Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১২:০৪ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৩:৪৩
ব্যর্থ অভিযান নিয়ে ট্রাম্পকে ব্যঙ্গ করলেন জঙ্গি নেতা
অনলাইন ডেস্ক
ব্যর্থ অভিযান নিয়ে ট্রাম্পকে ব্যঙ্গ করলেন জঙ্গি নেতা

ইয়েমেনে নেভি সিল্‌স পাঠিয়ে জঙ্গি নিধনের ছক ভেস্তে গেছে। ফলে মার্কিন ফৌজকে বোকা বানানোর পরে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রাম্প প্রশাসনকে চূড়ান্ত ব্যঙ্গ করলেন আল কায়দা নেতা।

গত ২৯ জানুয়ারি ইয়েমেনে আশ্রয় নেওয়া আল কায়দা নেতাকে গ্রেফতার অন্যথায় হত্যার পরিকল্পনা করে নেভি সিল বাহিনীর একটি সশস্ত্র দল পাঠায় ওয়াশিংটন। কিন্তু বিশ্বের তৃতীয় চূড়ান্ত বিপজ্জনক জঙ্গি নেতা কাসিম আল-রিমির খোঁজে পৌঁছলে সন্ত্রাসবাদীদের সঙ্গে তাদের গোলাগুলি হয়। এতে নেভি সিল বাহিনীর এক সেনা, ১৪ জন জঙ্গি এবং ৮ বছরের এক কিশোরীসহ সাধারণ নাগরিকের মৃত্যু হলেও নাগাল মেলেনি আল-রিমির।

একাধিক সামরিক সূত্রে জানা গেছে, আমেরিকার চোখে ধুলো দিয়ে বহাল তবিয়তে ইয়েমেনেই রয়েছেন আস কায়দা নেতা। শুধু তাই নয়, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে ব্যঙ্গ করে সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি অডিও পোস্ট করেছেন তিনি।

অডিয়ো পোস্টে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে ব্যঙ্গ করে আল-রিমি বলেছেন, 'দেশ শাসন করার যাত্রা-শুরুতেই থাপ্পড় খেয়েছে হোয়াইট হাউসের বোকাটা। '

ইয়েমেনে সেনা অপারেশন সম্পর্কে অবশ্য এখনও বিস্তারিত তথ্য জানা যায়নি। ২৯ জানুয়ারির ওই গোপন আক্রমণে যৌথ অংশগ্রহণ করে নেভি সিল টিম ৬ এবং সংযুক্ত আরব আমিরশাহির কম্যান্ডোরা। জানা যায়নি নিশানায় থাকা জঙ্গি নেতা সেই সময় শিবিরের ভিতরে ছিলেন কি না অথবা আগে থাকতে খবর পেয়ে অন্যত্র গা-ঢাকা দিয়েছিলেন কি না।

এদিকে ইয়েমেনে সেনা অভিযান 'সব দিক দিয়ে সফল হয়েছে' বলে এর আগে ঘোষণা করে হোয়াইট হাউস। সোমবার মার্কিন প্রশাসন আল-রিমি প্রকাশিত অডিও পোস্টের বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।

এই বিষয়ে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের নিরাপত্তা উপদেষ্টা জুয়ান জারাটে জানিয়েছেন, 'যদি অভিযানের মূল লক্ষ্য আল কায়দা নেতাকে গ্রেফতার হয়ে থাকে, তাহলে অবশ্যই তা সফল হয়নি। কিন্তু সংঘর্ষে একাধিক জঙ্গি নেতা মারা গেছে ও শিবির ধ্বংস হয়েছে। ওরা বুঝতে পেরেছে, এবার আমেরিকা হাত বাড়াতে শুরু করেছে। বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য-প্রমাণ হাতে এসেছে, যা জঙ্গি দমনে যথেষ্ট সহায়তা করবে। '

প্রসঙ্গত, ইয়েমেনে সেনা অভিযান চালিয়ে জঙ্গিদের নিষ্ক্রিয় করার বিস্তারিত পরিকল্পনা সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা প্রশাসনের কাছে পেশ করে পেন্টাগন। নির্বাচনে জিতে ডোনাল্ড ট্রাম্প আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হওয়ার পরে সাবেক প্রেসিডেন্টের দফতর তা ট্রাম্প প্রশাসনের কাছে পাঠিয়ে দেয়। নতুন প্রেসিডেন্টকে তার নিরাপত্তা সচিব জেমস ম্যাট্টিস বোঝান, আল-রিমির মতো গুরুত্বপূর্ণ জঙ্গি নেতাকে গ্রেফতারের জন্য গত দুই মাস ধরে জোরদার সেনা অভিযানের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। অভিযান সফল হলে পালাবদলের কান্ডারি হিসেবে বিশ্বজুড়ে ট্রাম্পের খ্যাতি ছড়াবে বলেও বোঝানো হয়।

পাশাপাশি বলা হয়, বিগত আমেরিকার প্রেসিডেন্ট সেনা অভিযানের বিষয়ে সাহসী ছিলেন না বলেই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করা সম্ভব হয়নি।

কিন্তু শেষ পর্যন্ত ইয়েমেনের অভিযানে বিশেষ লাভ হয়নি। নাগালের বাইরেই থেকে গেছেন আল-রিমি। ব্যর্থ সেনা অভিযান নিয়ে তার টিপ্পনির জবাবে কী পদক্ষেপ গ্রহণ করে ট্রাম্প প্রশাসন, সেই দিকে সাগ্রহে তাকিয়ে গোটা বিশ্ব।

বিডি প্রতিদিন/৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/এনায়েত করিম

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow