Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শুক্রবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২২:০৭
পিঠের ব্যথা কমাতে যোগব্যায়াম
ভুল ব্যায়াম, অতিরিক্ত ধূমপান বা মদপানের মতো অভ্যাসের কারণে পিঠে ব্যথা দেখা দিচ্ছে অনেক অল্প বয়সী তরুণ-তরুণীরও...
ফ্রাইডে ডেস্ক
পিঠের ব্যথা কমাতে যোগব্যায়াম
ছবি : ইন্টারনেট
bd-pratidin

পিঠ ব্যথায় আজকাল অনেকেই কাবু হচ্ছেন। দীর্ঘক্ষণ বসে কিংবা দাঁড়িয়ে যাদের কাজ করতে হয় তাদের মধ্যে এ সমস্যার প্রবণতাটা বেশি দেখা যাচ্ছে। বাড়তি সহযোগ করেছে ভুল ব্যায়াম, অতিরিক্ত ধূমপান ও মদপান। অনেক অল্প বয়সী তরুণ-তরুণীও আক্রান্ত হচ্ছে এমন সমস্যায়। এর থেকে মুক্তি পাওয়ার সহজ পন্থা হলো ঠিকঠাক শরীরচর্চা।

 

কেন হয়?

পিঠে ব্যথার সমস্যা বিভিন্ন কারণে হতে পারে। ভুল পন্থায় শোয়া, দীর্ঘক্ষণ বসে কিংবা দাঁড়িয়ে কাজ করা। পূর্ব অভিজ্ঞতা ছাড়াই জিমে গিয়ে ওজন তোলার কারণে পিঠের ওপর চাপ পড়তে পারে। এ ছাড়া দীর্ঘক্ষণ মোবাইলে কথা বলার সময় মোবাইল কাঁধের সাহায্যে ধরে রাখেন। এমন অভ্যাসের কারণে দ্রুত ঘাড়ে ব্যথার পাশাপাশি পিঠেও ব্যথা হতে পারে। এ ছাড়া ঘাড় ঝুঁকিয়ে কাজ করতে হয় এমন সব পেশার মানুষেরও পিঠ ব্যথা দেখা দেয়।  আবার অনেক সময় ভারী কিছু তুলতে গেলেও পিঠে মারাত্মক আঘাত লাগতে পারে। কেননা এতে পিঠে প্রচ- চাপ পড়ে। এমনকি ঘাড়ের ঝাঁকুনি হয় অর্থাৎ নাচানাচি করা, মোটরসাইকেল বা সাইকেল চালানো মানুষেরও পিঠে ব্যথা হয়।

 

সমস্যার সমাধান

একটু সতর্ক থাকলেই পিঠে ব্যথা হওয়ার মতো সমস্যা আর থাকবে না। ঘুমানোর আগে শোয়ার বিষয়ে সতর্ক হোন। দীর্ঘ সময় কম্পিউটারে কাজ করলে খেয়াল রাখুন যেন কম্পিউটার মনিটর আপনার আই লেভেলের নিচে থাকে। এতে কাঁধের মাসলে চাপ কম পড়বে। পাশাপাশি ধূমপান ও মদপান থেকে বিরত থাকুন। আমাদের অনেকেরই অজানা যে, সিগারেটের নিকোটিন হাড় ক্ষয়ের অন্যতম কারণ। আবার অতিরিক্ত মদপান রক্তনালির মধ্য দিয়ে  রক্তের স্বাভাবিক চলায় বাধা দেয়। এর থেকে ডিঙ্ক ডিজেনারেশন দেখা দিতে পারে। নিয়মিত ব্যায়াম করলে পিঠের ব্যথা নিয়ন্ত্রণ করা যায়। পাশাপাশ পেটের পেশি, হিপ ও বাট মাসল শক্তিশালী করার দিকেও জোর দিতে হবে। মনে রাখবেন, পেটের মাসল বসা, দাঁড়ানো, শোয়া, হাঁটা ও আপনার ঘুমানোর সময় সাপোর্ট দেয়। হিপ ও বাট মাসল সঠিক অবস্থানে রাখতে সাহায্য করে। তবে পিঠের ব্যায়াম করার সময় শুরুটা করুন ধীরে ধীরে। তাড়াহুড়া একদমই নয়। এমন কোনো ব্যায়াম করবেন না যাতে পিঠের শিরদাঁড়া ও পেশিতে আঘাত লাগে। আঘাত লাগলে উপকারের চেয়ে অপকারটাই বেশি হতে পারে।

এই পাতার আরো খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow