Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শুক্রবার, ১২ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১১ অক্টোবর, ২০১৮ ২১:৪৭
রঙিন চুলের ঝলক
রঙিন চুলের ঝলক
♦ মডেল : মেঘা শ্রুতি ♦ ছবি : সাকিন ♦ গ্রন্থনা : নূরজাহান জেবিন

নারীর সৌন্দর্যের প্রতীক চুল। আর সেই চুলকে ভিন্নরূপে প্রকাশে আদিকাল থেকেই চুল রঙিন করার প্রচলন ছিল। বর্তমানেও কালো ঝলমলে চুলের স্থান দখল করে নিয়েছে রঙিন চুল। আর তা নিয়েই আজকের আয়োজন।

 

নিজেকে একটু ভিন্নভাবে উপস্থাপন করতে কে না চায়? যদিও ঝলমলে কালো চুল নারীর সৌন্দর্যের প্রতীক। কিন্তু বর্তমানে এই কালো চুলকে ভিন্ন রূপ দিয়েছে রংবাহারি রঙিন চুল। বাদামি বা সাতরঙে রংধনু যাই হোক, ফ্যাশন এক্সপেরিমেন্টে পিছিয়ে নেই এখনকার ষোলো থেকে ছিষট্টির রমণীরা।

 

সেকেলে রঙিন চুলের ভাবনা

আদিকালে নারীর সৌন্দর্যে কালো চুলই ইতিকথা ছিল না। সেকালে চুল রঙিন করতে প্রাকৃতিক উপাদানই ছিল ভরসা। তখনকার সময় নারীদের চুল রং করতে মেহেদি, হলুদ, আমলকী ব্যবহার করা হতো। ১৯ শতকের গোড়ার দিকে হেয়ার কালারের প্রচলন শুরু করেছিলেন লরিয়েল কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা ইউজিন স্কিউলার। তিনি ‘সিনথেটিক হেয়ার ডাই’ নামে চুলের রং তৈরি করেন। আর এই হেয়ার ডাই আজকের দিনের হেয়ার কালার হিসেবে ব্যাপক পরিচিতি পায়।

 

রঙে বাঁধা ঝলমলে চুল

নারী সৌন্দর্যে এখন আর কালো চুলে আবদ্ধ নেই। ঝলমলে চুলকে রঙে রঙিন করে তুলতে নারীরা এখন মুখিয়ে থাকে। আর পারলারের এক্সপার্টরাও বাতলে দেন রঙিন চুলের টোটকা। কিন্তু চাইলেই তো আর যে কোনো রং চুলে আনা সম্ভব নয়। রঙিন চুল নিয়ে ওমেন্স ওয়ার্ল্ডের পরিচালক ও রূপ বিশেষজ্ঞ ফারনাজ আলম বলেন, ‘আজকাল চুল রঙিন করা বেশ জনপ্রিয়। কিন্তু নারী সৌদর্যে চুলকে শুধু রঙিন করলেই হবে না। এক্ষেত্রে নিয়ম মেনে সঠিক রংটি চুলে প্রয়োগ করা উচিত। আর সঠিক রং বাছাইয়ের ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনার গায়ের রং বিবেচনায় রাখা উচিত।’ বর্তমানে রমণীদের নানা রঙে চুল রাঙাতে দেখা যায়। নানা রঙের ভিড়ে বাদামি, ব্লন্ড কিংবা সোনালি, বারগ্যান্ডি, স্ট্রবেরি ব্লন্ড, জেট ব্ল্যাক কিংবা চেরি লাল সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। একটু আধুনিক লুক আনতে চাইলে বেগুনি, নীলচে সবুজ, ব্র“নেট, ডার্ক অবার্ন, চেস্টনাট অথবা বিভিন্ন শেড যুক্ত রং ট্রাই করতে পারেন। আজকাল বাজারে হেয়ার কালারে একই রঙের বিভিন্ন শেডও পাওয়া যায়।

 

ঘরোয়াভাবে চুল রাঙাতে

ঘরোয়া উপায়ে চুল রঙিন করে তুলতে এ সম্পর্কে সঠিক ধারণা তো থাকা চাই। হেয়ার কালারের প্যাকেটেও থাকে চুল রঙিন করার নানা নির্দেশনা। চুলে রং লাগানোর সময় কপাল, গাল কিংবা ঘাড়েও লেগে যায়। তাই এসব স্থানে ভ্যাসলিন বা ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নেওয়া ভালো। চুলের রং বেশি গাঢ় করতে চাইলে চুলের রঙের ডেভেলপার ২০% মিশিয়ে নিন। আর হালকা রঙের জন্য ১০% ডেভেলপারই যথেষ্ট। এরপর চুল ঠান্ডা পানি দিয়ে ভালো মতো শ্যাম্পু করে নিন। সঙ্গে কন্ডিশনিং করে নিতে পারেন। আর রং করার সময় অবশ্যই হাতে গ্লাভস পরে নেবেন। তবে চুল রঙিন করার আগে কালারে অ্যালার্জির সম্ভাবনা আছে কিনা তা পরীক্ষা করে নিতে পারেন।

 

রঙিন চুলের পরিচর্যা

চুল রঙিন করানোর পর অয়েল ম্যাসাজ প্রয়োজন। সপ্তাহে অন্তত একদিন হালকা গরম তেল ম্যাসাজ করতে হবে। শ্যাম্পু করার এক ঘণ্টা আগে আমন্ড বা তিলের তেল সামান্য গরম করে হালকাভাবে ম্যাসাজ করতে পারেন। এই ম্যাসাজে মাথার স্ক্যাল্পের রক্ত সঞ্চালন করতে সাহায্য করবে। এরপর কুসুম গরম পানিতে নরম একটি তোয়ালে ভিজিয়ে নিংড়ে নিয়ে মাথার চুলগুলো ৫ মিনিট জড়িয়ে রাখুন এবং এক ঘণ্টা পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।

 

রঙিন চুলের শ্যাম্পু-কন্ডিশনার

রঙিন চুল সুস্থ এবং সুন্দর রাখার জন্য চুলের গোড়া অবশ্যই পরিষ্কার রাখা উচিত। রঙিন চুলে কালার  প্রটেকটিভ শ্যাম্পু ব্যবহার করুন। এ ধরনের শ্যাম্পু চুলের রংকে প্রটেস্ট করে এবং চুল নরম ও কোমল রাখে। যে কোনো ভালো কসমেটিক্সের দোকানে হেয়ার কালার প্রটেক্ট শ্যাম্পু পাওয়া যায়। শ্যাম্পু করার আগে চুল ভিজিয়ে শ্যাম্পু ভালোভাবে স্ক্যাল্পে ও চুলে লাগিয়ে নিন। কিছুক্ষণ আলতো ম্যাসাজ করে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ভালোভাবে চুল ধুয়ে ফেলুন। রঙিন চুল ধোয়ার ক্ষেত্রে কখনই গরম পানি ব্যবহার করবেন না। শ্যাম্পু করার পর অবশ্যই কন্ডিশনার ব্যবহার করুন। এতে চুল আরও চকচকে, নরম ও কোমল হবে।

এই পাতার আরো খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow