Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : রবিবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:১৮
যন্ত্রনাদায়ক উপসর্গ শ্বাসকষ্ট
যন্ত্রনাদায়ক উপসর্গ শ্বাসকষ্ট

শ্বাসকষ্ট একটি যন্ত্রণাদায়ক উপসর্গ এবং শারীরিক সমস্যা। শ্বাসকষ্ট মানেই রোগ নয়, একটি রোগের লক্ষণ। একটু দৌড়ে এলে বা পরিশ্রম করলে সবারই অল্পবিস্তর শ্বাস-প্রশ্বাস দ্রুত চলতে থাকে। কিন্তু শ্বাসকষ্ট হলে ধরে নিতে হয় যে কোনো রোগের আলামত প্রকাশ পাচ্ছে। অনেকে শ্বাসকষ্ট মানেই হাঁপানি মনে করেন এবং হাঁপানি ভেবে এই রোগের সনাতনী চিকিৎসা শুরু করে দেন। হাঁপানি হলে অবশ্যই শ্বাসকষ্ট হয়। তবে সব শ্বাসকষ্টই হাঁপানি নয়। ফুসফুসের হাঁপানি হলো একটি বিশেষ ধরনের শ্বাসকষ্ট। সাধারণত হঠাৎ করে শুরু হয় এবং এই শ্বাসকষ্ট শুরু হওয়ার পর বুকের ভিতরে বাঁশির মতো শব্দ হয় এবং সঙ্গে কাশি ও বুকের ভিতর শ্বাস বন্ধ ভাব অনুভূত হয়। এ তো গেল ফুসফুসের হাঁপানির কথা। এছাড়াও হূৎপিণ্ডের বাম দিকের অংশ অকেজো হয়ে পড়লেও তীব্র শ্বাসকষ্ট শুরু হয় যাকে হৃদযন্ত্রের হাঁপানি বলে। ফুসফুসের হাঁপানি এবং কার্ডিয়াক (হৃদযন্ত্রের) হাঁপানি উভয় রোগেই শ্বাসকষ্ট থাকে। তবে একজন চিকিৎসক রোগীর বয়স, লক্ষণ এবং বুক পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে অনায়াসেই বলে দিতে পারেন যে রোগী কোন্ ধরনের হাঁপানিতে ভুগছেন। কার্ডিয়াক হাঁপানি বা লেফট হার্ট ফেইল্যুর এবং ফুসফুসের হাঁপানি ছাড়াও কিডনির বৈকল্যের জন্যও শ্বাসকষ্ট হতে পারে। যাকে অনেক চিকিৎসক রেনাল অ্যাজমা বলেও আখ্যায়িত করে থাকেন। তাহলে দেখা যাচ্ছে হাঁপানিরও কত রকমের প্রকার ভেদ রয়েছে এবং বিভিন্ন অঙ্গে বৈকল্য বা সমস্যার জন্যও শ্বাসকষ্ট দেখা দিতে পারে। যদিও এই তিন ক্ষেত্রেই শ্বাসকষ্ট হয়, তবুও এর কারণ ভিন্ন হওয়ায় চিকিৎসা ব্যবস্থা ভিন্নতর হয়ে থাকে। এ তো গেল হাঁপানিজনিত শ্বাসকষ্টের কথা। এছাড়া যেহেতু আমরা ফুসফুসের সাহায্যে শ্বাস নিয়ে থাকি তাই ফুসফুসের যে কোনো ধরনের সমস্যা বা রোগেই শ্বাসকষ্ট হয়ে থাকে। নিউমোনিয়া নামটা প্রায় বহুল পরিচিত সবার কাছেই। এই নিউমোনিয়া কিন্তু ডজন ডজন কারণে হতে পারে। তবে যে কোনো কারণেই এই নিউমোনিয়া হোক না কেন এই রোগের একটি প্রধান উপসর্গ হলো শ্বাসকষ্ট। অবশ্য শ্বাসকষ্ট নির্ভর করে ফুসফুসের আক্রান্ত হওয়ার ব্যাপকতার উপর অর্থাৎ ফুসফুসের যত বেশি অংশ আক্রান্ত হবে শ্বাসকষ্ট তত বেশি প্রকট হবে। ক্রনিক ব্রঙ্কাইটিসের নাম তো অনেকেই জানেন। এই রোগের বিভিন্ন কারণের মধ্যে অতিরিক্ত ধূমপান, ধুলা এবং ধোঁয়াময় পরিবেশ অর্থাৎ পরিবেশ দূষণ এবং কোনো কোনো ক্ষেত্রে বংশগত কারণে এই ক্রনিক ব্রঙ্কাইটিস হয়ে থাকে। বাহ্যিকভাবে ক্রনিক ব্রঙ্কাইটিস রোগটির সঙ্গে

ফুসফুসের হাঁপানির অনেক মিল রয়েছে, যদিও দুটি রোগ সম্পূর্ণ ভিন্ন জাতের এবং ভিন্ন প্রকৃতির।

অধ্যাপক ডা. ইকবাল হাসান মাহমুদ

বক্ষব্যাধি বিশেষজ্ঞ, ইউনাইটেড হাসপাতাল,

ঢাকা। ফোন : ০১৭৪৫-৯১৯৬৬৪

এই পাতার আরো খবর
up-arrow