Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : ১৩ জুলাই, ২০১৬ ২২:২৮
আপডেট : ১৪ জুলাই, ২০১৬ ০০:০৩
ভারতে প্রতিবেশী রাষ্ট্রের সংখ্যালঘুদের জন্য নানা সুবিধা অনুমোদন
দীপক দেবনাথ, কলকাতা:
ভারতে প্রতিবেশী রাষ্ট্রের সংখ্যালঘুদের জন্য নানা সুবিধা অনুমোদন
প্রতীকী ছবি

বাংলাদেশ, পাকিস্তান এবং আফগানিস্তান থেকে ভারতে আসা হিন্দুদের দীর্ঘ মেয়াদি ভিসা (লং টার্ম) দিতে চলেছে ভারত সরকার। বুধবারই ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা এ ব্যাপারে অনুমোদন দিয়েছে। হিন্দু ছাড়াও ওইসব দেশ থেকে ভারতে আসা শিখ, খ্রিষ্টান, বৌদ্ধ, পার্সি সহ অন্যান্য সংখ্যালঘু মানুষদেরও এই সুবিধার আওতায় আনা হবে। ভারতে বসবাসের ক্ষেত্রে তাদের যাতে কোন অসুবিধার মুখে পড়তে না হয় সেদিকে তাকিয়েই এদিন একগুচ্ছ সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা।
এসব সিদ্ধান্তের মধ্যে অন্যতম বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে আসা সংখ্যালঘু অভিবাসীদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলা, সম্পত্তি কেনার অধিকার, কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা, নিজস্ব ব্যবসায় সহায়তা করা, পান কার্ড, আধার কার্ড ও ড্রাইভিং লাইসেন্স দেওয়া, যে রাজ্যে তারা বাস করছেন সেই রাজ্যে স্বাধীনভাবে ঘোরাফেরার সুযোগ দেওয়া, স্বল্প মেয়াদি ভিসার মেয়াদ শেষে ভিসা নবায়নের ক্ষেত্রে জরিমানা মওকুফ করা প্রমুখ।
 
২০০৯ সালের ভারতের নাগরিকত্ব সংশোধন আইন অনুযায়ী প্রতিবেশি রাষ্ট্র থেকে আসা সংখ্যালঘুদের ভারতীয় নাগরিকত্ব অর্জনের ক্ষেত্রে ক্ষমতা প্রদান করা হয়েছে সংশ্লিষ্ট জেলা কালেক্টরদের হাতে। ভারতীয় নাগরিক হিসাবে নাম নথিভুক্ত করার জন্য আগামী দুই বছর দেশটির ১৬ টি রাজ্যের ৭ জেলার কালেক্টরের হাতে এই ক্ষমতা প্রদান করা হয়েছে। ভারতীয় নাগরিকত্ব পাওয়ার জন্য নাম নথিভুক্ত করার খরচও ৩০০০ হাজার থেকে কমিয়ে ১০০ রুপি করা হচ্ছে।

২০১৪ সালের মে মাসে ভারতের লোকসভা প্রচারণার সময়েই বিজেপির প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী নরেন্দ্র মোদি পরিস্কার জানিয়ে দিয়েছিলেন- বাংলাদেশ, পাকিস্তান থেকে আগত হিন্দু অভিবাসীরা ভারতের নাগরিকদের মতোই আচরণ পাবেন। কারণ প্রতিবেশি রাষ্ট্র থেকে নির্যাতিত হয়ে আসা হিন্দুদের দেখার দায়িত্ব আমাদের। মোদির সেই নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী গত দুই বছর ধরে প্রতিবেশী রাষ্ট্র থেকে আসা সংখ্যালঘুদের ভারতে বসবাসের ক্ষেত্রে একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে মোদির সরকার।

বিডি-প্রতিদিন/এস আহমেদ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow