Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : ৩ জুলাই, ২০১৬ ২১:৫১
আপডেট :
হরিয়ানায় স্কুলের পাঠ্যসূচিতে কোরআন, গীতা, বাইবেল
দীপক দেবনাথ, কলকাতা:
হরিয়ানায় স্কুলের পাঠ্যসূচিতে কোরআন, গীতা, বাইবেল

স্কুলের পাঠ্যসূচিতে গীতা'র পাশাপাশি এবার কোরআন, বাইবেল ও গুরুগ্রন্থ সাহিব-কেও অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের হরিয়ানা রাজ্য সরকার। বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকারের শিক্ষামন্ত্রী রাম বিলাশ শর্মা রবিবার এই ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, স্কুলের বইতে এবার থেকে নৈতিক শিক্ষার অঙ্গ হিসাবে গীতা, কোরআনের মতো ধার্মিক বিষয়গুলিকে ঢোকানো হয়েছে। আগামী ৫ জুলাই কুরুক্ষেত্র বিশ্ববিদ্যালয়ে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এর শুভ সূচনা হবে।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন হরিয়ানার রাজ্যপাল ক্যাপ্টেন সিং সোলাঙ্কি, হিমাচল প্রদেশের রাজ্যপাল আচার্য দেব ভ্রাট, পতঞ্জলি বিদ্যাপিঠ'এর আচার্য বালকৃষ্ণণ, গীতা পন্ডিত স্বামী জ্ঞানানন্দ প্রমুখ।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন 'ষষ্ট শ্রেণি থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত পাঠ্যসূচিতে নৈতিক শিক্ষার বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে। সব ধর্মই চরিত্র গঠনে সাহায্য করে। এজন্য হিন্দুদের ধর্মগ্রন্থ ভগবত গীতা, মুসলিমদের ধর্মগ্রন্থ কোরআন, খ্রিষ্টান ধর্মগ্রন্থ বাইবেল এবং শিখ ধর্মগ্রন্থ গুরুগ্রন্থ সাহিব পাঠ্যসূচিতে ঢোকানো হচ্ছে। বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ও শিক্ষাবিদদের সঙ্গে আলোচনা করে পাঠ্যসূচির বিষয়টি তৈরি করা হচ্ছে।

গত ২০১৪ সালের অক্টোবরেই রাজ্যটিতে ক্ষমতায় আসে বিজেপি। এরপর গত বছর স্কুলের পাঠ্যসূচিতে শুধুমাত্র গীতাকে অন্তর্ভুক্তির পরিকল্পনা করায় রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে বিজেপি বিরোধী দলগুলি সরব হয়। শিক্ষা ব্যবস্থায় গেরুয়া করণের অভিযোগ তোলে বিরোধী দলগুলো। এরপরই সিদ্ধান্ত বদল করার চিন্তাভাবনা নেয় রাজ্য সরকার। অবশেষে শনিবারই শিক্ষা মন্ত্রালয় ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রালয়ের শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের পর রবিবার গীতার পাশাপাশি অন্য ধর্মগ্রন্থগুলোকে পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে ঘোষণা দেন শিক্ষামন্ত্রী।

বিডি-প্রতিদিন/এস আহমেদ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow