি ধরে রাখতে প্রয়োজন আরামদায়ক পোশাক। আর তাই এ সময়ে পরিধেয় পোশাকটি হতে হবে উপযুক্ত ও ফ্যাশনেবল।

গরমে আরামদায়ক কাপড় আর ঢিলেঢালা কাটের পোশাকই উত্তম। কাপড়ের রং হতে হবে হালকা।

যারা নিজেকে একটু ট্রেন্ডি লুকে উপস্থাপন করতে পছন্দ করেন তাদের জন্য ফিটিং টিউনিক টপস, স্টাইলিশ কুর্তি হতে পারে উপযুক্ত। এ ছাড়াও তরুণীদের কাছে প্রিয় হয়ে ওঠে ক্যাজুয়াল কুর্তি, টপস কিংবা ফতুয়া। এ তালিকায় থাকতে পারে মোলায়েম কাপড়ে তৈরি সালোয়ার-কামিজও। তা ছাড়া মানুষের চাহিদা ও সুবিধার কারণেই দেশে ওয়েস্টার্ন পোশাক তার জায়গা করে নিয়েছে। তাই আপনার জন্য স্টাইলিশ ক্যাজুয়াল সামার কোনটি হতে পারে দেখে নিতে পারেন।

 

টি-শার্ট

গরমের দিনে টি-শার্টের চেয়ে আরামদায়ক পোশাক খুঁজে পাওয়া মুশকিল। তাই চাইলেই টি-শার্ট পরে স্বাচ্ছন্দ্যে চলাফেরা করতে পারেন। দেশে এখন অনেক নামিদামি ব্র্যান্ডের দোকানগুলোতে মেয়েদের টি-শার্ট পাওয়া যায়। যেগুলোতে বিভিন্ন ডিজাইন পোস্টার প্রিন্ট, ট্যাগ অথবা দৃশ্য আঁকা থাকে। যা দেখতেও ভালো লাগে।

 

কুর্তি

বাজারে সুতি কাপড়ের কুর্তি এখন সব হাউসেই পাওয়া যায়। এগুলোর কাটে থাকে ভিন্নতা। একদিকে যেমন দেশীয় ঐতিহ্য প্রকাশ করে তেমনি অনেক ফ্যাশনেবল। সুতি, ভয়েল, সাটিন ভয়েলের এসব কুর্তি বিভিন্ন রং ও ডিজাইনের হয়। কুর্তিগুলো ঘরে-বাইরে দুই জায়গাতেই বেশ মানানসই।

 

টপস

প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের মিশেলে তৈরি মেয়েদের টপস। এগুলোর লেন্থ কখনো খাটো বা কখনো হয় লম্বা। আর বডিফিটিং বা লুজ ফিটিংসের থ্রিকোয়ার্টার এবং শর্ট স্লিভের হয়ে থাকে। টপসগুলো পরতে বেশ আরামদায়ক আবার মানিয়েও যায় সব পরিবেশে।

 

ফতুয়া

প্রতিদিন কাজের জন্য ঘর থেকে বের হতে প্রয়োজন আরামদায়ক পোশাক। এজন্য অনেক মেয়েই বেছে নিচ্ছেন ফতুয়া। হালকা কাজ, আরামদায়ক কাপড় আর দামও হাতের নাগালে থাকার কারণে ফ্যাশন সচেতন মেয়েদের দৈনন্দিন পোশাকের তালিকায় স্থান করে নিয়েছে এই পোশাক। যেকোনো প্যান্টের সঙ্গে ফতুয়াটি পরা যায়। তাই ম্যাচিংয়ের ঝামেলাও পোহাতে হয় না।

স্লিভলেস কামিজ

পোশাক বাছাইয়ে মেয়েদের কাছে প্রিয় হয়ে উঠছে স্লিভলেস কামিজ। পোশাকটি গরমে যেমন আরামের তেমনি হাল ফ্যাশনেও ট্রেন্ডি লুক দেয়। ফ্যাশন সচেতন অনেকেই এ সময়ে স্বস্তি আর স্টাইল বিবেচনায় এ ধরনের পোশাককেই বেছে নেন। শিশু থেকে শুরু করে সব বয়সী নারী এটি পরতে পারেন।

 

সালোয়ার-কামিজ

গরমের এই সময়ে সুতি প্রিন্টেড বা বাটিকের হালকা কাজের থ্রিপিসগুলো খুবই আরামদায়ক। হালকা রঙের এসব থ্রিপিস যেমন গরম ধরে না। এগুলো দেখতেও ভালো লাগবে, পরেও আরাম পাবে।

 

ম্যাক্সি

দিনের বেলায় হালকা রং এবং রাতে গাঢ় রঙের ম্যাক্সি বা লং ড্রেস পরা যেতে পারে। বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসে নানা প্যাটার্নের ম্যাক্সি রয়েছে। টাইডাই, শিবোরি, প্যাচওয়ার্ক ও মার্বেল ডাই করা হয়েছে এসব ম্যাক্সিতে।

 

স্লিভলেস ব্লাউজ

অনুষ্ঠানে পরার জন্য শাড়ির সঙ্গে অনেকেই এখন বেছে নিচ্ছেন স্লিভলেস ব্লাউজ। শাড়ির সঙ্গে মানানসই ভিন্ন রঙের স্লিভলেস ব্লাউজ দেখতে দারুণ ফ্যাশনেবল। গরমের সময় কাটিং যেমনই হোক হাতাটা স্লিভলেস হওয়াই ভালো। গরমে আরামদায়ক, আবার ফ্যাশনেবলও।

 

কোথায় পাবেন

প্রায় সব ফ্যাশন হাউসে নানা ডিজাইনের ক্যাজুয়াল সামার পাওয়া যায়। ওয়েস্টার্ন আউটফিটের হাউস যেমন ক্যাটস আই, এক্সটাসি, ইয়েলো, লা রিভে পাবেন পছন্দের পোশাক। দেশীয় ফ্যাশন হাউস আড়ং, নগরদোলা, অঞ্জন’স, জেন্টল পার্কে খুঁজে পাবেন আপনার পছন্দের পোশাকটি। এ ছাড়া বসুন্ধরা শপিং মল, যমুনা ফিউচার পার্ক, মৌচাক মার্কেট, চাঁদনি চক, গাউছিয়া ও নিউমার্কেটে পাওয়া যাবে এসব পোশাক।

চাইলে ভালো মানের গজ কাপড় কিনে বানিয়ে নিতে পারেন মনেরমতো পোশাকটি।

এই পাতার আরো খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow