Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১২:১৫
পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারে যে ৬ রাষ্ট্রনেতা বিশ্বের জন্য আতঙ্ক
অনলাইন ডেস্ক
পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারে যে ৬ রাষ্ট্রনেতা বিশ্বের জন্য আতঙ্ক

সম্প্রতি ভারত-পাকিস্তানের উত্তেজনায় ফের সামনে এলো পরমাণুর প্রসঙ্গ। পরমাণু একটি আতঙ্কের নাম। পৃথিবী ধ্বংসের অন্যতম একটি অস্ত্র হল পারমাণবিক বোমা।  

সম্প্রতি জাতিসংঘের সাধারণ সভায় পাক-ভারত উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়েছে। সমগ্র বিশ্ব এখন টঠস্থ কারণ যে কোন সময় দক্ষিণ এশিয়ার এই দুই আণবিক শক্তিধর দেশের মধ্যে শুরু হতে পারে পরমাণু যুদ্ধ। আর এমনটি হলে বিশ্বের অন্য পরমাণু অস্ত্রধর রাষ্ট্রগুলোরও অংশ নেওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।  

পারমাণবিক বোমা তৈরির জন্য যে পদার্থটি ব্যবহৃত হয় তার নাম ইউরেনিয়াম (Uranium)। বিজ্ঞানীরা সংক্ষেপে পদার্থটির নাম বোঝানোর জন্য শুধু এর প্রথম অক্ষরটি (U) ব্যবহার করেন। ইউরেনিয়াম অত্যন্ত ভারী তেজস্ক্রিয় পদার্থ। ভূ-পৃষ্ঠের উপরিভাগে এ পদার্থের পরিমাণ শতকরা ০.০০৪% ভাগ। ভূ-ত্বকের ৬.৪০ কিলোমিটার গভীর পর্যন্ত এর মজুদের পরিমাণ প্রায় ১৩,০০,০০,০০,০০,০০,০০০ টন! এবার জেনে নেওয়া যাক বিশ্বের এমন ছয়টি রাষ্ট্রনেতার বিবরণ, যাদের হাতে পরমাণু অস্ত্র থাকা মানেই বিশ্বের বিপদ!

কিম জং উন, উত্তর কোরিয়া: 

পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারে জাতিসংঘের নিষেধ থাকা সত্ত্বেও একাধিকবার পারমাণবিক অস্ত্রের পরীক্ষা করে বিশ্ব রাজনীতিতে ত্রাসে পরিণত হয়েছেন উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম। নিজের হাতে নিজের আত্মীয়কে প্রাণে মারতেও হাত কাঁপে না মানুষটির। বলা হয় বিশ্বের সত্যিকারের নরক রয়েছে উত্তর কোরিয়ায়। যেখানে সাধারণ মানুষের নেই নিজের ইচ্ছা মতো খবর পড়া, লেখা এমনকি সিনেমা দেখার মত স্বাধীনতা।

রডরিগ ডিউতারতে, ফিলিপাইন:  
যদিও ফিলিপাইনের কাছে কোন পরমাণু অস্ত্র নেই। তবুও ভরসা করা যায়না রডরিগের উপর। কারণ জি-২০ সামিটে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সঙ্গে যেভাবে বাদানুবাদ হয়েছে তার এবার দু'দেশের মধ্যে যুদ্ধ লাগলে পরমাণু অস্ত্রের ব্যবহার হবে বলেই মনে করছে বিশেষজ্ঞরা।

জেনারেল রাহিল শরিফ, পাকিস্তান: 
বিশেষজ্ঞদের মতে ভারতের সঙ্গে উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে বর্তামান সমগ্র বিশ্ব প্রায় পাকিস্তানের বিপক্ষে। এমন পরিস্থিতিতে ভারতের সঙ্গে পরমাণু যুদ্ধ শুরু করতে পারে পাক সেনা প্রধান জেনারেল রাহিল শরিফ। যদি তা না হয় তবে কোন জঙ্গি সংগঠনকে পরমাণু অস্ত্র বানানোর ফর্মুলা বিক্রিও করে দিতে পারে পাকিস্তান। যেমন অতীতের লিবিয়া, ইরাক ও উত্তর কোরিয়াকে করেছিল।

রিসেপ আর্দোগান, তুরস্ক: 
তুরস্কে তৈরি হওয়া উত্তেজক পরিস্থিতি অনেকের মতেই রাষ্ট্রপতি রিসেপ আর্দোগানের সাজানো ঘটনা। যদিও তুরস্কের হাতে কোন পরমাণু বোমা নেই, তাও মনে করা হয় এই একনায়ক প্রেসিডেন্টের হাতে রাজ্যপাট দেওয়া ক্ষতিকারক।

বাসহার-আল-আসাদ, সিরিয়া: 
২০১১ সাল থেকে যুদ্ধ বিধ্বস্ত সিরিয়া। একদিকে আসাদ বাহিনীর সঙ্গে ক্রমাগত লড়াই চলছে ন্যাটো বাহিনীর। অন্যদিকে দেশে বেড়ে উঠেছে আইএস জঙ্গিদের উপদ্রব। সূত্রের খবর, গত পাঁচ বছরে প্রায় ১৫ হাজার সাধারণ মানুষকে হত্যা করেছে আসাদের বাহিনী। আর প্রতি ক্ষেত্রেই রাসায়নিক অস্ত্রের ব্যবহার করেছে আসাদ।

ডোনাল্ড ট্রাম্প, আমেরিকা: 
আসন্ন মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির একজন পদপ্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। সিরিয়া নিয়ে রাশিয়া আর আমেরিকার মধ্যে যে বাদানুবাদ আবার চরমে উঠেছে এমন পরিস্থিতিতে ট্রাম্প আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হলে তার ফল ভালো নাও হতে পারে বলে আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের্

সূত্র: কলকাতা ২৪x৭


বিডি প্রতিদিন/২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬/হিমেল

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow