Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮

প্রকাশ : ২০ জানুয়ারি, ২০১৮ ১১:৫৭ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২০ জানুয়ারি, ২০১৮ ১২:১০
ট্রেনিং নেই, তাই প্রোটোকল জানি না: মোদি
অনলাইন ডেস্ক
ট্রেনিং নেই, তাই প্রোটোকল জানি না: মোদি

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জানিয়েছেন, তিনি অত্যন্ত সাধারণ মানুষ। প্রোটোকল জানেন না। কিন্তু এটাই তার বড় শক্তি। এই সরলতা দিয়ে রাষ্ট্রনেতাদের আপন করে নেন তিনি।
বিরোধীদের খোঁচা মেরে তিনি বলেন, ‘‘আমার যদি ট্রেনিং নেওয়া থাকত তাহলে আমিও আদম কায়দা ও রীতি নীতি মেনে রাষ্ট্রনেতাদের স্বাগত জানাতাম। সব প্রোটোকল মেনে চলতাম। তাদেরকে অভ্যর্থনা জানানোর সময় ডান দিক বাঁ দিক দেখে নিতাম। কিন্তু আমি সাধারণ মানুষ। শুধু এটা মাথায় রাখি আমার এই ব্যবহার দেশকে যেন বিপদে না ফেলে।

একটি টিভিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি আরও বলেন, যখন প্রধানমন্ত্রী হই তখন আমার সম্পর্কে বলা হত গুজরাটের বাইরে আমি কিছু চিনি না। সবাই আমাকে জিজ্ঞাসা করত বিদেশ নীতি কিভাবে রূপায়ন করব? যদিও তখন এই সমালোচনা যথার্থই ছিল। কেননা আমার কোন অভিজ্ঞতা ছিল না। তবে অভিজ্ঞতা না থাকাটা আমার কাছে সুবিধাজনক হয়ে দাড়িয়েছে।

রাষ্ট্রনেতাদের পাশে দাঁড়ানোর অভিজ্ঞতা কেমন তা প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, তখন আমি নিজেকে নরেন্দ্র মোদি ভাবি না। নিজেকে ১২৫ কোটি ভারতবাসীর প্রতিনিধি বলে মনে করি।

রাষ্ট্রনেতাদের আলিঙ্গন করা অভ্যাসে পরিণত করে ফেলেছেন মোদী। আসলে এই আলিঙ্গনের মাধ্যমে রাষ্ট্রনেতাদের আপন তাদের সঙ্গে সম্পর্ককে অন্য উচ্চতায় নিয়ে যেতে চান। মোদির এই আলিঙ্গনকে কংগ্রেস কটাক্ষ করে নাম দিয়েছে ‘হাগপ্লোমেসি। ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর সফরের দিন কংগ্রেস এই ‘হাগপ্লোমেসি’ নিয়ে ব্যঙ্গ করে একটি ভিডিও প্রকাশ করে। সেই ভিডিও বিভিন্ন পোজে মোদিকে রাষ্ট্রনেতাদের আলিঙ্গন করতে দেখা গেছে। বিজেপি এর তীব্র সমালোচনা করে। কংগ্রেসের কাছে এই আচরণের জন্য ক্ষমা চাওয়ারও দাবি জানায় তারা।

বিডি-প্রতিদিন/ সালাহ উদ্দীন

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow