Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০৯:৩১ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৪:৩১
জাপানের প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে মসজিদ দর্শন মোদির
দীপক দেবনাথ, কলকাতা
জাপানের প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে মসজিদ দর্শন মোদির

ভারত সফররত জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে’কে নিয়ে দেশটির আহমেদাবাদে অবস্থিত ষোড়শ শতাব্দীতে তৈরি সঈদ নি জালি মসজিদ পরিদর্শন করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। শুধু স্থাপত্যকলার বিশেষত্ব হিসাবেই নয়, আহমেদাবাদ শহরের অন্যতম দর্শনীয় স্থানটি ঘুরে দেখেন মোদি-আবে।

বুধবার বিকালের দিকে মসজিদে যান তাঁরা। সেখানে গিয়ে আবের কাছে ওই মসজিদের ইতিহাস ও গুরুত্ব তুলে ধরেন মোদি। পরে সূর্যাস্তের বিপরীতে দাঁড়িয়ে দুই রাষ্ট্রনেতাই ছবিও তোলেন।  

গুজরাটের বহুধর্মী সংস্কৃতির অন্যতম প্রতীক এই মসজিদ। হিন্দু-মুসলমান সংস্কৃতির মিলনে অন্যতম অনুঘটকও বটে। মসজিদটি তৈরি করেছিলেন ইয়েমেনের নাগরিক সিদি সৈঈদ। কথিত আছে ওই মসজিদ তৈরিতে সৈঈদকে ৪৫ জন শিল্পী সহায়তা করেছিল। ব্রিটিশ শাসনকালে এই স্থাপত্যটিকে সরকারি কার্যালয় হিসাবে ব্যবহার করা হতো।

দেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার আগে ১২ বছর গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী থাকলেও এই প্রথমবারের মতো মসজিদে গেলেন মোদি।

এবং একটা সময় মসজিদে গেলেন যখন ভারত জুড়ে বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে অসহিষ্ণুতা ও বিভেদের রাজনীতির অভিযোগ উঠেছে। ফলে জাপানি প্রধানমন্ত্রীর সামনে সারা বিশ্বকে নতুন বার্তা দিতেই মোদির মসজিদ দর্শন বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।  

এর আগে, বিমানবন্দরে সস্ত্রীক আবেকে স্বাগত জানাতে উপস্থিত ছিলেন মোদি। বিমান থেকে অবতরণ করার পরই আবেকে জড়িয়ে ধরেন মোদি। বিমানবন্দরেই দু'জনে কুশল বিনিময় করেন। এরপর গার্ড অফ অনার দেওয়ার হয় জাপানের প্রধানমন্ত্রীকে। এরপর বিমানবন্দর থেকেই হুডখোলা গাড়িতে মোদিকে সঙ্গে নিয়েই বেরিয়ে পড়েন আবে। এক গাড়িতেই মোদির পাশে দাঁড়িয়ে স্ত্রী আকি’কে সঙ্গে নিয়েই জাপানের প্রধানমন্ত্রী প্রায় ৮ কিলোমিটারের বেশি রাস্তা অতিক্রম করে আহমেদাবাদের সবরমতীর আশ্রমে যান তাঁরা। সেখানে গিয়ে ভারতের জাতিরজনক মহাত্মা গান্ধীর প্রতি শ্রদ্ধা জানান। ঘুরে দেখেন আশ্রম। আশ্রমে কিছু সময় কাটিয়েই দুই রাষ্ট্রনেতাই চলে যান ষোড়শ শতাব্দীতে তৈরি সঈদ নি জালি মসজিদে।  
এদিন হুডখোলা গাড়িতে করে সবরমতীর আশ্রমে যাওয়ার পথে রাস্তার দুই ধারে দুই প্রধানমন্ত্রীকেই হাত নাড়িয়ে অভিনন্দন জানান কয়েক হাজার মানুষ, প্রত্যুত্তরে তারাও অভিনন্দন জানান। তবে এদিন সকলের নজর কাড়ে শিনজো আবে, কারণ কোট-প্যান্ট-টাই ছেড়ে তাঁর পড়নে ছিল কুর্তা,পাজামা ও নেহেরু জ্যাকেট। একেবারে ভারতীয় লুক বলতে যা বোঝায় ঠিক তাই।  

আজ বৃহস্পতিবার ভারতের প্রথম বুলেট ট্রেনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন মোদি-আবে।  

বিডি-প্রতিদিন/১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭/মাহবুব

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow