Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ২০ অক্টোবর, ২০১৬ ১০:৪৯
নির্বাচনের ফল মানবেন কিনা নিশ্চিত নন ট্রাম্প
অনলাইন ডেস্ক
নির্বাচনের ফল মানবেন কিনা নিশ্চিত নন ট্রাম্প

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আর মাত্র ১৯ দিন বাকি। তার আগেই দেশটির নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তুলে সমালোচনার মুখে পড়েছেন রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। এ কারণে দুই প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর তৃতীয় ও শেষ টেলিভিশন বিতর্কে ট্রাম্পকে প্রশ্ন করা হয়েছিল নির্বাচনের ফলাফল ডেমোক্রেটিক প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের পক্ষে গেলে, তিনি ফলাফল মেনে নেবেন কি না।

জবাবে ট্রাম্পের প্রতিক্রিয়া সেটি নির্বাচনের ফল দেখেই সিদ্ধান্ত নেবেন তিনি। বিতর্কের সঞ্চালক দ্বিতীয়বার প্রশ্নটি করলে ট্রাম্প বলেন, এ বিষয়ে কিছুটা রহস্য রাখতে চাই। এই মুহূর্তে সব বলে দিতে চাই না।

এর আগে, ট্রাম্প মন্তব্য করেছিলেন, আটই নভেম্বরের নির্বাচনে চূড়ান্ত কারচুপি হবে এবং তা হবে হিলারি ক্লিনটনের পক্ষে। মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা সেই বক্তব্যের সমালোচনা করেছিলেন। হিলারি ক্লিনটনও সেই বক্তব্যের সমালোচনা করে এদিন প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন, নির্বাচনের ফলাফল ট্রাম্পের বিপক্ষে গেলে তিনি মানবেন কি না।

এর আগে অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ, গর্ভপাত, রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং অবৈধ অভিবাসন নিয়ে তুমুল বাদানুবাদ হয় দুই প্রার্থীর মধ্যে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালে এসব ইস্যুতে হিলারি ক্লিনটন কি উদ্যোগ নিয়েছিলেন, বারবারই সে প্রশ্ন সামনে নিয়ে আসেন ট্রাম্প। পর্যবেক্ষকেরা বলছেন, আজ দুই প্রার্থীই আগের দিনের বিতর্কের চেয়ে কম আক্রমণাত্মক ছিলেন। তবে, এই বিতর্কের শুরুতেও প্রথা মাফিক দুই প্রার্থী পরস্পরের সঙ্গে হাত মেলাননি।

আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক ওবামা সরকারের আইন প্রয়োগের ব্যর্থ চেষ্টার পর বিষয়টি বেশ গুরুত্ব পাচ্ছে মার্কিন নির্বাচনে। আর সে কারণেই এবারের নির্বাচনে হিলারির সঙ্গে শেষ বিতর্কে মুখোমুখি হলে এই বিষয়ে প্রথম প্রশ্ন করা হয়। এর উত্তরে ট্রাম্প বেশ স্পষ্টভাবেই তার অবস্থান জানান।
 
ট্রাম্প এক পরিসংখ্যান তুলে ধরে বলেন, অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইন করে আপনি কি করবেন। এই রাষ্ট্রে সবচাইতে কঠোর অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইন প্রয়োগ করা হয়েছে শিকাগোতে। অথচ সেখানেই অস্ত্র ব্যবহারে বছরে সবচাইতে বেশি হতাহতের ঘটনা ঘটে। আমি মনে করি অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইন করে এ বিষয়ে কোন উপকার পাওয়া যাবে না।
 
ট্রাম্পের এমন বক্তব্যের জবাবে হিলারি বলেন, আমাদের দেশে এই বন্দুক ব্যবহারের মাধ্যমে প্রতি বছর ৩৩ হাজার মানুষ মারা যাচ্ছে। আর সে কারণেই অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইন হওয়া উচিত বলে তিনি মন্তব্য করেন। বিবিসি জানায়, হিলারির দেয়া তথ্যটি মূলত ২০১৪ সালের একটি পরিসংখ্যান থেকে নেয়া। বর্তমান পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ। বিবিসি আরও জানায়, বন্দুক ব্যবহার করে নিহতের ঘটনাগুলোর শতকরা ৬৩ ভাগই আত্মহত্যার ঘটনা।

বিডি-প্রতিদিন/২০ অক্টোবর, ২০১৬/মাহবুব

 

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow