Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২১ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপডেট : ২০ জুন, ২০১৬ ২২:৫৫
তিস্তা সমস্যা সমাধানে আশ্বাস দিলেন মমতা
দীপক দেবনাথ, কলকাতা
তিস্তা সমস্যা সমাধানে আশ্বাস দিলেন মমতা

বাংলাদেশের সঙ্গে তিস্তার পানি বণ্টন সমস্যা দ্রুত মিটিয়ে ফেলতে বাংলাদেশকে ফের একবার আশ্বাস দিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গতকাল কলকাতায় দিল্লির বাংলাদেশ হাইকমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলির সঙ্গে সাক্ষাৎকালে মমতা এ আশ্বাস দেন। গত মাসেই বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে টানা দ্বিতীয়বারের জন্য পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতায় আসে মমতার দল তৃণমূল কংগ্রেস। মমতার সেই জয়ের শুভেচ্ছা জানাতেই এদিন বিকাল ৩টা নাগাদ পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের সচিবালয় ‘নবান্নে’ উপস্থিত হন বাংলাদেশ হাইকমিশনার। সঙ্গে ছিলেন দিল্লির বাংলাদেশ ডেপুটি হাইকমিশনার সালাউদ্দিন নোমান চৌধুরী, কলকাতায় বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনার জকি আহাদ এবং কলকাতা মিশনের কাউন্সিলর মিঞা মহম্মদ মইনুল কবীর প্রমুখ। নবান্নের ১৪ তলায় তাদের স্বাগত জানান মুখ্যমন্ত্রী। প্রায় ৪০ মিনিট ধরে কথা হয় দুই পক্ষের মধ্যে। দুই পক্ষ থেকেই এই বৈঠককে ‘সৌজন্য’ সাক্ষাৎ বলা হলেও মুখ্যমন্ত্রীকে তার জয়ের জন্য বাংলাদেশের তরফে শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি দুই দেশের মধ্যে বকেয়া ইস্যুগুলোও আলোচনার টেবিলে উঠে আসে। পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে মোয়াজ্জেম আলি বলেন, ‘বৈঠক অত্যন্ত ফলপ্রসূ হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী আন্তরিকতার সঙ্গে আমাদের কথা শুনেছেন। তিস্তা চুক্তি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়েছে। গত বছর যখন উনি (মমতা) বাংলাদেশ সফরে যান তখনই এ ব্যাপারে আশ্বাস দিয়েছিলেন। আজকের বৈঠকে তিস্তা সমস্যা মেটানোর ব্যাপারে আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রীর ওপর আমাদের সম্পূর্ণ আস্থা রয়েছে। তবে ভারতের যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো অনুযায়ী এই বিষয়টিতে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের ঐকমত্যে পৌঁছানো প্রয়োজন। সেদিকে তাকিয়েই পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার ও কেন্দ্রের মধ্যে আলোচনা চলছে বলে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রীও আশা করেন অচিরেই এই সমস্যা মিটে যাবে’। প্রসঙ্গত, গত রবিবারই নয়াদিল্লিতে এক সংবাদ সম্মেলনে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ জানিয়েছিলেন, তিস্তার সমস্যা মেটাতে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে আমরা (কেন্দ্রীয় সরকার) ঐকমত্যে পৌঁছানোর চেষ্টা করছি।




up-arrow