Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : ২৫ জুলাই, ২০১৬ ১০:৪২
আপডেট :
নিখোঁজ বিমান নিয়ে উৎকণ্ঠা, অপেক্ষায় যাত্রীদের পরিবার
অনলাইন ডেস্ক
নিখোঁজ বিমান নিয়ে উৎকণ্ঠা, অপেক্ষায় যাত্রীদের পরিবার

খোঁজ পাওয়া যায়নি ভারতীয় বিমান বাহিনীর নিখোঁজ বিমানের। দুইদিন পার হয়ে যাওয়ার পর তামিলনাড়ু পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন বিমান বাহিনী কর্তৃপক্ষ।  

গত শুক্রবার সকালে বিমান বাহিনীর বিমানটি চেন্নাইয়ের কাছে তামবারাম ঘাঁটি থেকে পোর্ট ব্লেয়ারের উদ্দেশে রওনা হয়েছিল। এরপর থেকেই নিখোঁ সেটি।  

এলাহাবাদের ধুমানগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা ‘এয়ারক্রাফ্টম্যান’ লক্ষ্মীকান্ত ত্রিপাঠীর বাবা নরেন্দ্রনাথ মিডিয়াকে জানায়, ‘‘গত বৃহস্পতিবার রাতে খাওয়ার আগে ছেলে আমাকে ফোন করেছিল। বলেছিল, আগামীকাল পোর্ট ব্লেয়ার যাচ্ছে। সেখান থেকে ফোন করবে। পরের দিন বিমানবাহিনীর এক অফিসার জানান যে ওদের বিমানের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। ’’

বিমানবাহিনীর নিখোঁজ বিমান ‘এএন-৩২’-এর অন্য আরোহীদের স্বজনরাও ফোনের অপেক্ষা করছেন। সেনা কর্মকর্তা আশুতোষ সিংহ ওই বিমানেই ছিলেন। তাঁর স্ত্রী সঙ্গীতা বলেন, ‘‘ও আমার বাবাকে পোর্ট ব্লেয়ারে পৌঁছে ফোন করবে বলেছিল। কিন্তু সে ফোন আর আসেনি। ও যেন বাড়ি ফিরে আসে!’’ ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট দীপিকা শেরনের জন্য অপেক্ষা করছেন তাঁর বাবা ও স্বামী।  

জয়পুরের পূর্ণ চন্দ্র সেনাপতির ভাইয়ের আশা, তাঁর বড় ভাই বেঁচে আছেন। তিনি বলেন, ‘‘ভাইয়ার এক বন্ধু আমাকে জানিয়েছিল যে ও (ভাইয়া) হয়তো ফ্লাইট মিস করেছে। কিন্তু ওর মোবাইল সুইচড অফ বলছে। তারপর আর কিছুতেই যোগাযোগ করতে পারিনি। ’’ 

ছুটি কাটিয়ে পোর্ট ব্লেয়ারে কাজে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন কর্নাটকের একনাথ শেঠি। একই প্রতীক্ষা তাঁর পরিজনদেরও।

এদিকে, বিমান নিখোঁজ হওয়ার দু’দিন পরে তামিলনাড়ু পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন বিমানবাহিনী কর্তৃপক্ষ। তল্লাশির সুবিধার্থে এবার তারা উপগ্রহ চিত্রের সাহায্য নিচ্ছেন। বিমানবাহিনীর ইস্টার্ন নাভাল কম্যান্ডের চিফ ভাইস অ্যাডমিরাল এইচ সি এস বিস্ত বলেছেন, ‘‘উপগ্রহ চিত্রের জন্য আবেদন করা হয়েছে। যে এলাকায় বিমানটি নিখোঁজ হয়েছে, সেখানে জলের গভীরতা প্রায় সাড়ে তিন হাজার মিটার। খারাপ আবহাওয়া এবং জলের গভীরতা বেড়ে যাওয়ায় তল্লাশি ঠিকমতো করা যাচ্ছে না। ’’ সূত্র: এবেলা।

 
বিডি-প্রতিদিন/ ২৫ জুলাই, ২০১৬/ আফরোজ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow