Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৮:২১
ফের বিতর্কে ফরাসি ম্যাগাজিন শার্লি হেবদো
অনলাইন ডেস্ক
ফের বিতর্কে ফরাসি ম্যাগাজিন শার্লি হেবদো

মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-কে নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশ করে বিতর্কিত হওয়া ফরাসি ম্যাগাজিন শার্লি হেবদো এবার ইতালির ভূমিকম্পে হতাহতদের নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র এঁকে ফের সমালোচনার মুখে পড়েছে। ম্যাগাজিনটি তাদের কার্টুনে নিহতদের দেহকে বিভিন্ন আকৃতির ‘পাস্তা’ হিসেবে দেখিয়েছে।

হেবদোর ব্যঙ্গচিত্রে দেখা যায়, ভূমিকম্পে আহত এক পুরুষ ও এক নারী একটি ভবনের ধ্বংসস্তূপের পাশে দাঁড়িয়ে আছেন এবং প্যানকেকের মতো করে ধসে পড়া ওই ভবনের তলাগুলোর মাঝে চাপা পড়া নিহত মানুষের পাগুলো বের হয়ে আছে। দাঁড়িয়ে থাকা আহত দু’জন মানুষের প্রত্যেককে এক একটি পাস্তা ডিশের নামে নামকরণ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে রোমে ফরাসি দূতাবাস তার ওয়েবসাইটে একটি বিবৃতি দিয়েছে। তারা বলেছে, এই স্যাটায়ার ফ্রান্সের অবস্থানের প্রতিনিধিত্ব করে না। খবর এএফপি ও রয়টার্সের।

শার্লি হেবদো ম্যাগাজিনটির চলতি সংখ্যায় ইতালির ৬ দশমিক ২ মাত্রার ভূমিকম্পে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত আমাত্রিসি শহরকে বিষয় করা হয়েছে।

আমাত্রিসি অল’আমিত্রিসিয়ানা নামের এক ধরনের পাস্তা ডিশের জন্য বিখ্যাত। এই ডিশটি টমেটোর সস ও গুয়ানসিয়ালে হ্যাম সহযোগে পরিবেশন করা হয়।

আটার সঙ্গে পানি মিশিয়ে লেই তৈরি করে তা চাপ দিয়ে বিভিন্ন আকৃতির চ্যাপ্টা খাবার বানানো হয়। এ খাবারকে পাস্তা বলা হয়। ইতালির নিহতদের দেহকে সেই পাস্তা হিসেবে উপস্থাপন করেছে ম্যাগাজিনটি।

২০১৫ সালে এ ম্যাগাজিন অফিসে সন্ত্রাসী হামলা হয়। তার নিন্দা জানানো হয় বিভিন্ন দেশে। কিন্তু এবারে তারা তাদের ব্যঙ্গচিত্র বা কার্টুনের শিরোনাম দিয়েছে ‘আর্থকোয়েক ইতালিয়ান স্টাইল’ বা ‘ভূমিকম্পের ইতালীয় ধরণ’।

ব্যান্ডেজ বাঁধা পুরুষটির মাথার ওপর লেখা পেন্নে টমেটো সস, আর নারীর মাথার ওপর লেখা পেন্নে গ্রাতিন এবং যেসব মৃতদেহের পা ধ্বংসস্তূপের বাইরে বের হয়ে আছে সেগুলোকে পাস্তা বোঝানো হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কার্টুনটি প্রচার হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই বিশ্বব্যাপী এটি ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়ে।

ইতালির দুটি জাতীয় সংবাদপত্র এই কার্টুন নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করে। আলিফ লায়লা ওয়া লায়লা নামের একজন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে মন্তব্য করেছেন, ‘শার্লি হেবদো আবারও প্রমাণ করল তাদের কারও প্রতি শ্রদ্ধাবোধ নেই। ’

ড্যানিবালিও বলেছেন, ‘এই কার্টুন অপ্রত্যাশিত। বিদ্রূপের স্বাধীনতার ব্যাপারে আমার শ্রদ্ধাবোধ আছে, তবে ভালো স্বাদেরও একটি সীমা আছে। ’
তবে এখনও এ নিয়ে মন্তব্য করেননি ইতালির প্রধানমন্ত্রী মাত্তিও রেনজি বা তার সরকারের কোনো নেতাকর্মী।

বিডি প্রতিদিন/৪ সেপ্টেম্বর ২০১৬/এ মজুমদার

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow