Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : রবিবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:৫৮
কাশ্মীর ফের উত্তপ্ত : ২ বিক্ষোভকারী নিহত
আরও সেনা মোতায়েন
দীপক দেবনাথ, কলকাতা
কাশ্মীর ফের উত্তপ্ত : ২ বিক্ষোভকারী নিহত
কাশ্মীরে নতুন করে শুরু হওয়া সংঘাতে বিচ্ছিন্নতাবাদীরা মুখোশপরে নিরাপত্তাবাহিনী সদস্যদের লক্ষ্য করে ঢিল ছুড়ছে —এএফপি

নতুন করে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েছে কাশ্মীরে। গতকাল নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে দুই বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছে, আহত হয়েছে কমপক্ষে ৪৫ জন।

এ নিয়ে ৮ জুলাইয়ের পর থেকে এখন পর্যন্ত কাশ্মীরের সহিংসতায় মৃত্যু হয়েছে ৭৭ জনের। মাঝে কয়েকদিন শান্ত থাকার পর গতকাল সকাল থেকে দক্ষিণ কাশ্মীরের সোপিয়ান ও অনন্তনাগ জেলায় নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে বিক্ষোভকারীরা। সোপিয়ানের টাক্রু গ্রামে নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর পাথর ছুঁড়লে পাল্টা তারাও টিয়ার স্মোক এবং পেলেট গান ব্যবহার করে। হঠাৎই টিয়ার স্মোকের একটি সেল এসে লাগে শয়ার আহমেদ শেখ (২৬) নামে এক বিক্ষোভকারীর কপালে। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তার। হাসাপতালে নিলে তাকে মৃত বলে ঘোষণা দেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। গ্রামবাসীদের দাবি কমপক্ষে ৩০ জন বিক্ষোভকারী নিরাপত্তা বাহিনীর ছোঁড়া পেলেট গানে আহত হয়েছে। অন্যদিকে অনন্তনাগ জেলার বোতেঙ্গু গ্রামে ইয়াবর মুস্তাক (২৫) নামে এক যুবকের পেটে ও বুকে পেলেট বিদ্ধ হয়। পুলিশি নির্যাতনের প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ জানানোর সময় বিক্ষোভকারীদের ওপর পেলেট গান ব্যবহার করা হয় বলে অভিযোগ। গ্রামবাসীদের দাবি বোতেঙ্গুতে পেলেট গানে ১০ জন আহত হয়েছেন। রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী মেহেবুবা মুফতি এদিন জানান ‘শোপিয়ানে আরেক যুবকের নিহত হওয়ার ঘটনা খুবই দুঃখজনক। নিজের বাসা ছেড়ে সকাল-সন্ধ্যা ২৪ ঘণ্টা ধরেই চিকিৎসকরা তাদের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। ৮ জুলাই নিরপাত্তা বাহিনীর গুলিতে হিজবুল মুজাহিদিন কমান্ডার বুরহান ওয়ানি (২১)-এর নিহত হওয়ার পর থেকে গত দুই মাস ধরে কাশ্মীরের পরিস্থিতি যথেষ্ট থমথমে। উপত্যকার জনজীবন এখনো স্বাভাবিক নয়। সহিংসতায় ৭৭ জনের মৃত্যুর পাশাপাশি আহতের সংখ্যা ১০ হাজারের কাছাকাছি। এর মধ্যে অনেক নিরাপত্তা বাহিনী ও পুলিশের সদস্যরাও আছে। এদিকে ভারতনিয়ন্ত্রিত বিক্ষুব্ধ কাশ্মীরে সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। ২০১৪ সালের পর এই প্রথম সেখানে সেনা মোতায়েন করল ভারত। পুলওয়ামা, সোপিয়ান, কুলগাম এবং অনন্তনাগের চার জেলায় সেনা মোতায়েন করেছে ভারত। এ চার জেলায় বিক্ষোভ-সংঘর্ষে গত দুই মাসে ৫০ থেকে ৭০ জনের মতো মানুষ নিহত হয়েছে। থেমে থেমে সেখানে সংঘর্ষ অব্যাহত রয়েছে। এ নিয়ে ভারত-পাকিস্তানের কূটনীতি আবারও চরম উত্তেজনাকর পরিস্থিতিতে পৌঁছেছে। পাল্টাপাল্টি কথার আক্রমণে লিপ্ত রয়েছে দেশ দুটি। অব্যাহত সহিংসতা ও বিদ্রোহকবলিত চার জেলায় শান্তি ফিরিয়ে আনতে ভারতের সেনাপ্রধান দলবীর সিং সুহাগ সেখানে সেনা মোতায়েনের ওপর গুরুত্ব দিয়েছেন। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে সেনাদের সরকারি প্রশাসনকে সহযোগিতা করার নির্দেশ দিয়েছেন সেনাপ্রধান। এ সংঘর্ষে সেখানে কয়েক হাজার মানুষ আহত হয়েছে। বিদ্রোহীদের মুখোমুখি হওয়ায় নিরাপত্তাকর্মীদের অনেকে আহত হয়েছেন। কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে বিব্রতকর অবস্থায় রয়েছে ভারতের  কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার সমন্বিত সিদ্ধান্তে সেনা মোতায়েন করেছে। সংক্ষুব্ধ জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলেও সেনারা দায়িত্ব পালন করবে।

up-arrow