Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০৮
প্রেসক্রিপশন
ক্রনিক অ্যালার্জিতে করণীয়
ক্রনিক অ্যালার্জিতে করণীয়

ঠাণ্ডা লাগলে কাশি, হাঁচি, নিঃশ্বাস নেওয়ার সময় আওয়াজ হয় অনেকেরই। তবে কয়েক দিনের মধ্যেই চলে যায়।

যদি এগুলো অ্যালার্জির জন্য হয় এবং চিকিৎসা করা না হয় তাহলে সাইনোসাইটিস, কানের অসুখ, নাকের পলিপাস দেখা দিতে পারে। ঋতু পরিবর্তনের এসব রোগ বেশি পরিলক্ষিত হয়। সুতরাং যারা ঘন ঘন কাশি, হাঁচি ইত্যাদিতে ভোগেন তাদের ডাক্তারের সঙ্গে যোগাযোগ করা উচিত। সাধারণ ঠাণ্ডা বা ফ্লু লক্ষণগুলো হলো— জ্বর, গায়ে ব্যথা, নাক দিয়ে পানি পড়া, কাশি এ লক্ষণগুলো কয়েক দিনের মধ্যেই তীব্র আকার ধারণ করে। এক সপ্তাহের মধ্যেই লক্ষণগুলো চলে যায়।

অ্যালার্জিজনিত ঠাণ্ডা : পোলেন (ফুলরেনু), পশুর লোম, ধুলা, খাবার, পোকার বিষ, ওষুধ ইত্যাদি থেকে অ্যালার্জি হয়। নাক দিয়ে পানি পড়া, হাঁচি, নিঃশ্বাস নিতে আওয়াজ হওয়া বা শ্বাসকষ্ট, চোখ চুলকানো, নাক চুলকানো, গলা খসখস  লক্ষণ দেখা যায়। যতদিন এ লক্ষণগুলো থাকে ততদিন অ্যালোজেনগুলো দেখা যায়। যতক্ষণ শারীরিক প্রতিক্রিয়া না থামে ততক্ষণ অ্যালোজেন থাকে।

অ্যাকিউট সাইনোসাইটিস:   হলুদ সর্দি নাক দিয়ে বের হয়, কাশি, মাথা ধরা বা ভারবোধ, নাক বন্ধ হওয়া, মুখ ফোলা ফোলা ভাব, দাঁতের ব্যথা, ক্লান্তভাব, জ্বর দেখা যায়। লক্ষণ কয়েক সপ্তাহ চলতে পারে।

ডা. মো. আবুল কালাম আজাদ

হোমিওপ্যাথিক ফাউন্ডেশন হাসপাতাল, ঢাকা।

ফোন: ০১৯২৮৭০৫০৩০

এই পাতার আরো খবর
up-arrow