Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : ১২ আগস্ট, ২০১৭ ১৫:৫৭ অনলাইন ভার্সন
আপডেট :
‘উত্তর কোরিয়া-যুক্তরাষ্ট্রের লড়াইতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারে ভারত’
অনলাইন ডেস্ক
‘উত্তর কোরিয়া-যুক্তরাষ্ট্রের লড়াইতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারে ভারত’
ফাইল ছবি

উত্তর কোরিয়া আর যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে কার্যত যুদ্ধের পরিস্থিতি বিরাজমান। যে কোনও সময় হামলা চালানোর হুমকি দিয়েছে পিয়ংইয়ং।

যুক্তরাষ্ট্রের গুয়াম দ্বীপে তাই সেনা মোতায়েন করে রেখেছে দেশটি। একদিকে হুমকি দিচ্ছেন কিম জং উন। অন্যদিকে, হুঁশিয়ারি দিচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর এর মধ্যেই ভারতের ভূমিকা নিয়ে কথা বললেন এক মার্কিন কমান্ডার।

মার্কিন প্যাসিফিক কমান্ডের কমান্ডার অ্যাডমিরাল হ্যারি হ্যারিস জানিয়েছেন,  আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ভারতের মন্তব্যের যথেষ্ট প্রভাব রয়েছে। ভারতের যে কোনও বক্তব্যে অন্যান্য দেশ গুরুত্ব দেয় বলে মনে করেন তিনি।  

তাই মার্কিন ওই সেনা অফিসারের মতে, উত্তর কোরিয়া ইস্যুতে ভারত বিশেষ ভূমিকা নিতেই পারে। কার্যত যে দেশের সেনানায়কের উদ্যোগে উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যে সীমান্ত নির্ধারণ করা হয়েছিল, সেই দেশকেই সম্মান জানালেন আমেরিকার এই সেনা অফিসার।  

উল্লেখ্য, কোরিয়ার যুদ্ধের পর ভারতের প্রাক্তন সেনাপ্রধান তথা রাষ্ট্রসংঘের প্রতিনিধি দলের প্রধান জেনারেল থিমায়া ওই স্থান পরিদর্শন করেন ও তাঁর উদ্যোগেই দুই দেশের মধ্যে সীমান্ত নির্ধারণ করা হয়।

এদিকে পিয়ংইয়ং-এর তরফ থেকে বলা হয়েছে, গুয়াম দ্বীপে একটি হামলার চালানোর পরিকল্পনা করা হচ্ছে তৎপরতার সঙ্গে। এই দ্বীপ আসলে মার্কিন সেনার একটি ঘাঁটি। এখানে আমেরিকার সাবমেরিন স্কোয়াড্রন রয়েছে। একটি এয়ারবেস ও একটি কোস্ট গার্ড গ্রুপও রয়েছে সেখানে।  

উত্তর কোরিয়ার সেনাবাহিনীর মুখপাত্র এক সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, কিম জং উন সিদ্ধান্ত নিলেই হামলা করা হবে। অন্য এক মুখপাত্র আবার দাবি করেছেন, আমেরিকা বেশি এগোতে চাইলে তাদের সব ঘাঁটিই উড়িয়ে দেওয়া হবে। উত্তর কোরিয়ার ব্যালিস্টিক মিসাইল টেস্ট ও নিউক্লিয়ার প্রোগ্রামে বাধা দিতে চাইলে তারা বলপ্রয়োগ করবে বলেও জানিয়েছে।


বিডি প্রতিদিন / ১২ আগস্ট, ২০১৭ / তাফসীর

আপনার মন্তব্য

up-arrow