Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৮ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৮ জুন, ২০১৬ ০০:০৬
ঈদে হৃদরোগীরা কেন থাকবেন নিরানন্দে?
অধ্যাপক গোবিন্দ চন্দ্র দাস
ঈদে হৃদরোগীরা কেন থাকবেন নিরানন্দে?

ঈদ অবকাশে সবাই যখন মেতে ওঠেন আনন্দে, তখন একজন  হৃদরোগী কেন থাকবেন নিরানন্দে?  একটু যত্নবান হলে সবাই মিলেই ভাগাভাগি করা যেতে পারে ঈদের আনন্দ। সে জন্য চাই কিছু সতর্কতা এবং নিয়মিত নিয়ন্ত্রিত জীবনধারা। প্রথমত খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন এবং সামান্য কিছু ব্যায়াম ও মেডিটেশনের মাধ্যমেই সুস্থতার প্রাথমিক ধাপে পা রাখতে পারেন।   এ ধারাবাহিকতায় যোগ হয়েছে হলিস্টিক চিকিৎসা পদ্ধতি। অন্যদিকে, হৃদরোগের চিকিৎসা হিসেবে বহুল আলোচিত দুটি প্রচলিত পদ্ধতি— বাইপাস ও স্ট্যান্টিং। এ দুটিই অপারেশন। কিন্তু ডাক্তাররা অনেক সময়ই পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানিয়ে দেন যে, রোগীর অপারেশন করার মতো অবস্থা নেই। কারণ নিম্নরূপ —হার্টের পাম্পিং ক্ষমতা বেশি কমে গেলে  (EF <30%, MPI <20%), মাল্টিপল ব্লকেজ, বেশি বয়স। তাছাড়া অনেক সময় অপারেশন করতে পারলেও সেটা হয়ে উঠে মহাঝুঁকিপূর্ণ। তাছাড়া যিনি ডায়াবেটিসে ভুগছেন, যার একবার বা একাধিকবার হার্টঅ্যাটাক হয়ে গেছে, যার আর্টারি ব্লকেজের সঙ্গে অন্যান্য জটিল রোগ আছে, যিনি ভয় পান— তাই উপরোক্ত পরিস্থিতিতে অনিবার্য হয়ে উঠেছে নতুন এ চিকিৎসা পদ্ধতি। হৃদরোগীদের খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন এনে এবং নিয়মিতভাবে কিছু যোগব্যায়াম, মেডিটেশন করলেও রোগের প্রভূত উন্নতি সাধিত হয়। মূলত জীবনধারায় পরিবর্তন এনে হৃদরোগকে অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে আনা হয় এসব চিকিৎসা পদ্ধতিতে।

লেখক : সিইও, হলিস্টিক হেলথ কেয়ার সেন্টার, পান্থপথ, ঢাকা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow