Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৫:৫৫ অনলাইন ভার্সন
পশু খাদ্য কেলেঙ্কারির মামলায় লালু প্রসাদের ৫ বছরের কারাদণ্ড
দীপক দেবনাথ, কলকাতা

পশু খাদ্য কেলেঙ্কারির মামলায় লালু প্রসাদের ৫ বছরের কারাদণ্ড

পশুখাদ্য কেলেঙ্কারি তৃতীয় মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলেন ভারতের বিহার রাজ্যের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও রাষ্ট্রীয় জনতা দল (আরজেডি) প্রধান লালু প্রসাধ যাদবকে(৬৯) পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। 

বুধবার দুপুরে রাঁচির সিবিআই’এর বিশেষ আদালত লালুর বিরুদ্ধে এই সাজা ঘোষণা করেন। এর আগে এদিন সকালেই লালুকে দোষী সাব্যস্ত করেন আদালতের বিচারক এস.এস.প্রসাদ।

লালুর বিরুদ্ধে অভিযোগ ১৯৯২ থেকে ১৯৯৩ সালের মধ্যে চাঁইবাসা ট্রেজারি থেকে ৩৩.১৩ কোটি রুপি নষ্ট করেছিলেন। লালুর সাথেই বিহারের আরেক সাবেক মুখ্যমন্ত্রী জগন্নাথ মিশ্রকেও পাঁচ বছরের সাজা দিয়েছেন আদালত। সেই সাথে দুই শীর্ষ নেতাকেই পাঁচ লাখ রুপি করে ব্যক্তিগত জরিমানাও ধার্য করেছেন আদালত। যদিও নিম্ন আদালতের এই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে হাইকোর্ট এবং প্রয়োজন হলে সুপ্রিম কোর্টেও যাওয়া হবে বলে দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। 

লালুর পুত্র এবং আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব জানান, ‘মানুষ জানেন বিজেপি, আরএসএস এবং নীতিশ কুমার কিভাবে লালু প্রসাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। নিম্ন আদালতের সব রায়ের বিরুদ্ধেই আমরা উচ্চতর আদালতের দ্বারস্থ হব’।

এর আগে পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির দুইটি মামলায় দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে লালুকে। গত মাসেই দ্বিতীয় পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির মামলায় লালুকে সাড়ে তিন বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ দেয় রাঁচির বিশেষ সিবিআই আদালত। বর্তমানে রাঁচির বিরসা মুন্ডা কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন তিনি। 

তারও আগে ২০১৩ সালের অক্টোবরে পশু খাদ্য কেলেঙ্কারির চাইবাসা ট্রেজারির প্রথম মামলাটিতে দোষী সাব্যস্ত হয়েছিলেন তিনি। ওই মামলায় সেসময় পাঁচ বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ দেন আদালত। দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার অধিকার হারান লালু। যদিও সেসময় মাত্র দুই মাস কারাগারে কাটানোর পর সুপ্রিম কোর্ট থেকে জামিনে মুক্তি পান লালু।

বিডি-প্রতিদিন/২৪ জানুয়ারি, ২০১৮/মাহবুব

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow