Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৩০ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩০ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০৩

হিককাপ অব মাইন্ড কি?

হিককাপ অব মাইন্ড কি?

শুচিবাইকে হিককাপ অব মাইন্ড (মনের ঢেঁকুর) বলে। জীবনে যে কোনো সময়ে ২-৩% লোক এ শুচিবাইতে আক্রান্ত হতে পারে। পরিসংখানে দেখা যায়, হসপিটালের বহিঃর্বিভাগে যে পরিমাণ মানসিক রোগী আসে, তার ১০% এ ধরনের রোগী। পুরুষ ও মহিলা সমানভাবে আক্রান্ত হয়, টিনএজদের মধ্যে ছেলেদের তুলনামূলকভাবে বেশি হয়। এ রোগটি সাধারণত বেশি হয় ২০ বছর বয়সে। বিবাহিতদের চেয়ে অবিবাহিতরা বেশি ভোগে।

সমস্যা :  মেয়েদের মাসিকের সময় অস্বস্তি বেড়ে যায়।  ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে যাদের শুচিবাই আছে তারা পড়াশোনায় পিছিয়ে পড়ে।  কোনো কাজ সম্পন্ন করতে অনেক সময় লাগে, পরীক্ষার সময় কোনো কোনো ছাত্রছাত্রী পেছনের পাতায় কি লিখেছে তা বারবার চেক করে। এ কারণে পরীক্ষায় পূর্ণ নম্বরের উত্তর লিখে আসতে পারে না।  বিষণ্নতায় ভোগে প্রায় ৬৭% রোগী।

শুচিবাইর পরিণতি : সঠিক সময়ে চিকিৎসা করলে ২/৩ অংশ রোগী স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারে। যেই রোগীর সমস্যা এক বছরের বেশি সময় ধরে থাকে তারা দীর্ঘস্থায়ী রোগী বলে গণ্য হয়। রোগীর যদি নির্দিষ্ট কোনো কারণ পাওয়া যায়, আগে আগে চিকিৎসা শুরু হয়, ব্যক্তিত্ব ভালো থাকে, উপসর্গগুলো অল্পদিন ধরে শুরু হয়ে থাকে এবং বেশি বয়সে হয় তাহলে তাদের উন্নতি বেশি হয়।

ডা. মো. দেলোয়ার হোসেন

সহকারী অধ্যাপক, আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতাল, ঢাকা।


আপনার মন্তব্য