Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৯ মার্চ, ২০১৮ ০১:৪৩ অনলাইন ভার্সন
ফেসবুকের নিষেধাজ্ঞায় ট্রাম্প সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান
অনলাইন ডেস্ক
ফেসবুকের নিষেধাজ্ঞায় ট্রাম্প সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান
সংগৃহীত ছবি
bd-pratidin

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। সম্প্রতি প্রতিষ্ঠানটি ক্যাম্ব্রিজ অ্যানালিটিকা নামের এক প্রতিষ্ঠানের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। বেশ কিছু দিন ধরেই ক্যাম্ব্রিজ অ্যানালিটিকার সঙ্গে কাজ করে আসছিল জাকারবার্গের প্রতিষ্ঠানটি। 

জানা গেছে, ওই ডেটা ফার্মটি প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ক্যাম্পেইনের সঙ্গে যুক্ত। তাই ফেসবুকের নীতিমালা ভঙ্গের দায়ে তাদের ওপর এ নিষেধাজ্ঞা আনা হয়েছে। 

ফেসবুকের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং জেনারেল কাউন্সিল পল গ্রেওয়াল এক বিবৃতিতে বলেন, ইউনিভার্সিটি অব ক্যাম্ব্রিজের মনোবিজ্ঞানের প্রফেসর আলেকসান্দার কোগান ফেসবুকের এক থার্ড-পার্টি অ্যাপের মাধ্যমে ফেসবুকের ইউজার ডেটা হস্তগত করেছেন। আর সেই তথ্য বেশ কিছু জায়গায় দিয়েছেন যার মধ্যে রয়েছে ক্যাম্ব্রিজ অ্যানালিটিকা। এরা মানুষের তথ্য সংরক্ষণের জন্যে সোশাল মিডিয়া সাইটের সঙ্গে নীতিমালা মেনেই কাজ করে। 

বিবৃতিতে বলা হয়, ২০১৫ সালে এমন নীতিমালা ভঙ্গের অভিযোগের প্রমাণ মেলার পর ফেসবুক কোগান এবং অন্যান্য পার্টির কাছ থেকে সার্টিফিকেট দাবি করেন। ফেসবুক নিশ্চিত হতে চেয়েছিল যে তথ্য সব ধ্বংস করা হয়েছে। 

যদিও তারা বলেছে যে সব তথ্য ধ্বংস করা হয়েছে, কিন্তু তার ব্যত্যয় দেখেছে ফেসবুক। আর সে কারণেই ক্যাম্ব্রিজ অ্যানালিটিকা, তার প্যারেন্ট কম্পানি স্ট্র্যাটেজিক কমিউনিকেশন ল্যাবরোটরিজ, কোগান এবং অন্য আরেক ব্যক্তি এবং ইউনোয়িয়া টেকনলজিস ইনক. এর ক্রিস্টোফার উইলির সঙ্গে সমস্ত কার্যকলাপ বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে ফেসবুক।  

বিবৃতিতে গ্রেওয়াল আরো বলেন, আমরা মানুষের তথ্য রক্ষা করার যাবতীয় নিয়মের ওপর জোর দিয়েছি। আর তা করতে আমরা যেকোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করবো। আমরা এমন অনৈতিক এবং আইনবিরোধী আচরণের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবো। 

নিউ ইয়র্ক টাইমস এবং ব্রিটিশ পত্রিকা অবজারভার সম্প্রতি ফেসবুকের সঙ্গে ক্যাম্ব্রিজ অ্যানালিটিকার কার্যক্রম নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করে। সেখানে তাদের কার্যকলাপ নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করা হয়। আর তার পরই ফেসবুক এমন ঘোষণা দিলো। 

এদিকে, ওই ডেটা প্রতিষ্ঠানের এক মুখপাত্র তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তারা এ ধরনের খবর প্রচার করা থেকে বিরত হতে ফেসবুকের সঙ্গে যোগাযোগ করবে। 

তিনি জানান, ২০১৪ সাল থেকে ক্যাম্ব্রিজ অ্যানালিটিকা চুক্তিবদ্ধ হয় কোগানের কম্পানি গ্লোবাল সায়েন্স রিসার্চ (জিএসআর) এর সঙ্গে কাজ শুরু করে। এর মাধ্যমে আমেরিকার মধ্যে বড় আকারের গবেষণা প্রজেক্ট শুরু হয়। তখন থেকেই গবেষণার কাজে অনেক তথ্য-উপত্তা সংগ্রহ করা হয়েছিল। কিন্তু ফেসবুকের নীতিমালা ভেঙে তথ্য চুরি করা হয়নি। 

ইউনাইটেড কিংডমের ইরফরমেশন কমিশনার এলিজাবেথ ডেনহাম এ ঘটনার একটি সুষ্ঠু তদন্তের ঘোষণা দিয়েছেন। বলেন, ফেসবুকের কোন তথ্যগুলো অবৈধভাবে নেওয়া ও ব্যবহার করা হয়েছে তা তদন্তেই উঠে আসবে। 

এর আগে সিএনএন ২০১৭ সালের অক্টোবরে এক প্রতিবেদনে জানায়, ডেটা কম্পানিটি উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের সঙ্গে ২০১৬ সালে যোগাযোগ করেছিল। তখন হিলারি ক্লিনটনের হাজার হাজার ইমেইল একটি সার্ভারে সংরক্ষিত ছিল।

ক্যাম্ব্রিজ অ্যানালিটিকার সিইও আলিয়ান্ডার নিক্সের একটি ইমেইল বলা হয়েছিল, তিনি অ্যাসাঞ্জের সঙ্গে দেখা করেছিলেন ক্লিনটনের ব্যক্তিগত সার্ভারের ইমেইল অবধি পৌঁছতে। ট্রাম্পের নির্বাচনী ক্যাম্পেইনের আগেভাগে কিছু তথ্য তিনি পেতে চাইছিলেন। 

বিডিপ্রতিদিন/ ১৮ মার্চ, ২০১৮/ ই জাহান

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow