Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২১ নভেম্বর, ২০১৮ ০৬:৩৩ অনলাইন ভার্সন
ট্রাম্পের মন্তব্যের প্রতিবাদে মুখ খুললেন ইমরান খান
'পাকিস্তানের মতো বলির পাঁঠা আর কোথাও পাবে যুক্তরাষ্ট্র?'
অনলাইন ডেস্ক
'পাকিস্তানের মতো বলির পাঁঠা আর কোথাও পাবে যুক্তরাষ্ট্র?'
ফাইল ছবি

ট্রাম্পের শাসনামলে যুক্তরাষ্ট্র ও পাকিস্তানের সম্পর্ক প্রায় তলানিতে। সম্প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ওসামা বিন লাদেনকে টেনে এনে পাকিস্তানকে ভর্ৎসনা করায় সম্পর্ক আরও তলানিতে গিয়ে ঠেকে। ট্রাম্পের সেই মন্তব্যের যোগ্য উত্তর দিয়েছেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান৷ তবে এখানেই বিতর্কে থেকে থাকছে না। ডোনাল্ড ট্রাম্পের মন্তব্যের প্রতিবাদে ইসলামাবাদে নিযুক্ত মার্কিন দূতকে ডেকে পাঠাল ইমরান খানের বিদেশ মন্ত্রালয়।

পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রালয় বিবৃতি দিয়ে জানায়, মার্কিন দূত পল জোনসকে ডেকে পাঠানো হয়েছে। কোন প্রমাণ ছাড়াই পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যে অন্যায্য অভিযোগ তোলা হয়েছে তার প্রতিবাদ জানাতে মার্কিন দূতকে ডাকা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত রবিবার ট্রাম্প সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে পাকিস্তানের কড়া সমালোচনা করেন। তিনি জানান, পাকিস্তান আমেরিকার জন্য কিছুই করেনি। অথচ তারা মিলিয়ন ডলার আর্থিক সাহায্য পেয়েই গেছে। ৯/১১র হামলাকারী লাদেনকে পাকিস্তানে আশ্রয় নিয়েছিল। পাকিস্তান সেটা জানত, কিন্তু আমেরিকাকে কিছুই জানায়নি তারা।

ট্রাম্পের ঢিলের জবাবে পাটকেল ছুঁড়ে মেরেছেন ইমরানও। মার্কিন প্রেসিডেন্টকে লম্বা তালিকা ধরিয়ে দেখিয়ে দেন পাকিস্তান আমেরিকার জন্য কী কী করেছে। একের পর এক ট্যুইট করে ট্রাম্পকে ইমরান মনে করিয়ে দেন তাদের জন্য পাকিস্তানকে কতটা ‘ত্যাগ স্বীকার’ করতে হয়েছে।

ট্যুইটে পাক প্রধানমন্ত্রী লেখেন, সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের লড়াইয়ে পাকিস্তানের ৭৫ হাজার মানুষ মারা গেছে। বাড়ি ঘর খুইয়েছে। অর্থনীতি ধ্বংস হয়ে গেছে। তারপরেও পাকিস্তান যুক্তরাষ্ট্রের পাশে থেকেছে। আর কোন সহযোগী দেশ এমন ত্যাগ স্বীকার করেছে? এমন বলির পাঁঠা আর কোথাও পাবে যুক্তরাষ্ট্র? 


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ আল সিফাত

আপনার মন্তব্য

up-arrow