Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২৭ মে, ২০১৮ ১০:৫০ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২৭ মে, ২০১৮ ১১:০৬
মিয়ানমারে চীনের ৭৫০ কোটি ডলারের সমুদ্রবন্দর 'পাগলামি': টারনেল
অনলাইন ডেস্ক
মিয়ানমারে চীনের ৭৫০ কোটি ডলারের সমুদ্রবন্দর 'পাগলামি': টারনেল
ফাইল ছবি

৭৫০ কোটি ডলার ব্যয়ে নির্মিতব্য চীনা গভীর সমুদ্রবন্দরকে ‘পাগলামি’ বলে মন্তব্য করেছেন মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সু চির অর্থনীতি বিষয়ক পরামর্শক শন টারনেল। তিনি বলেন, এটা পুরাই পাগলামি। যা প্রয়োজন তার চেয়ে অনেক অনেক বেশি চাওয়া হচ্ছে। সরকার বিষয়টা নিয়ে ভাবছে। শুক্রবার সিঙ্গাপুরে এক সেমিনারে টারনেল এ কথা বলেন। 

বিষয়টিকে 'অদ্ভুত' উল্লেখ করে অস্ট্রেলিয়ার ম্যাককোয়রি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক টারনেল মিয়ানমারকে এক চিঠিতে জানান, তিনি এখনও বিশ্বাস করেন যে সমুদ্রবন্দর ভালো প্রস্তাব। তবে এজন্য ৭৫০ কোটি ডলার প্রয়োজন নেই। সম্প্রতি পানামা ক্যানাল প্রকল্পে ৫২৫ কোটি ডলার খরচ হয়েছে। মিয়ানমারের বন্দরে এত অর্থ লাগার বিষয়টি অদ্ভুত।

উল্লেখ্য, চীনের রাষ্ট্রীয় বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান সিটিক গ্রুপ তিন বছর আগে এখানে সমুদ্রবন্দর নির্মাণের অনুমতি পায়। এক হাজার কোটি ডলার ব্যয়ে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল তৈরির পরিকল্পনা হাতে নেয় তারা। সিটিক এ প্রকল্পের ৭০ শতাংশের মালিকানার প্রস্তাব দিয়েছে। বাকিটা মিয়ানমার সরকার ও স্থানীয় ফার্মের মাঝে ভাগ হবে। চীনা প্রতিষ্ঠানটি ৭৫ বছর ধরে এর ব্যবস্থাপনা করবে। এ প্রকল্পের অর্থায়ন নিয়ে আলোচনা অব্যাহত রয়েছে চীন ও মিয়ানমারের মধ্যে। মিয়ানমারের আশা, এতে করে বিনিয়োগকারীরা আকৃষ্ট হবে ও চাকরির ক্ষেত্র তৈরি হবে।

সূত্র: গ্লোবাল টাইমস।


বিডি প্রতিদিন/২৭ মে ২০১৮/হিমেল

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow