Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : শনিবার, ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৫১
বিউটি পার্লারে স্বাস্থ্যঝুঁকি
বিউটি পার্লারে স্বাস্থ্যঝুঁকি

কর্মব্যস্ত জীবনে নিজেকে সুন্দর করে উপস্থাপন করতে পারাটা একটি দক্ষতা। এর ফলে আমাদের আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি পায়।

যার ইতিবাচক প্রভাব পড়ে আমাদের দৈনন্দিন কাজকর্মে। আগের যুগে ঘরোয়া নানা পদ্ধতিতে চলত নিজেকে সাজানোর চেষ্টা। কালের বিবর্তনে এই দায়িত্ব আমরা অনেকেই অর্পণ করেছি বিউটি পার্লারের ওপর। কিন্তু সেখানে কি আমরা মানসম্মত সেবা পাচ্ছি? কারণ সব বিউটি পার্লার তো আর এক রকম নয়। কিছু কিছু পার্লার রয়েছে যেখানে স্বাস্থ্যঝুঁকিও রয়েছে। তাই এদিকটাও খেয়াল রাখতে হবে। কোনো কোনো পার্লারে অনভিজ্ঞ সেবাধাত্রী, অপরিষ্কার পরিবেশ কিংবা জীবাণুমুক্ত যন্ত্রপাতি ব্যবহার না করার ফলে অনেকেই নানারকম স্বাস্থ্য সমস্যা এবং ঝুঁকির সম্মুখীন হচ্ছেন। কিছু কিছু পার্লারে যে চিরুনি বা ব্রাশ ব্যবহার করা হয় বেশিরভাগ সময়েই তা জীবাণুমুক্ত প্যাকে মোড়া অবস্থায় পাওয়া যায় না। আগে যিনি এই ব্রাশ বা চিরুনি ব্যবহার করেছেন তার মাথার খুশকি, ছত্রাকের সংক্রমণ বা ফাঙ্গাল ইনফেকশন এমনকি উকুনের ফলে আপনার মাথায় সংক্রমিত হতে পারে। মেকআপে ব্যবহূত স্পঞ্জ, ফেশিয়ালে ব্যবহূত তোয়ালে ও পোশাক যদি যথাযথভাবে পরিষ্কার এবং জীবাণুমুক্ত না  করা হয় তবে আগের ভোক্তার ত্বকের যে কোনো সংক্রমণ বা ইনফেকশন, একজিমা বা ডার্মাটাইটিস, ব্রণ, মাথার খুশকি দ্বারা আপনার আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি অনেক বেশি। দুঃখজনক হলেও সত্যি আমরা একই ঘরে নিজের আপনজন, যেমন মা-বোন-ভাই-স্বামীর সঙ্গে নিজের তোয়ালে, চিরুনি ভাগাভাগি করে ব্যবহার করি না। অথচ এই আমরাই বিউটি পার্লারে গিয়ে একবারও প্রশ্ন করি না এই চিরুনি জীবাণুমুক্ত করা নয় কেন? এতে আগের ভোক্তার চুল আটকানো কেন কিংবা মেকআপে ব্যবহূত স্পঞ্জ কেন সাবান দিয়ে ধুয়ে না নিয়েই আমার ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হচ্ছে? আবার কোনো কোনো বিউটি পার্লারে মেনিকিওর, পেডিকিওরে ব্যবহূত যন্ত্রপাতিগুলোও বেশিরভাগ সময় জীবাণুমুক্ত প্লাস্টিক প্যাকে মোড়ানো অবস্থায় পাওয়া যায় না। একই যন্ত্রপাতি দিয়ে একের পর এক ভোক্তার মেনিকিওর, পেডিকিওর করা হয়। কোনো ভোক্তার নখে যদি ছত্রাক বা ফাঙ্গাল ইনফেকশন থাকে তা অনায়াসে পরবর্তী ভোক্তার দেহে ছড়িয়ে যেতে পারে। এ ধরনের অসতর্কতামূলক পরিস্থিতি অনেক সময় এইচআইভি/ এইডস সংক্রমণের কারণও হতে পারে। মানসম্মত হেয়ারডাই ব্যবহার না করা বা মেয়াদ উত্তীর্ণ প্রসাধনী ব্যবহারের কারণে উপকারের তুলনায় অপকার বেশি হওয়ার আশঙ্কা থাকে। এর কারণে ত্বকের ক্যান্সার, অন্ধত্ব, গর্ভের শিশুর জন্ম ওজন কম হওয়া, গর্ভপাত বা গর্ভাবস্থায়  উচ্চরক্তচাপ তৈরি হতে পারে। অল্প জায়গায় একই সঙ্গে অনেক ভোক্তাকে সেবা প্রদান করতেও দেখা যায় পার্লারগুলোতে। যেখানে নেই উপযুক্ত বাতাস প্রবাহ (VENTILATION) ব্যবস্থা। একই ঘরে কেউ হয়তো হেয়ার স্প্রে ব্যবহার করছেন, কেউ স্টিম নিচ্ছেন, কেউ হেয়ারডাই ব্যবহার করছেন। এর ফলে শ্বসনতন্ত্রের সংক্রমণ বা ইনফেকশন, হাঁপানি, অ্যালার্জির ঝুঁকি বেড়ে যায়। মুখে হারপিস ইনফেকশন যাকে অনেকে জ্বরঠোসা বলে থাকেন তা নিয়ে বিউটি পার্লারে গিয়ে দিব্যি ফেশিয়াল করিয়ে চলে এলেন একজন। তার ব্যবহূত যন্ত্রপাতি, তোয়ালে যদি সঠিক নিয়মে জীবাণুমুক্ত করা না হয়, তবে তা হতে পারে পরবর্তী জনের হারপিস সংক্রমণ বা ইনফেকশনের কারণ। কেবল সেবাদানকারীর যথাযথ প্রশিক্ষণের অভাবে অনেকে মুখে ব্রণ নিয়ে ফেশিয়াল করে স্থায়ীভাবে গর্ত বা ক্ষত তৈরি করছেন। সেবাদানকারী কর্মী যে হাতে আপনাকে সেবা প্রদান করছেন তার হাতে কোনো চর্মরোগ থাকলে আপনিও আক্রান্ত হতে পারেন। তাই সেবাদানকারী কর্মী প্রশিক্ষণকালে অবশ্যই তাদের উপযুক্ত পরিচ্ছন্নতা জ্ঞান প্রদান করতে হবে।

উপযুক্ত পরিচ্ছনতা বজায় রাখার জন্য যথেষ্ট সংখ্যক পরিচ্ছন্নতা কর্মী, ওয়াশিং মেশিন, স্টেরিলাইজারের ব্যবস্থা রাখতে হবে। আমাদের লক্ষ্য রাখতে হবে ব্যবহূত সামগ্রীর মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ, ব্যবহার সতর্কতা ও তাদের পরিপূর্ণ পরিচ্ছন্নতা বিষয়ে।

ডা. নওশীন শারমীন পূরবী, পূরবী’স হেলপ ডেস্ক

ই-মেইল : dr.purabi@yahoo.com

এই পাতার আরো খবর
up-arrow